polling booth

কলকাতা: জেলায় জেলায় একগুচ্ছ বিশেষ নির্দেশ পাঠাল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। আগামী ১৪ মে পঞ্চায়েত সুষ্ঠু পঞ্চায়েত নির্বাচনের তাগিদে এই সমস্ত নির্দেশগুলি অক্ষরে অক্ষরে পালন করার কথা জানানো হয়েছে জেলা প্রশাসনকে। এগুলির মধ্যে রাজনৈতিক দলের এজেন্ট বিহীন বুথগুলিতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থার নির্দেশ বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য।

রাজনৈতিক দলের বুথ ক্যাম্প

ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের ২০০ মিটারের বাইরে যে কোনো রাজনৈতিক দল বুথ ক্যাম্প করতে পারবে। কিন্তু ওই ক্যাম্পে একটি টেবিল এবং দু’টি চেয়ারের বেশি অন্য কোনো সরঞ্জাম থাকবে না। এমনকী ভোটার তালিকা (ওই নির্দিষ্ট বুথের) এবং সাদা কাগজের স্লিপ ছাড়া রাজনৈতিক দলের প্রতীক-সহ প্রার্থীর পরিচয় বহন করে এমন কোনো কাগজ বা অন্য সরঞ্জাম সেখানে রাখা চলবে না। একটি বুথ ক্যাম্পে দু’জন প্রতিনিধি বসতে পারেন। যদি ওই ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে একাধিক বুথ থাকে তা হলে সর্বাধিক তিন জনকে অনুমতি দেওয়া যেতে পারে।

মোবাইলের ব্যবহার

বুথের মধ্যে এক মাত্র প্রিসাইডিং অফিসার ছাড়া অন্য কেই মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বকেই এ ব্যাপারে সচেতন হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোনো ভোটারও মোবাইল ফোন নিয়ে বুথের ১০০ মিটারের মধ্যে প্রবেশ করতে পারবেন না। যদি ভুল করে কোনো ভোটার মোবাইল -সহ বুথে চলে যান তা হলে ১০০ মিটার দূরে কোনো পরিচিতের কাছে সেই মোবাইল জমা রাখতে হবে। নিয়ম অমান্য করলে মোবাইল সিজ করার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন।

পোলিং এজেন্ট না থাকলে

কমিশনের এই নির্দেশটি যথেষ্ট অর্থবহ। প্রায়শই দেখা যায়, বিরোধী দলের পোলিং এজেন্টরা অভিযোগ করে থাকেন, শাসক দলের প্রতিনিধি তাঁদের বুথে বসতে দিচ্ছেন না। কমিশন নির্বাচনী আধিকারিকদের নির্দেশ দিয়েছে, কোনো বুথে যদি রাজনৈতিক দলের এজেন্ট না থাকেন, তা হলে সেই বুথে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থার আয়োজন করতে হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here