Mamata-Banerjee
বাঁকুড়ায় মুখ্যমন্ত্রী। নিজস্ব ছবি
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: বুধবার জেলার শালতোড়া নেতাজি সেন্টেনারি কলেজ মাঠে সরকারি জনসভা ও পরিষেবা প্রদান অনুষ্ঠানে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কন্যাশ্রী , সবুজশ্রী, পাট্টা বিলির সঙ্গেই এ দিন একশো দিনের কাজে মজুরির টাকা পাওয়ার সুবিধার্থে স্থানীয় কো- অপারেটিভ ব্যাঙ্কের মাধ্যমে লেনদেনের কথা ঘোষণা করেন তিনি। একই সঙ্গে বর্ধমান, বাঁকুড়া ও পুরুলিয়া জেলার ‘শিল্প সরণি’ তৈরির কথা বলেন। যা দুর্গাপুর, পানাগড়, বাঁকুড়া হয়ে পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরকে যুক্ত করবে। যার দু’পাশে অসংখ্য শিল্প কেন্দ্র গড়ে উঠবে। ফলে লক্ষ লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন।

Mamata-Banerjee

শালতোড়ায় সভামঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাঁকুড়ার ১৮৩টি, পুরুলিয়ার ৬৬টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও পুরুলিয়া জেলার ৮০টি প্রকল্পের শিলান্যাস এবং বাঁকুড়া জেলারও বেশ কিছু নতুন প্রকল্পের শিলান্যাস করেন। এ দিনের জনসভায় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী ইন্দ্রণীল সেন, শ্যামল সাঁতরা, বিভাবতী টুডু, জেলাশাসক (বাঁকুড়া) ডা. উমাশঙ্কর এস, পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও, সাংসদ সৌমিত্র খান, জেলার বিধায়ক-সহ জেলার অন্যান্য প্রশাসনিক আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন: “দুই পাশে দুই কলাগাছ, মাঝখানেতে যমরাজ”, পুরুলিয়ায় বললেন মমতা

সভামঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাম-বিজেপি-কংগ্রেসের তীব্র সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, এখানে তিনটি রাজনৈতিক দল আছে। নাম না করে সিপিএমের সমালোচনা করে বলেন, ”৩৪ বছর যাঁরা ক্ষমতায় ছিলেন, তাঁরা ধার করে মাকে বিক্রি করে দিয়ে গিয়েছেন, জঙ্গল মহলকে রক্তাক্ত করে দিয়ে গিয়েছেন, বেকার সংখ্যা বাড়িয়ে দিয়ে গিয়েছেন”। ‘বিজেপির সঙ্গে ঘর করছে’ বলে মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেন। মুখ্যমন্ত্রী আত্মবিশ্বাসের সুরে এ দিন বলেন, বাংলা থেকে যেমন বামফ্রন্ট বিদায় নিয়েছে, দেশ থেকেও বিজেপি বিদায় নেবে । শালতোড়া থেকে তিনি সরাসরি বাঁকুড়া শহরে রবীন্দ্র ভবনে প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here