দিল্লি-মুম্বইয়ে সংক্রমণ কমার ইঙ্গিত, কিছুদিনের মধ্যে সেই পথ অনুসরণ করতে পারে কলকাতাও

0

নয়াদিল্লি: করোনা সংক্রমণ কমতে শুরু করেছে দিল্লি এবং মুম্বইয়ে। জুন মাসের চতুর্থ সপ্তাহে সংক্রমণ যে শিখর ছুঁয়েছিল, তার পর থেকে দুই শহরেই তা কমতে শুরু করেছে। মনে করা হচ্ছে একই পথ অনুসরণ করতে পারে কলকাতাও। আপাতত এই শহরে সংক্রমণের গতি ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও আগামী সপ্তাহ থেকে সংক্রমণের ফের লাগাম পড়তে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মুম্বইয়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭৮ জন। যত সংখ্যক টেস্ট হয়েছিল, তার বিপরীতে শুক্রবার মুম্বইয়ে সংক্রমণের হার ছিল ৭.৮ শতাংশ। উল্লেখ্য, এর একদিন আগেই শহরে আক্রান্ত হয়েছিলেন বারোশোর বেশি মানুষ। সংক্রমণের হার ছিল ৯.৯ শতাংশ।

উল্লেখ্য, জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই মুম্বইয়ে সংক্রমণের হার ১০ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়। মাঝে তা কুড়ি শতাংশের দোরগোড়ায় পৌঁছে গিয়েছিল। গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার, অর্থাৎ ২৪ জুন মুম্বইয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন ২ হাজার ৪৭৯ জন। সেই তুলনায় মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যেই মুম্বইয়ে সংক্রমণে অনেকটাই লাগাম পড়েছে।

অন্যদিকে, দিল্লিতেও সংক্রমণ কমছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১৩ জন। গত ২৩ জুন রাজধানীতে সংক্রমণ ছিল ১ হাজার ৯৩৪ জন। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে দিল্লিতেও সংক্রমণে কিছুটা লাগাম পড়েছে। গত সপ্তাহে ৯ থেকে ১০ শতাংশের মধ্যে ঘোরাঘুরি করতে থাকা সংক্রমণের হার এখন নেমে এসেছে ৪-৫ শতাংশে।

এই ছবি দেখেই মনে করা হচ্ছে যে অচিরেই কলকাতাতেও সংক্রমণ কমবে। গত ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১ হাজার ৭৩৯ জন। এর মধ্যে কলকাতায় সংক্রমণ ছিল ৬৭৩। রাজ্যে সংক্রমণের হার ১৫ শতাংশ ছুঁয়েছে। কিন্তু কলকাতায় সংক্রমণের হার প্রায় ৩০ শতাংশ।

তবে এটা ছোট্ট পরিবর্তন ইতিমধ্যেই এসে গিয়েছে। এক সপ্তাহ আগেও রাজ্যের নতুন সংক্রমণের ৫০ শতাংশই হচ্ছিল কলকাতায়। অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গে সাড়ে ছ’শো আক্রান্ত হলে সাড়ে তিনশো হচ্ছিলেন শুধু কলকাতাতেই। কিন্তু এখন কলকাতার ভাগ করে ৩৮ শতাংশ হয়েছে। অর্থাৎ কলকাতায় সংক্রমণ চূড়ার কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে, এটা ভাবাই যেতে পারে।

আরও পড়তে পারেন

যত বৃষ্টি পশ্চিমাঞ্চলে, কলকাতার দুর্ভাগ্য চলছেই

শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউতকে ১০ ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করল ইডি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন