দুই ধৃত

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়নগর: এ বার গণধর্ষণের ঘটনা ঘটল জয়নগরে। কলকাতা থেকে কাজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার হলেন এক গৃহবধূ। ঘটনায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে জয়নগর থানার বহড়ু স্টেশন সংলগ্ন উত্তরপাড়া নিজ এলাকায়। ধর্ষিতার অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার দুই যুবককে এ দিন আদালতে তোলা হয়।

প্রতিদিনের মতো গত মঙ্গলবারও শিয়ালদহ থেকে রাত সাড়ে আটটার কাকদ্বীপ লোকালে বাড়ি ফিরছিলেন ওই গৃহবধূ ও তাঁর এক সহকর্মী। কিন্তু এ দিন টেন গন্ডগোল থাকায় বহড়ুতে ট্রেন ঢুকতে বেশ কিছুটা দেরি হয়।

ধর্ষিতা ওই গৃহবধূর বাড়ি মথুরাপুর থানা এলাকায়। অনেক রাত হয়ে যাওয়ায় সহকর্মী মহিলাটির বাড়িতে যাওয়ার জন্য বহড়ু স্টেশনে নামেন তাঁরা। তার পরে যাওয়ার কোনো গাড়ি না পেয়ে পায়ে হেঁটে উত্তরপাড়া এলাকায় বাড়ির দিকে রওনা দেন।

স্টেশন রেলগেট পেরিয়ে কিছুটা গেলে অন্ধকার রাস্তায় পথ আটকায় তিন জন অপরিচিত যুবক। তখন ওই সহকর্মী মহিলাটি যুবকদের হাত থেকে পালাতে পারলেও গৃহবধূটি রেহাই পাননি। তাঁকে পাশের সবেদা বাগানে তুলে নিয়ে গিয়ে পাশবিক অত্যাচার চালায় ওই তিন যুবক। গণধর্ষণের শিকার হন ওই গৃহবধূ।

এরই মধ্যে ওই গৃহবধূর সহকর্মী মহিলাটি গ্রামের লোকজনকে ডেকে আনে কিন্তু ততক্ষণে ওই তিন যুবক পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা খোঁজাখুঁজি করে উত্তরপাড়া নিজ এলাকার একটি সবেদা বাগান থেকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করে ওই ধর্ষিতা গৃহবধূকে। তাঁকে সেখান থেকে স্থানীয় পদ্মেরহাট গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় ও পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

ধর্ষিতা গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে জয়নগর থানার পুলিশ উত্তরপাড়ার বাসিন্দা সাইফুল (রাজেশ) খাঁ ও শাহিল হালদারকে গ্রেফতার করে। তাদেরকে জেরা করে রইজউদ্দিন লস্কর নামে আরও একজনের নাম পায় পুলিশ। কিন্তু সে পলাতক। তার খোঁজ চলছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

[ আরও পড়ুন: বাগনানে সিআরপিএফ ক্যাম্পে কেন্দ্রীয় বাহিনীর এক জওয়ানের গুলিতে মৃত্যু সহকর্মীর ]

ধৃত দু’জনকে এ দিন বারুইপুর মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক ৮ মে পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here