bankura heavy rains
রাস্তা ভেঙে দিয়ে বইছে গন্ধেশ্বরী। নিজস্ব চিত্র
indrani
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: ‘রুখাশুখা’ বাঁকুড়ার বুক চিরে কয়েক বছর আগেই তৈরি হয়েছিল রাস্তা। প্রধানমন্ত্রী গ্রামসড়ক যোজনায় তৈরি এই রাস্তাটি বাঁকুড়া ২ নম্বর ব্লকের কাঁটাবনী গ্রামকে শহর বাঁকুড়ার অনেকটাই কাছে এনে দিয়েছিল। কিন্তু বাঁকুড়ার এই ‘রুখাশুখা’ তকমার অন্তর্জলি ঘটিয়ে গন্ধেশ্বরীর করাল গ্রাসে ভেসে গেল জুনবেদিয়া-চামকরা ভায়া কাঁটাবনী রাস্তাটি।

বাঁকুড়া শহরের সঙ্গে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম এই রাস্তাটি ভেঙে পড়ায় চরম সমস্যায় কাঁটাবন, বাঘাতাপল, লাপুড়া, মানকানালী, জামকরা-সহ বেশ কিছু গ্রামের মানুষ। এই ঘটনার পর যোগাযোগ ব্যবস্থা কার্যত বিচ্ছিন্ন। স্কুল যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি ভেসে যাওয়ায় সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়ছে এলাকার পড়ুযারা।

আরও পড়ুন রাজ্যসভায় ডেপুটি চেয়ারম্যানের পদে প্রার্থী মনোনয়ন কংগ্রেসের, সম্ভাবনা রয়েছে জয়ের

এ দিকে শুধু রাস্তাই নয়, মাত্র একরাতের বৃষ্টিতে মাথায় হাত উঠেছে কৃষিপ্রধান এই গ্রামের মানুষদের। চাষের মরসুমে রাস্তার দু’দিকের অধিকাংশ ধানজমির ধান আদৌ ঘরে তুলতে পারবেন কিনা সেই নিয়ে চিন্তা। বন্যার জলের তোড়ে রাস্তা ভেঙে সমস্ত পলি এখন ওই জমিতেই। ওই জমিতে অতিরিক্ত মাটি সরিয়ে কী ভাবে চাষযোগ্য করতে তোলা যাবে সেটাই ভেবে পাচ্ছেন না এলাকার চাষিরা। এর জন্য সরকারি সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন ওই চাষিরা। স্থানীয় বাসিন্দা ধনপতি বাউরী বলেন, “খুব খারাপ অবস্থার মধ্যে আছি। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বাঁকুড়া শহরের সঙ্গে। ছেলেমেয়েরা স্কুলে যেতে পারছে না, পানীয় জলের সমস্যা হচ্ছে।” যদিও এই রাস্তা দ্রুত তৈরি করে দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন বিডিও।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here