মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতা: রাষ্ট্রপতি সম্পর্কে রাজ্যের মন্ত্রী অখিল গিরির কুরুচিকর মন্তব্যে তোলপাড় রাজ্য। পথে নেমেছে বিজেপি। দায়ের হয়েছে অভিযোগ। সোমবার এই ইস্যুতেই মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সাফ বার্তা মমতার

এ দিন নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতার সাফ বার্তা, “অখিল গিরির রাষ্ট্রপতিকে অবমানকর মন্তব্য করা ঠিক হয়নি। রাষ্ট্রপতিকে আমরা সম্মান করি। অন্যায় করেছে অখিল গিরি, দল থেকে সতর্ক করা হয়েছে তাঁকে। আমার বিধায়কের তরফে আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। ভবিষ্যতে এই ধরনের মন্তব্য যেন না করা হয়। ভবিষ্যতে এই ধরনের মন্তব্য করলে দল ব্যবস্থা নেবে”।

এ প্রসঙ্গেই তিনি আরও বলেন, “বীরবাহা তো আদিবাসী পরিবারের মেয়ে। একটা সাংস্কৃতিক পরিবারের মেয়ে। তাঁকে যদি কেউ বলে জুতোর নীচে রেখে দেওয়ার মতো, সেটা কি রুচিকর? কাউকে দাঁড় কাক বলা কি ঠিক? অন্যায় মন্তব্য সমর্থন করি না”।

চেহারা নিয়ে কুকথা প্রসঙ্গে মমতা বলেন, “মানুষের ভিতরটা সুন্দর হওয়া উচিত। মনের ভিতরটা সুন্দর হওয়া জরুরি। কেউ অন্যায় করলে সমর্থন করি না। বিজেপি শুধু বাংলার বদনাম করছে। কিমভুত কিমাকার শব্দ ডিকশনারির মধ্যে পড়ে, খারাপ কথা মুখ দিয়ে বেরোলে প্রত্যাহার করে নিই”।

কী বলেছিলেন অখিল

শুক্রবার নন্দীগ্রামে এক সভায় বিরোধীদের আক্রমণ করতে গিয়েই রাষ্ট্রপতির বাহ্যিক রূপ নিয়ে মন্তব্য করেন অখিল। একটি ভিডিয়োতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, “আমরা রূপের বিচার করি না। তোমার রাষ্ট্রপতির চেয়ারকে আমরা সম্মান করি। কিন্তু তোমার রাষ্ট্রপতি কেমন দেখতে বাবা?”

তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে দুঃখপ্রকাশ করে অখিল বলেন, “রাষ্ট্রপতি মহোদায়াকে আমি কোনো অসম্মান করিনি। তাঁর প্রতি আমার অগাধ শ্রদ্ধা রয়েছে। যে কথা আমার মুখ থেকে বেরিয়েছে, তা ক্রোধের বশে বেরিয়ে এসেছে। আমি অনুতপ্ত।” মন্ত্রী আরও বলেন, “আদিবাসীদের আমি আঘাত করিনি। আদিবাসী সমাজ যদি আঘাত পেয়ে থাকে, তা হলে আমি দুঃখিত”।

উল্লেখ্য, এর আগে অখিল গিরিকে কটাক্ষ করে শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন, ‘দাঁত ফোকলা হাফ মন্ত্রী। কাকের মতো দেখতে। এসব লোকের কথার উত্তর দিই না।’ সেই পরিপ্রেক্ষিতেই অখিল গিরির এই মন্তব্য বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। অন্য দিকে, একজন মন্ত্রী হয়ে দেশের সাংবিধানিক প্রধানকে অসম্মান করা হয়েছে বলে অখিল গিরির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। দায়ের হয়েছে অভিযোগ। তাঁর পদত্যাগের দাবিতে সরবও হয়েছে বিজেপি। এমনকী প্রথম থেকেই তাঁর মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে তৃণমূলও।

আরও পড়ুন: দেড় লক্ষ শিক্ষক নিয়োগ করেছে রাজ্য… ভুল হলে শুধরে নিতে হবে, স্মার্টফোন বিতরণ অনুষ্ঠানে বললেন মমতা

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন