নয়া কৃষি আইন রুখতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি কংগ্রেসের

0
mamata banerjee and sonia gandhi
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সোনিয়া গান্ধী। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: কৃষিক্ষেত্রের সংস্কার সংক্রান্ত নয়া তিনটি আইন রুখতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখলেন কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য। নতুন তিনটি আইন যাতে রাজ্য সরকার পশ্চিমবঙ্গে লাগু না করে, সেই আর্জি জানিয়েই মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা।

অভূতপূর্ব নাটকীয়তার মধ্যে দিয়েই সংসদের বাদল অধিবেশনে পাশ হয়েছে বিল তিনটি। গত রবিবার সেগুলি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সম্মতি পাওয়ার পর আইনে পরিণত হয়েছে। কিন্তু নয়া আইনে কৃষক স্বার্থে ঘা পড়তে পারে অভিযোগ তুলে দেশজোড়া প্রতিবাদ চলছে এখনও।

বিলগুলিতে রাষ্ট্রপতির সম্মতি মেলার কয়েকঘণ্টার মধ্যেই মহারাষ্ট্রের জোট সরকারের অন্যতম শরিক কংগ্রেস জানিয়ে দেয়, সে রাজ্যে নতুন তিনটি আইন কার্যকর করা হবে না। জোট সরকারের রাজস্বমন্ত্রী বালাসাহেব থোরাট বলেন, “মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার বিলগুলি কার্যকর করবে না”।

অন্য দিকে কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী দেশের কংগ্রেস শাসিত রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের নির্দেশ দেন, নতুন আইন যাতে ওই রাজ্যগুলিতে লাগু না করা হয়, সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে। সংবিধানের ২৫৪(২) ধারা অনুযায়ী, কেন্দ্রের আইন রাজ্যে বলবৎ না করার বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া যায়। ওই ধারার অধীনে, কেন্দ্রের কোনো আইন রুখতে রাজ্যগুলি পাল্টা আইন পাশ করিয়ে নিতে পারে বিধানসভায়।

নয়া তিন কৃষি আইন

সংসদের বাদল অধিবেশনে ‘অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সংশোধনী’, ‘কৃষি পণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন’ এবং ‘কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি’ সংক্রান্ত তিনটি বিল পেশ করেছিল কেন্দ্র। সংসদের বাইরে-ভিতরে বিক্ষোভের মাঝেই সেই বিলগুলি পাশ হয়ে যায়।

বিলগুলি নিয়ে দেশের একাধিক রাজ্যের কৃষকেরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। তাঁদের অভিযোগ, এই বিলকে হাতিয়ার করেই ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ছেঁটে ফেলা হবে। তবে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর তরফে সেই অভিযোগ নস্যাৎ করা হয়েছে।

রাজ্যের শাসকদলের অবস্থান

সংসদে কৃষি বিলগুলি রুখতে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিল তৃণমূল। রাজ্যসভায় পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে তৃণমূল সাংসদদের সাসপেন্ড পর্যন্ত হতে হয়। কৃষি বিলের প্রতিবাদে শিরোমণি অকালি দল বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগ করলে তাদের সমর্থন জানায় পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল।

কৃষি বিলের প্রতিবাদে রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তৃণমূল। গত মঙ্গলবার মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভ-অবস্থান করে মহিলা তৃণমূল কর্মীরা। পাশাপাশি দলের তরফে গোটা রাজ্য জুড়েই একাধিক কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। 

মঙ্গলবার শিলিগুড়িতে প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকে যোগ দিয়ে নয়া কৃষি আইনের তীব্র সমালোচনা করেন মমতা। তিনি বলেন, “এই কৃষি আইনের জেরে শেষ হয়ে যাবে কৃষকদের জীবন। কৃষকরা যে ফসল উৎপাদন করবেন, তা তাঁরা নিজেরাই খেতে পারবেন না। এ সব বিষয়ে কৃষকদের ভালো করে বোঝাতে হবে”।

কংগ্রেসের পদক্ষেপ

গত সোমবার কংগ্রেস শাসিত রাজ্যগুলির উদ্দেশে নয়া কৃষি আইনের প্রতিবাদকে আরও তীব্র করার ইঙ্গিত দেন সনিয়া গান্ধী।

কৃষি আইন নাকচ করতে কংগ্রেস শাসিত রাজ্যগুলিকে আইন প্রণয়নের চিন্তা-ভাবনা করতে আহ্বান জানান তিনি। সে ক্ষেত্রে সংবিধানের ২৫৪(২) ধারার আওতায় কৃষি আইন রুখতে রাজ্যগুলিকে আইন পাশের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখার আহ্বান জানিয়েছেন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন