কলকাতা: এ বার আচার্য পদ নিয়ে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাতের সূচনা। শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে রাজ্যপালের তোপ দাগার পরই বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্য পদ থেকে রাজ্যপালকে সরিয়ে দেওয়ার কথা ভাবছে রাজ্য সরকার।

শুক্রবার সকালেই উপাচার্য বিতর্ক নিয়ে টুইটারে ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পাল্টা তোপ দাগেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। কেরলের রাজ্যপালের বক্তব্য তুলে ধরে ব্রাত্য বলেন, মুখ্যমন্ত্রীকে সাময়িক সময়ের জন্য আচার্য করা যায় কি না, তা নিয়েই আইনজ্ঞদের পরামর্শ নেবে রাজ্য।

কী বলেছিলেন রাজ্যপাল?

রাজ্যের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকে ডেকেছিলেন রাজ্যপাল। ওই বৈঠকে কেউ যোগ দেননি বলে আক্ষেপ করেন তিনি। শুক্রবার সকালে টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করেন ধনখর। তাতে তিনি বলেন, “অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের বিষয় কেউ বৈঠকে যোগ দিতে আসেননি। এ রাজ্যে আইনের শাসন চলছে না, শাসকের শাসন চলছে। নিয়মের তোয়াক্কা না করে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে নিজেদের লোককে উপাচার্য নিয়োগ করা হচ্ছে। রাজ্যের হাতে শিক্ষা ছেড়ে দিলে চলবে না। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উচিত বিষয়গুলি তদন্ত করে দেখা”।

মুখ্যমন্ত্রীকে ট্যাগ করে ধনখর আরও লেখেন, “রাজ্যের শিক্ষার অবস্থা ভয়াবহ। রাজ্যপালের ডাকা বৈঠকে যোগ দিতে এলেন না বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য-উপাচার্যরা। এই দলবাজিতে স্তম্ভিত”।

কী বলছেন ব্রাত্য বসু?

এ দিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী। রাজ্যপালের বিরুদ্ধে দিনের পর দিন ফাইল আটকে রাখার অভিযোগ করেন তিনি। ধনখরকে নিশানা করে তিনি বলেন, বিন্দুমাত্র সহযোগিতার মনোভাব দেখাচ্ছেন না রাজ্যপাল। শুধু টুইটার আর ফেসবুক করে চলেছেন, ও দিকে ফাইল আটকে রয়েছে।

এ প্রসঙ্গেই ব্রাত্য বলেন, “উনি যদি মনোভাব পরিবর্তন করেন, তা হলে আমরা কেরলের রাজ্যপাল যা বলেছেন, সেটা আইন মেনে বিচার করে দেখব। আইনজ্ঞদের সঙ্গে সংবিধান নিয়ে আলোচনা করে অন্তত সাময়িক ভাবে আচার্য পদে আমরা মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীকে আনতে পারি কি না, সেটা আমরা খতিয়ে দেখব”।

প্রসঙ্গত, কেরলে রাজ্য বনাম রাজ্যপালের সংঘাত তীব্র হয় সম্প্রতি। তখন কেরলের রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদ খান বলেছিলেন, তিনি সরে যাবেন। একই সঙ্গে প্রস্তাব দিয়েছিলেন, মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নই আচার্য হোন।

আরও পড়তে পারেন:

তৃণমূলের শক্তিবৃদ্ধি পাহাড়ে, ঘাসফুলে যোগ বিনয় তামাং ও রোহিত শর্মার

কলকাতায় তাপমাত্রা থাকল চোদ্দোর নীচেই, তবে একের পর এক পশ্চিমী ঝঞ্ঝায় বছর শেষে স্তব্ধ হবে শীত

ফের কিছুটা কমল দৈনিক সংক্রমণ, কমল সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও

পশ্চিমবঙ্গের কোন পুরসভায় ভোট কবে, এক নজরে দেখে নিন

ওমিক্রন: উত্তরপ্রদেশের নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আর্জি জানাল এলাহাবাদ হাইকোর্ট

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন