helenur rahaman, the complainant

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি: প্রাইমারি স্কুলে চাকরি দেওয়ার নামে দশ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগ। অভিযুক্তদের মধ্যে তিন জন শিক্ষক। জড়িয়ে গিয়েছে এক প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার ছেলের নামও। জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করলেন হেলেনুর বেগম নামে প্রতারিত এক মহিলা।

অভিযোগকারিণী হেলেনুর বেগম কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধার বাসিন্দা। তিনি জানিয়েছেন, দূর সম্পর্কের এক আত্মীয়, প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক জিয়াউর রহমান গত বছর তাঁকে জানিয়েছিলেন প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকপদে ১০ জনকে চাকরি দেওয়ার ‘ক্ষমতা’ তাঁর রয়েছে। সেই সময় শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিও বেরিয়েছিল সরকারি ভাবে। হেলেনুর বেগম নিজেও টেট পরীক্ষা দিয়েছিলেন। জিয়াউর তাঁকে জানিয়েছিলেন, মোটা টাকা খরচ করলে চাকরি হতে পারে। নিজের প্রভাব বোঝাতে জিয়াউর জলপাইগুড়ির বেশ কয়েক জন প্রথম সারির তৃণমূল নেতার নাম নিয়ে জানিয়েছিলেন, তাঁদের সঙ্গে ‘দহরম-মহরম’ আছে তাঁর। এর পর মিন্টু মহম্মদ এবং রাহুল দেবনাথ নামে আরও দু’ জনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন জিয়াউর। তাঁরা দু’জনও শিক্ষক। পাশাপাশি রাহুল দেবনাথ জেলা তৃণমূলের সহ-সভাপতি দুলাল দেবনাথের ছেলে।

হেলেনুর বেগম জানিয়েছেন, ওই তিন জন তাঁকে জানিয়েছিলেন আরও যদি দু’ জন চাকরির জন্য টাকা দেয় তবে তিন জনের এক সঙ্গে কম টাকায় চাকরি হয়ে যাবে। এর পরেই এলাকার সায়না খাতুন এবং আবদুল মজিদ নামে আরও দু’ জনের সঙ্গে যোগাযোগ করেন হেলেনুর। তিন জনে মিলে মোট দশ লক্ষ টাকা দিতে রাজি হন। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি এবং জুলাই মাসে দু’ দফায় অভিযোগকারিণী মহিলা হেলেনুর বেগম তিন লক্ষ এবং বাকি দু’ জন সাত লক্ষ টাকা দেন বলে দাবি। কিন্তু চাকরি না পাওয়ায় পরবর্তীতে টাকা ফেরত চাওয়া হয়। তখন থেকেই নানা ভাবে হুমকি দিচ্ছেন অভিযুক্তরা বলে অভিযোগ। শুক্রবার এর বিহিত চেয়ে কোতোয়ালি থানায় ওই তিন জন সহ মোট চার জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন হেলেনুর। থানায় অভিযোগ দায়ের করার সময়ও হেলেনুর বেগমের কাছে একটি হুমকি ফোন আসে।

এ দিকে এই বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত জিয়াউর রহমান এবং রাহুল দেবনাথ পুরো বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। রাহুল দেবনাথ জানিয়েছেন, ওই মহিলাকে তিনি চেনেনই না। তাঁর বক্তব্য, বাবা দুলাল দেবনাথ তৃণমূল নেতা হওয়ায় তাঁকে এবং দলকে কালিমালিপ্ত করতে রাজনৈতিক চক্রান্ত করা হচ্ছে। অভিযোগকারিণীর বিরুদ্ধে তিনি পালটা মানহানির মামলা করার হুমকি দিয়েছেন।

ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে, জানিয়েছেন কোতোয়ালির আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here