আচমকা মমতার প্রস্তাবে সুর বদল অধীরের!

0
Mamata Banerjee and adhir Ranjan Chowdhury
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

নয়াদিল্লি: লোকসভায় কংগ্রেসের নতুন দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী বৃহস্পতিবার বার বলেন, বিজেপির বিরুদ্ধে এক সঙ্গে লড়াইয়ের যে ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তার “সিরিয়াসনেস” নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বামফ্রন্ট-কংগ্রেসের উদ্দেশে এক সঙ্গে আসা দরকার বক্তব্য নিয়ে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে, গত বুধবার বিধানসভায় গিয়ে বাংলায় বিজেপিকে রুখতে বাম-কংগ্রেসকে পাশে চেয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার বিধানসভার অধিবেশনে মমতা বলেন, “আমাদের এখন জয়েন্টলি আসা দরকার”। যদিও তৃণমূলের তরফে এমন সংবাদকে ভুল ব্যাখ্যা হিসাবে সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধে তোপ দাগা হয়েছে। এর পরই দিল্লিতে অধীরবাবুর মন্তব্যও বেশ ইঙ্গিতবাহী।

অধীরবাবু এ দিন বলেন, “মানুষ মুখে বলে থাকেন এক কথা, আর কার্যক্ষেত্রে সেখান থেকে পিছিয়ে যান। তিনি (মমতা) যদি এ বিষয়ে (বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে) সত্যিই ‘সিরিয়াস’ হন, তা হলে তিনি আমার দলের উচ্চ নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনায় বসতে পারেন। বিজেপি এখন বাংলায় যে ভাবে বাড়ছে, তার জন্য দায়ী মমতার ব্যর্থতা”।

প্রসঙ্গত, এ দিন পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় তৃণমূল দাবি করে, মমতার বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা পরিবেশন করেছে সংবাদ মাধ্যম। এ ব্যাপারে মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ‘প্রিভিলেজ মোশন’ আনার কথা ঘোষণা করেন। অন্য এক মন্ত্রী তাপস রায় ‘পয়েন্ট অব ইনফরমেশন‘ নিয়ে আসেন। সব মিলিয়ে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিধানসভা। এর মাঝে অধীরবাবুর মন্তব্য নতুন ইন্ধন জোগাল বইকী!

তবে “জোটবার্তা” প্রসঙ্গে সিপিএম নেতা মহম্মদ সেলিম টুইটারে লিখেছেন, “কংগ্রেস কী করবে জানি না, কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক কেরিয়ার রক্ষা করার কোনো দায় সিপিএমের নেই। বিজেপির বিরুদ্ধে লড়ার যে ডাক তিনি দিয়েছেন, সেটারও নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন তিনি। ফ্যাসিস্ট শক্তিকে হারানোর ব্যাপারে কোনো বিশ্বাসযোগ্যতা নেই তাদের।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here