kolkata winter

কলকাতা: দুপুর বারোটায় কলকাতায় সোয়েটার-জ্যাকেট পরতে সচরাচর কাউকে দেখা যায় না। এই ছবিটাই দেখা গেল মঙ্গলবার। মেঘ, কুয়াশা এবং হাওয়ার দাপটে শীতল দিন অনুভূত হল দক্ষিণবঙ্গে। দিনের তাপমাত্রা ২২ ডিগ্রির বেশি উঠতেই পারল না।

কলকাতায় এ দিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা চার ডিগ্রি কম। দক্ষিণবঙ্গের বাকি অঞ্চলেও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২১ থেকে ২৩ ডিগ্রির মধ্যেই। যার ফলে সারা দিন অনুভূত হয়েছে শীত।

‘শীতল দিন’ আর ‘শীতলতম দিন’ কিন্তু এক জিনিস নয়। আবহাওয়ার পরিভাষায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যখন মরশুমের সব থেকে কম রেকর্ড করা হয় তখন সেই পরিস্থিতিকে বলে ‘শীতলতম দিন।’ অন্য দিকে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা যখন স্বাভাবিকের অনেক কম রেকর্ড করা হয়, সেই পরিস্থিতিকে বলে ‘শীতল’ দিন বলে।

মঙ্গলবার কিন্তু কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে বেশ কিছুটা বেশিই রেকর্ড করা হয়েছে। কলকাতার এ দিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা এক ডিগ্রি বেশি। মঙ্গলবার সকাল থেকে কুয়াশা দাপট দেখানো শুরু করে কলকাতায়। এই কুয়াশার জন্যই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেশি বাড়তে পারেনি। আবার এই কুয়াশার জন্যই দিনের তাপমাত্রা বাড়তে পারেনি।

হঠাৎ করে এই কুয়াশার কারণ কী?

বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা বলেন, “পশ্চিমাঞ্চলে মেঘের একটা আস্তরণ তৈরি হওয়ায় উত্তুরে হাওয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছে। এই সুযোগে কলকাতা এবং সন্নিহিত অঞ্চলে কিছু জলীয় বাষ্প ঢুকতে শুরু করেছে। এর জন্যই এই কুয়াশা।”

রবীন্দ্রবাবুর মতে বুধবারও কলকাতার আবহাওয়া এ রকমই থাকবে। বৃহস্পতিবার থেকে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। তবে উত্তর ভারতে একটি পশ্চিমি ঝঞ্ঝা থাকার ফলে এখনই জব্বর ঠান্ডা পড়ার কোনো সম্ভাবনা নেই দক্ষিণবঙ্গে। কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করবে ১৫-১৬ ডিগ্রিতেই। এই সপ্তাহের শেষের দিকে তাপমাত্রা বারো-তেরো ডিগ্রিতে নামতে পারে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here