তৃণমূল বিধায়ককে গুলি করে পরিকল্পনামাফিক খুন, যাচ্ছে সিআইডি

0
SatyaJit Biswas
সত্যজিৎ বিশ্বাস। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: শনিবার সরস্বতী পুজোর ভরসন্ধ্যায় গুলি করে খুন করা হয় নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসকে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন জেলা পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তারা। ঘটনা পরম্পরা দেখে তাঁরা এই খুনকে পরিকল্পনামাফিক বলেই মনে করছেন।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই অনুষ্ঠানে যে বিধায়ক যোগ দেবেন, সেটা আগেই থেকেই প্রচার হয়েছিল। তার উপর প্রতিবছরই স্থানীয় ফুলবাড়িতে ওই সরস্বতী পুজোর অনুষ্ঠানে যোগ দিতেন তিনি। ফলে  এ দিনও যে তিনি সেখানে যাবেন, সেটা দুষ্কৃতীরা খুব ভালো করেই জানত।

ঘটনাস্থল থেকে মিলেছে একটি আগ্নেয়াস্ত্র। ওই আগ্নেয়াস্ত্র দিয়েই সত্যজিৎবাবুকে খুন করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

পুলিশ প্রাথমিক ভাবে জানিয়েছে, পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে খুন করা হয়েছে বিধায়ককে। এমনকী তাঁর মত্যু হয়েছে কি না, তা নিশ্চিত করতে একাধিক বার তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়েছে।

একই সঙ্গে পুলিশকে ভাবাচ্ছে আরও একটি বিষয়। কী ভাবে অনুষ্ঠানে এত লোকের মাঝখান থেকে তাঁকে গুলি করে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে গেল, সেটাও যথেষ্ট রহস্যজনক!

আরও পড়ুন: সরস্বতী পুজোর অনুষ্ঠানে কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ককে গুলি করে খুন

এ দিন তৃণমূল কংগ্রেস মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “রাজ্যে যে উন্নয়ন চলছে, তাকে রুদ্ধ করার জন্য বিজেপি এ ধরনের ঘণ্য রাজনীতি করছে এ রাজ্যে। সত্যজিৎ স্থানীয় এলাকায় খুবই জনপ্রিয় এক জন নেতা ছিলেন। তাঁকে সরিয়ে দিয়ে বিজেপি নিজেদের কাজ হাসিল করতে চাইছে”।

এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কাউকে আটক বা গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি বলেই স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। তবে ঘটনার খবর পেয়ে সেখানে সিআইডির একটি দলও যাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। তারা নমুনা সংগ্রহ করতে পারে।

বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু এবিপি আনন্দকে জানান, “এই ঘটনার সঙ্গে বিজেপির কোনো সম্পর্ক নেই। প্রয়োজনে সিবিআই তদন্ত হোক”।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here