চিকিৎসকদের কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান মুখ্যমন্ত্রীর

0

কলকাতা: এনআরএস-কাণ্ডের জট খুলতে শনিবার সন্ধ্যায় নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিন তিনি চিকিৎসকদের কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান।

সাংবাদিক বৈঠকের শুরুতেই তিনি বলেন, “ওদের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলাম। ফোনে কথা না-বলে আমাকে অসম্মানও করা হয়েছে। যা আমি আপনাদের বলিনি। এসএসকেএম হাসপাতালে জরুরি বিভাগ চালু রয়েছে কি না, আমি দেখতে গিয়েছিলাম। সেখানে আমাকে ধাক্কা দেওয়া হয়েছে। আমি কোনো কথা না বলে হেঁটে যাচ্ছিলাম। আমাকে ধাক্কা দেওয়া হয়। অশ্রাব্য ভাষায় কথা বলা হয়। তবুও আমি কিছু বলিনি। আমি শুধুই অপেক্ষা করছি। শুক্রবার আসতে পারেনি। গতকাল আমি পাঁচ ঘণ্টা অপেক্ষা করেছিলাম। শনিবার বিকেল পাঁচটাতেও আসেনি। কোনো আবেদনেই কাজ হয়নি”।

চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে জট খুলতে সমস্ত উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে দাবি করে মমতা বলেন, “প্রবীণ চিকিৎসকরাও উদ্যোগ নিয়েছেন। কিন্তু কারো কথা আন্দোলনকারীরা শোনেননি। সরকার কারও সঙ্গে কোনো দুর্ব্যবহার করেনি। পরিষেবা অব্যাহত রাখার জন্য সমস্ত চেষ্টাই করে গিয়েছে”।

এর পরই দেশের বিভিন্ন রাজ্যে চিকিৎসকদের ধর্মঘটের তালিকা তুলে ধরেন মমতা। জরুরি পরিষেবা চালু রাখার আইনের বিষয়টি তিনি তুলে ধরে জানান কোন রাজ্যে কী ভাবে চিকিৎসকদের ধর্মঘট ভাঙতে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল। তিনি বলেন, “কারো বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। আমরা কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি, কারোর রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হয়নি। আমি পুলিশকে বলে দিয়েছি, আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেবে না”।

রাজ্যের হাজার হাজার মানুষের কথা ভেবে কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মমতা বলেন, “ফলে যাঁরা জুনিয়র ডাক্তার, যাঁরা ইন্টার্ন সবার কাছে অনুরোধ করব, কথা বলার দরজা সব সময় খোলা রয়েছে। সংবিধান মেনে সরকার তৈরি হয়। সরকার যেখানে কথা বলতে চেয়ে ডাকছে, সেখানেও বলে দেওয়া হচ্ছে যাব না। পুলিশ থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট সমস্ত আধিকারিকদের পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তাঁরা কথা বলেননি”।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.