ফেরানো হল কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা, কী পেতেন আর কী পাচ্ছেন মুকুল রায়?

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: তৃণমূল নেতা মুকুল রায়ের নিরাপত্তায় থাকা কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রত্যাহার করে নেওয়া হল বৃহস্পতিবার। তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের পরেই তিনি নিজের নিরাপত্তায় মোতায়েন কেন্দ্রীয় বাহিনী ফিরিয়ে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন।

২০১৭ সালের ৩ নভেম্বর তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন মুকুল রায়। তার পর থেকেই তিনি কেন্দ্রের ওয়াই প্লাস ক্যাটিগরির কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেতেন। তবে বিধানসভা ভোটের আগে তাঁকে জেড ক্যাটেগরির নিরাপত্তা দেওয়া হয়। গত মার্চ-এপ্রিল মাসে তাঁর জন্য দ্বিতীয় শীর্ষ স্তরীয় নিরাপত্তা ডেজ ক্যাটেগরি বরাদ্দ করে কেন্দ্র। সে সময় ৩৩ জন সিআরপিএফ কর্মী তিন শিফটে তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন।। তৃণমূলে যোগ দিয়েই তিনি কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা ছাড়তে চেয়ে চিঠি পাঠান। এখন তিনি রাজ্য পুলিশের নিরাপত্তা পাচ্ছেন।

Loading videos...

গত শনিবার মুকুল সাংবাদিকদের সামনে বলেন, ইতিমধ্যে “নিজের সুরক্ষায় থাকা সিআরপিএফ কর্মীদের ছেড়ে দিয়েছেন” তিনি। যদিও সিআরপিএফ থেকে বলা হয়, তাদের কর্মীরা এখনও দায়িত্ব পালন করছেন। এ দিন জানা যায়, কৃষ্ণনগর উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়কের আবেদনের ভিত্তিতে তাঁর নিরাপত্তা প্রত্যাহারের জন্য সিআরপিএফ-কে নির্দেশ দেয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

মুকুল রায় কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা ছেড়ে দিতে চেয়ে চিঠি লিখেছিলেন। এর পরই তাঁর পুত্র শুভ্রাংশুর কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পত্যাহার করা হয়। তবে মুকুলের আবেদনের পরেও এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছিল না। সিআরএফপি জানিয়ে দিয়েছিল, বিষয়টি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বিবেচনাধীন। এ দিন দেখা গেল, তাঁর কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হচ্ছে। তবে তৃণমূলে যোগ দিতেই রাজ্য পুলিশের নিরাপত্তা পাচ্ছেন তিনি। ইতিমধ্যেই তাঁকে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

গত শনিবারেই শুভ্রাংশু রায়কে দেওয়া ওয়াই ক্যাটেগরির নিরাপত্তা সরিয়ে নেয় সিআইএসএফ। নিয়ম মেনেই ওই পদক্ষেপ বলে দাবি করেছিল কেন্দ্র। নিরাপত্তাপ্রাপ্ত কোনো ব্যক্তি যদি, নিরাপত্তা ফিরিয়ে দিতে চান, তা হলে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়। প্রতিটি শিফটে পাঁচ জন সশস্ত্র স্ট্যাটিক গার্ড এবং তিনজন ব্যক্তিগত সুরক্ষা আধিকারিক শুভ্রাংশুর নিরাপত্তায় ছিলেন।

আরও পড়তে পারেন: মুকুল রায় কেন বিজেপি ছাড়লেন? ৭টি কারণ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন