তৃণমূলের মুখপত্রে কলম ধরেছিলেন অজন্তা বিশ্বাস। সংগৃহীত ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: তৃণমূলের মুখপত্র ‘জাগো বাংলা’য় কলম ধরেছিলেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং প্রয়াত সিপিএম নেতা অনিল বিশ্বাসের কন্যা অজন্তা বিশ্বাস। এই ঘটনার জেরেই তাঁকে সাসপেন্ড করল সিপিএম।

দলের অঞ্চল কমিটির সদস্য হয়েও তৃণমূলের মুখপত্রে লেখার জন্য অজন্তাকে ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল সিপিএমে। তাঁকে তিন মাসের জন্য সাসপেন্ড করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল জেলা কমিটির কাছে। শুক্রবার সেই প্রস্তাবেই সিলমোহর পড়ল।

তৃণমূলের মুখপত্র ‘জাগো বাংলা’য় ‘বঙ্গ রাজনীতিতে নারীশক্তি’ শীর্ষক উত্তর সম্পাদকীয়তে একাধিক কিস্তিতে কলম ধরেছিলেন অজন্তা। প্রথম কিস্তি প্রকাশিত হওয়ার পরই চর্চায় উঠে আসেন অজন্তা।

প্রসঙ্গত, ওই উত্তর সম্পাদকীয়তে স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় থেকে শুরু করে শুরু করে আজকের রাজনীতিতে নারীদের ভূমিকা নিয়ে নিজের মতামত প্রকাশ করেন অজন্তা। ওই লেখায় কল্যাণী দাস, সুরমা দাসদের নামের পাশাপাশি উঠে আসে তৃণমূলনেত্রী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামও।

একটি কিস্তিতে তিনি তৃণমূলনেত্রী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘ইতিহাসের সেরা বাঙালি মহিলা রাজনীতিবিদ’বলেও উল্লেখ করেন। যা নিয়েও ব্যাপক শোরগোল পড়ে যায়।

শেষ কিস্তিটি প্রকাশের পর দলের এরিয়া কমিটির সদস্য অজন্তাকে শোকজ করে সিপিএম। নিজের জবাবও দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তা মনঃপুত হয়নি সিপিএম নেতৃত্বের। যে কারণে তাঁকে এ দিন থেকে তিন মাসের জন্য সাসপেন্ড করা হল।

এ দিকে, সিপিএমের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ। তিনি টুইটারে লেখেন, “…শাস্তি দিয়ে মন পাওয়া যায় না কমরেড। শূন্য থেকে মহাশূন্যের পথে”।

খবর অনলাইন-এ আজকের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য খবর পড়ুন নীচে:

কাবুলে অপহৃত ১৫০ ভারতীয়, দাবি অস্বীকার তালিবানের

করোনার নতুন সংক্রমণ, মৃতের সংখ্যা অনেকটাই কমল শনিবার

কাবুল থেকে আমেরিকার নাগরিকদের ফেরানো সহজ নয়, মানলেন জো বাইডেন

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন