ভারতীকে কেন্দ্র করে দিলীপ-মুকুল দ্বন্দ্ব প্রকট!

0
Bharati Ghosh Mukul Roy dilip Ghosh
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের কাছ থেকে হিসেবের বেশি টাকা উদ্ধার নিয়ে বিজেপির রাজ্য দুই নেতা দিলীপ ঘোষ এবং মুকুল রায়ের দ্বিমত স্পষ্ট হয়ে গেল। ভোটের সময় এত টাকা প্রার্থীর সঙ্গে নিয়ে ঘোরা উচিত নয় বলে দিলীপবাবু প্রকারান্তরে বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছিলেন। কিন্তু শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক ডেকে মুকুলবাবু ‘ক্লিনচিট’ দেন ভারতীকে।

গত বৃহস্পতিবার রাতের ঘটনার পর এ দিন দলের কেন্দ্রীয় নেতা শিব প্রকাশের উপস্থিতিতে তড়িঘড়ি ভারতীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপবাবু। সংবাদ মাধ্যমের কাছে তিনি জানিয়েছেন, “আইন আইনের পথে চলবে। ভোটের সময় এত টাকা নিয়ে না-চলাই উচিত। এ ক্ষেত্রে নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ হয়”।

দিলীপবাবুর এহেন মন্তব্যের পরে রাজনৈতিক মহলের কাছে স্পষ্ট হয়ে যায়, পিংলার টাকা উদ্ধার কাণ্ডে ভারতীর পাশে নেই তিনি।

তবে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মুকুলবাবু জানান, “ভোটের সময় ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত সঙ্গে রাখা যায়। গাড়িতে চার জন ছিলেন। সেখান থেকে ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৮৯৫ টাকা পাওয়া গিয়েছে। এতে মোটেই অন্যায় কিছু নেই। অর্থাৎ তিনি বোঝাতে চান, এই ঘটনা মোটেই নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার আওতায় পড়ে না”।

একই সঙ্গে মুকুলবাবু বলেন, “শুধুমাত্র রাজনৈতিক ভয়ে ভীত হয়ে, ভারতীকে ভয় পেয়ে নির্বাচনের আগে তাঁর রাজনৈতিক কার্যকলাপ বন্ধ করতেই পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ এই কাজ করেছে”।

স্বাভাবিক ভাবেই ভারতীকে কেন্দ্র করে বিজেপির দুই রাজ্য নেতার ভিন্ন মতের বহি‌ঃপ্রকাশ ঘটে গেল কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানেই। যা শুনে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলও দাবি করছে, ভোটে জেতার জন্য বিজেপি কী কী করছে, তা আর চাপা থাকছে না।

এ দিন উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন, “ভোটের জন্য কোটি কোটি টাকা খরচ করছে বিজেপি। এ ভাবে টাকা বিলি করে বাংলায় ভোট হয় না। সব ধরে নেব”।

প্রসঙ্গত, কয়েক দিন আগেই কেশপুরে গিয়ে ভারতী বলেন, “উত্তরপ্রদেশ থেকে হাজার লোক নিয়ে এসে ঘরে ঢুকিয়ে দেব। বাড়ি থেকে বের করে এনে মারব”। সেই মন্তব্যও সংশোধন করেন দেন। তিনি বলেন, “এক দিক থেকে মার এলে পালটা মার পড়বেই। এর জন্য উত্তরপ্রদেশ থেকে লোক আনার দরকার নেই। এখানকার মানুষই জবাব দেবে”। আর এ বার তিনি প্রথম প্রতিক্রিয়াতেই প্রথম থেকেই মুকুল-ঘনিষ্ঠ ভারতীর কাজকে বিধি ভঙ্গের দিকেই ঠেলে দিলেন!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.