নিজস্ব সংবাদদাতা, জলপাইগুড়ি: রিসর্টের ঘর থেকে বেরোতেই প্রবল ঠান্ডায় হাড়হিম হয়ে গেল অমলবাবুর। শীতের আমেজ উপভোগ করতে সপরিবার ডুয়ার্সে বেড়াতে এসেছেন বর্ধমানের অমল সেনগুপ্ত। উঠেছেন গরুমারা জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন লাটাগুড়ির একটি রিসর্টে। শুক্রবার সকালে জঙ্গল সাফারির জন্য বের হতে গিয়ে এই ‘হাড় কাঁপানো’ অভিজ্ঞতার সন্মুখীন হন তিনি।

জলপাইগুড়ি-সহ গোটা উত্তরবঙ্গেই জাঁকিয়ে পড়েছে শীত। উত্তর ভারত থেকে বয়ে আসা কনকনে ঠান্ডা হাওয়ার হাত ধরে পারদ নেমেছে সমগ্র উত্তরবঙ্গে। আবহাওয়া দফতরের তথ্য অনু্যায়ী শুক্রবার জলপাইগুড়ির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৬.২ ডিগ্রি, স্বাভাবিকের চেয়ে ৪ ডিগ্রি কম। একই অবস্থা শিলিগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারেও। এ দিন শিলিগুড়িতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৪.৭ ডিগ্রি, আলিপুরদুয়ারে ৫ ডিগ্রি আর কোচবিহারে ৫.৫ ডিগ্রি। দার্জিলিঙের পারদ ঘোরাফেরা করছে শূন্য থেকে এক ডিগ্রির আশেপাশে। ডুয়ার্সের বনাঞ্চল ছিল কুয়াশায় ঢাকা। জলপাইগুড়ির কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের আধিকারিক দেবপ্রিয় রায় জানিয়েছেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টা শীতের এই দাপট চলবে।

তবে এই ঠান্ডাকে চুটিয়ে উপভোগ করেছেন পর্যটকেরা। জঙ্গল সাফারি থেকে শুরু করে চড়ুইভাতি, কিছুই বাদ নেই। ঠান্ডার এই ‘দাদাগিরি’-তে খুশি পর্যটনের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীরা। লাটাগুড়ি রিসর্ট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক দিব্যেন্দু দাস জানিয়েছেন, দেশি-বিদেশি পর্যটকেরা এই আবহাওয়ার টানেই আরও বেশি করে ভিড় জমাবেন উত্তরবঙ্গের পাহাড়ে জঙ্গলে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here