Connect with us

রাজ্য

করোনাভাইরাস ঠেকাতে একগুচ্ছ পদক্ষেপ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় নবান্নে জরুরি বৈঠকে বসেন। তাঁর সঙ্গে যোগ দেন শহরের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা। বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশন বেড বাড়ানোর পাশাপাশি তিনি সমস্ত হাসপাতালকে নিয়ে একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরির নির্দেশ দেন।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, বেলেঘাটা আইডি-তে ১০০টি বেড বাড়ানো হয়েছে। একই সঙ্গে বেলেঘাটা আইডি-র আশেপাশে কয়েকটি বেসরকারি হাসপাতালকে আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরির নির্দেশ দেন তিনি।

রাজ্যে মাস্কের অভাব দেখা দেওয়ার খবরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। এ ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এখন ব্যবসা করার সময় নয়, মানুষের পাশে দাঁড়ান”।

আরজিকর হাসপাতালে আরও ৫০টি আইসোলেশন বেড বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। অন্য দিকে বাঙুর হাসপাতালেও ১৫০ আইসোলেশন বেড বাড়ানো হচ্ছে। তিনি বলেন, নার্সদের সুরক্ষায় ২ লক্ষ পোশাকের বরাত দেওয়া হয়েছে। ৩০০ ভেন্টিলেশন মেসিনের বরাত দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৭০টি হাসপাতালে পৌঁছে গিয়েছে। ২ লক্ষ গ্লাভস এবং ২ লক্ষ মাস্কের বরাত দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস (Coronavirus) সংক্রমণ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার প্রয়োজন নেই। দয়া করে গুজব ছড়াবেন না। এখন আমাদের একত্রিত ভাবে সতর্ক হতে হবে। কাউকে যাতে কোনো বিপদে পড়তে না হয়, তার জন্য পুলিশ-প্রশাসন সজাগ থাকবে।

এর আগেই রাজ্য গুজব ছড়িয়েছে, করোনা আতঙ্কে বাজার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এমনটাও গুজব ছড়ানো হচ্ছে, বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের জোগান নেই। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এ ধরনের গুজব যারা ছড়াবে, পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেবে। বাজার খোলা না থাকলে, খাব কী? সব কিছু পাওয়া যাবে। বাচ্চাদের মধ্যে সংক্রমণের সম্ভাবনা বেশি হওয়ায় স্কুল ছুটি দেওয়া হয়েছে। তাই বলে দোকান-বাজার বন্ধ থাকবে না। সীমান্ত সিল হলেও খাদ্যপণ্য যথেষ্ট মজুত রয়েছে”।

Meeting at Nabanna to review preparedness for containing coronavirus outbreak । করোনা ভাইরাসজনিত সংক্রমণ প্রতিরোধ করার জন্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থার পর্যালোচনা বৈঠক নবান্নে

Posted by Mamata Banerjee on Thursday, 19 March 2020

মুখ্যমন্ত্রী এ দিন ঘোষণা করেন, রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত ১০ লক্ষ কর্মীর প্রত্যেকের জন্য ৫ লক্ষ টাকা করে বিমা বরাদ্দ করা হয়েছে।

রাজ্য

পশ্চিমবঙ্গে বাড়ল কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা

তবে এর মধ্যে কলকাতা আর দুই ২৪ পরগণার ক্ষেত্রে কিছুটা স্বস্তির খবর রয়েছে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গত কয়েক দিন ধরেই পশ্চিমবঙ্গে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যার বাড়বাড়ন্ত কিছুটা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রথম দিকে রোগীবৃদ্ধির সংখ্যাটি পাঁচশো-ছ’শোর মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও, এখন তা পনেরোশোর কাছাকাছি বেড়েছে।

এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে যে কনটেনমেন্ট জোনের (Containment Zone) সংখ্যা বাড়তই তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ঠিক সেটাই হয়েছে। বর্তমানে রাজ্যে কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা ৫১৫।

গত বৃহস্পতিবার কনটেনমেন্ট জোনের তালিকা যখন প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল দেখা গিয়েছিল, সংখ্যাটা ৪৩৪। সেটাই এখন বেড়ে হয়েছে ৫১৫।

তবে এর মধ্যে কলকাতা আর দুই ২৪ পরগণার ক্ষেত্রে কিছুটা স্বস্তির খবর রয়েছে। দুই ২৪ পরগণায় কনটেনমেন্ট জোন বাড়েনি। তালিকায় যে এলাকাগুলিকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল, এখনও সেটাই আছে।

অন্য দিকে কলকাতায় প্রথমে ২৫টা কনটেনমেন্ট জোন থাকলেও, শুক্রবার সেটা বেড়ে ২৮ হয়। সোমবার পর্যন্ত তা আর বাড়েনি। অর্থাৎ ধরে নেওয়া যায়, এখনও পর্যন্ত কলকাতা, উত্তর আর দক্ষিণ ২৪ পরগণায় করোনা-আক্রান্তেরা কনটেনমেন্ট জোনে সীমাবদ্ধ রয়েছেন।

তবে আচমকা কনটেনমেন্ট জোন বেড়েছে হাওড়ায়। গত বৃহস্পতিবার হাওড়ার ৫৪টি এলাকাকে কনটেনমেন্ট হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। এখন সেটা বেড়ে ৮৪ হয়েছে।

গত কয়েক দিন ধরে হাওড়ায় গড়ে দেড়শো জন করে দৈনিক আক্রান্ত হচ্ছেন, যা কলকাতার থেকে অনেক কম। কিন্তু কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা বাড়ায়, সেখানে ভাইরাসটি অনেক বেশি করে ছড়িয়ে পড়ছে কি না, সেই চিন্তা শুরু হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় পূর্ব বর্ধমানে ৪৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে সে জেলাতেও কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা বেড়েছে। বর্তমানে সেখানে কনটেনমেন্ট জোন ৫২, যার প্রায় অধিকাংশই কাটোয়া ব্লকে। কালনা ব্লকেও কনটেনমেন্ট জোন রয়েছে। তুলনায় বর্ধমান পুরসভায় কনটেনমেন্ট জোন অনেক কম।

বৃহস্পতিবারের তালিকায় দেখা গিয়েছিল রাজ্যের তিন জেলায় কনটেনমেন্ট জোন নেই। এর মধ্যে পশ্চিম বর্ধমান আর ঝাড়গ্রামে এখনও কনটেনমেন্ট জোন না থাকলেও, কোচবিহারে তিনটে এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

অন্য দিকে শিলিগুড়িতে কনটেনমেন্ট জোনের পরিধি আরও বাড়ানো হয়েছে। গত কয়েক দিনে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় শহরের কয়েকটি বাজারও এখন কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।

Continue Reading

পুরুলিয়া

অযোধ্যা পাহাড়ে ফুটবল মাঠে বাজ পড়ে প্রাণ গেল ৩ জনের, জখম ৭

অযোধ্যা পাহাড়ে শিমূলবেড়িয়া গ্রামে চলছিল গ্রামীণ ফুটবল টুর্নামেন্ট।

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঘমুন্ডি: খেলার মাঠে বাজ পড়ে প্রাণ হারালেন তিন জন। আহত হলে সাত জন। সোমবার দুপুরে মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটেছে পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড়ে। এর পরিণতিতে বন্ধ হয়ে যায় খেলা।

সোমবার দুপুরে বাঘমুন্ডি ব্লকের অযোধ্যা পাহাড়ে শিমূলবেড়িয়া গ্রামে চলছিল গ্রামীণ ফুটবল টুর্নামেন্ট। বড়ো কোনো টুর্নামেন্ট নয়, নেহাতই গ্রামীণ আসর। নিয়মিতই এই আসর বসে। তাই মাঠে দর্শকের ভিড় তেমন ছিল না।

দুপুর ১টা নাগাদ মেঘ কালো করে জোর বৃষ্টি নামে। মাঠে দর্শক যাঁরা ছিলেন তাঁরা এ-দিক ও-দিক চলে যান। মাঠের এক পাশে এক গাছের তলায় শামিয়ানা টাঙানো মঞ্চ ছিল। মুষলধারে বৃষ্টি নামায় খেলোয়াড় ও আয়োজকরা প্রায় সবাই ওই শামিয়ানার তলায় আশ্রয় নেন।

আচমকা ঘটে যায় অঘটন। শামিয়ানার উপর বাজ পড়ে। তিন জন আগুনে ঝলসে মারা যান বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। আরও সাত জন জখম হয়েছেন। এঁদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

মৃতদের মধ্যে এক জন সিভিক ভলান্টিয়ার, তিনি বাঘমুন্ডি থানায় কর্মরত ছিলেন। ভালো ফুটবল খেলেন। এ দিন তাঁর ডিউটি অফ ছিল। সেই সুযোগে খেলতে এসেছিলেন। 

এই মর্মান্তিক ঘটনার পর গোটা অঞ্চলে শোকের ছায়া নেমে আসে। ঘটনার কথা শুনে শোকে বিহ্বল পুরুলিয়া। আয়োজকরাও শোকস্তব্ধ। আপাতত তাঁরা টুর্নামেন্ট বন্ধ করে দিয়েছেন।

Continue Reading

রাজ্য

মৃত্যুহার কমে ৩ শতাংশে, রাজ্যে নতুন আক্রান্তের সংখ্যাও কিছুটা কমল

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রবিবার এক দিনে ১৫৬০ জন রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। ২৪ ঘণ্টা পর সেই সংখ্যাটা বেশ কিছুটা কমল। আক্রান্ত হয়েছেন ১৪৩৫ জন। একই সঙ্গে রাজ্যে মৃত্যুহারে অনেকটা পতন লক্ষ করা গিয়েছে।

রাজ্যের করোনা-তথ্য

রাজ্যে বর্তমানে রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩১,৪৪৮। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৩২ জন সুস্থ হওয়ায় এখনও পর্যন্ত সুস্থ হলেন মোট ১৯,২১৩ জন। রাজ্যে নতুন করে ২৪ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৯৫৬ জন।

সুস্থতার হার রাজ্যে বর্তমানে রয়েছে ৬১.০৩ শতাংশ। অন্য দিকে মৃত্যুহার নেমে এসেছে মাত্র ৩.০৩ শতাংশে। এই প্রবণতা চলতে থাকলে রাজ্যে করোনার মৃত্যুহার আগামী দিনে আরও কমবে। রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১১,২৭৯।

কলকাতায় কমল, বাড়ল উত্তর ২৪ পরগণায়

কলকাতায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কমল। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪১৪ জন। যদিও এর ফলে শহরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দশ হাজার অতিক্রম করেছে, সুস্থতার হার যথেষ্ট ভালো হওয়ায় শহরে এখন সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৩,৭৯৫ জন।

তবে উত্তর ২৪ পরগণায় আক্রান্তের সংখ্যা একটু বেড়েছে। এ দিন নতুন করে ৩৬৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর ফলে এই জেলায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯৯২। তবে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২,৬৯০।

হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগণা আর হাওড়ায় যথাক্রমে এ দিন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪, ৯৫ আর ১৬৮ জন।

পূর্ব বর্ধমানে উদ্বেগ বাড়ল

দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলার মধ্যে পূর্ব বর্ধমানে আক্রান্তের সংখ্যায় উদ্বেগজনক বৃদ্ধি দেখা গেল। কারণ এক দিনেই এই জেলায় আক্রান্ত হলেন ৪৯ জন, এখনও পর্যন্ত এই জেলার ক্ষেত্রে যা সর্বোচ্চ।

এ ছাড়া পশ্চিম মেদিনীপুরে ২১, পূর্ব মেদিনীপুরে ১৮ আর পশ্চিম বর্ধমানে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ জন। পাশাপাশি মুর্শিদাবাদে ২০ আর নদিয়ায় ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

বাঁকুড়া, পুরুলিয়া আর বীরভূমে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যায় উদ্বেগজনক কোনো বৃদ্ধি আসেনি। করোনামুক্ত থাকার রেকর্ডটি এখনও অক্ষত রয়েছে ঝাড়গ্রামের।

উত্তরবঙ্গে কারও মৃত্যু নেই, তবে চিন্তা বাড়ছে শিলিগুড়িকে ঘিরে

গত ২৪ ঘণ্টায় উত্তরবঙ্গের কোনো জেলাতেই করোনায় মৃত্যু হয়নি কারও। তবে শিলিগুড়ি নিয়ে চিন্তা ক্রমশ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দার্জিলিং জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৩ জন। এর প্রায় বেশির ভাগই শিলিগুড়ির বাসিন্দা। এই জেলায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪৫।

অন্য দিকে ৫৬ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় মালদায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১২১১। তবে এর মধ্যে এই জেলায় ৮০৪ জনই সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। দার্জিলিংয়ে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫৮৭ জন।

আলিপুরদুয়ার আর কালিম্পং বাদে বাকি জেলাগুলোতে নতুন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেলেও, সেটা উদ্বেগজনক কিছু নয়।

নমুনা পরীক্ষার তথ্য

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ১০ হাজারের কিছু বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মোট ৬ লক্ষ ২৭ হাজার ৪৩৮টি নমুনা পরীক্ষা হল। রাজ্যে এখন প্রতি দশ লক্ষ মানুষে ৬,৯৭২ জনের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে।

Continue Reading
Advertisement

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা5 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা7 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

নজরে