child rights comission

কলকাতা: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ থাকলেও, তা মানা হচ্ছে না। পড়ুয়া ভর্তির ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক করে রাখা হচ্ছে বাবার নামও। অর্থাৎ কোনো মা যদি একমাত্র অভিভাবক হন তা হলে কোনো ভাবেই ভর্তির ফর্ম পূরণ করা যাচ্ছে না। শহরের বিভিন্ন কলেজ এবং স্কুলের ক্ষেত্রে এই সমস্যা দেখা দিয়েছে। এই ব্যাপারে এ বার নড়েচড়ে বসেছে রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশন।

শহরের বিভিন্ন নামী স্কুলের কাছে জবাবদিহি চেয়েছে কমিশন। কমিশনের চেয়ারপার্সন অন্যন্যা চট্টোপাধ্যায় চক্রবর্তী বলেন, “একটা স্কুলের বিরুদ্ধে এ রকম অভিযোগ পাওয়ার পরে আমরা এ ব্যাপারে তাদের জবাবদিহি করতে বলেছি। ভবিষ্যতে আরও স্কুলের দিকে নজর দেওয়া হবে।”

কমিশনের আধিকারিকদের মতে, মায়েরা যদি একমাত্র অভিভাবক হন, তা হলে তাঁর সমস্যা শুধুমাত্র ফর্ম ফিল-আপেই সীমাবদ্ধ থাকে না। যদি ফর্ম ফিল-আপে বিশেষ সমস্যার সৃষ্টি না হয়, তা হলে সমস্যা তৈরি হয় ভর্তির সময়ে। মায়েদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে অবাঞ্ছিত প্রশ্ন করা হয়। অনন্যাদেবী বলেন, “মা যদি একা অভিভাবক হন, তা হলে স্কুল কর্তৃপক্ষ তাঁকে অবাঞ্ছিত সব প্রশ্ন করেন, যেমন ‘কেন আপনি স্বামীর সঙ্গে থাকেন না’, ‘আপনি কি মনে করেন স্বামী ছাড়া আপনি ভালো থাকতে পারবেন’?”

অনেক ক্ষেত্রেই মায়েদের সাক্ষাৎকারের পরে স্কুল কর্তৃপক্ষ চিঠি পাঠিয়ে জানিয়ে দেয়, ‘ভর্তির মানদণ্ড পূরণ না হওয়ায় পড়ুয়াকে ভর্তি নেওয়া হল না।’ এই প্রসঙ্গে অনন্যাদেবী বলেন, “কেন পড়ুয়াদের ভর্তি নেওয়া হল না সে ব্যাপারে স্কুলগুলিকে প্রশ্ন করব আমরা।”

উল্লেখ্য, ২০১৫-এর ৬ জুলাই ঐতিহাসিক একটি রায়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল পড়ুয়া ভর্তির ক্ষেত্রে বাবার নাম উল্লেখ করা বাধ্যতামূলক নয়। কিন্তু তবুও সেই নির্দেশ অনেকেই পালন করে না। এই ব্যাপারে হেনস্থার শিকার হয়েছেন বিশিষ্ট চলচিত্র পরিচালক তথা ‘সিঙ্গল মাদার’ অনিন্দিতা সর্বাধিকারী। শহরের দু’টি বেসরকারি স্কুল তাঁর ছেলেকে ভর্তি নিতে চায়নি বলে অভিযোগ করেন অনিন্দিতা।

এখন শহরের বহু কলেজেই ভর্তির ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে সুপ্রিম কোর্টের সেই নির্দেশ পালন করা হচ্ছে না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here