নমুনা পরীক্ষা। প্রতীকী ছবি: ইন্ডিয়া ডট কম থেকে

কলকাতা পশ্চিমবঙ্গের সামগ্রিক করোনা সংক্রমণ গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে কিছুটা কমেছে। গত সপ্তাহের এই সময়ই দিনে তিন হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছিলেন। বর্তমানে হচ্ছেন আড়াই হাজারের কাছাকাছি। কমেছে সংক্রমণের হারও।

কিন্তু কলকাতা থেকে দূরদূরান্তের জেলাগুলিতে সংক্রমণ এখন ঊর্ধ্বগামী। কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে পরিস্থিতি ক্রমশ ভালো হচ্ছে। সংক্রমণের দাপট ক্রমশ কমে চলেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯৬ জন। এই সংক্রমণের সংখ্যাটি গত ৭ জুলাইয়ের তুলনায় ৫২ শতাংশ কম। ওই দিন কলকাতায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ৮২৫, যা চলতি সংক্রমণের চূড়া ছিল শহরে। নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কিন্তু কমেনি। মানে, ৭ জুলাই যত সংখ্যক পরীক্ষা হয়েছিল, বৃহস্পতিবারও তাই হয়েছে।

কলকাতার পাশাপাশি উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগণাতেও সংক্রমণ নিম্নগামী। গত সপ্তাহে উত্তরে দৈনিক সংক্রমণ সাড়ে সাতশোর কাছাকাছি চলে গিয়েছিল, যেটা এখন নেমে এসেছে ৩৯৯-তে। দক্ষিণে দিন দশেক আগে সংক্রমণ দুশো পেরিয়ে গিয়েছিল। বর্তমানে সেই সংক্রমণ ৯৯ থেকে একশোর মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। হাওড়া-হুগ্লিতেও সংক্রমণ কমছে।

তবে বর্তমানে তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি সংক্রমণ রেকর্ড করা হচ্ছে বীরভূমে। এই জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮১ জন, যা চলতি স্ফীতিতে সর্বোচ্চ। পাশাপাশি জলপাইগুড়ি (১৩৬) এবং দক্ষিণ দিনাজপুরে (১০২) সংক্রমণ অনেকটাই বেশি।

আবার তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে পর্যটকদের পা বেশি পড়া পূর্ব মেদিনীপুরে সংক্রমণ অদ্ভুত ভাবে কম। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৬ জন। চলতি স্ফীতিতে এই জেলায় সংক্রমণ একদিনও ৫০ পেরোয়নি। ফলে এটা বোঝাই যায় যে সংক্রমণ বাড়ার জন্য পর্যটন কোনো ভাবেই দায়ী নয়।

আরও পড়তে পারেন

৮ হাজার কোটি টাকার বুন্দেলখন্দ এক্সপ্রেসওয়েতে ধস, গত সপ্তাহেই উদ্বোধন করেন মোদী

আচমকা থেকে আচমকা সরে গিয়েছিল তৃণমূলই, পাল্টা অভিযোগ কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের

পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির বিধায়ক ৭০ কিন্তু দ্রৌপদী পেয়েছেন ৭১ জনের ভোট, ক্রস ভোটিং করল কে?

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন