Subrata Mukherjee

কলকাতা: “গত বৃহস্পতিবার রাজ্য সরকারের সংশোধিত পুর আইন নিয়ে মামলা করলে বামেরাই হারবে”। শুক্রবার শহিদ মিনারে গুরু নানকের জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এমনটাই দাবি করলেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ইস্তফা দেওয়ার দিনেই গত বৃহস্পতিবার রাজ্যের পুর আইন সংশোধন করেছে সরকার। যে আইনে লোকসভা বা বিধানসভার মতোই কাউন্সিলার নন, এমন ব্যক্তিকেও মেয়রপদে বসানোর যাবতীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সংশোধিত পুর আইনকেই হাতিয়ার করেই মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে দলীয় ভাবে কলকাতার মেয়র মনোনীত করেছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিধানসভায় পুর আইন সংশোধনের বিল পাশ করাতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি শাসক দল তৃণমূলকে। এক দিকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অন্য দিকে বিজেপিও সমর্থন করেছে বিল। কিন্তু সিপিএমের তরফে ওই নতুন বিল নিয়ে আপত্তির কথা জানানো হয়েছে। প্রাক্তন পুরমন্ত্রী তথা শিলিগুড়ি পুরসভার মেয়র অশোক ভট্টাচার্য আদালতে যাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন ওই দিনই। এর পরে সিপিএমের তরফে নির্দিষ্ট ভাবে দাবি করা হয়, তারা পুর আইন সংশোধনের নতুন বিলের বাতিলের দাবিতে হাইকোর্টে যাবে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে বলেও সিপিএম সূত্রে খবর। কিন্তু ঠিক কী কারণে সিপিএম আদালত পর্যন্ত দৌড়াতে চাইছে?

বলা হচ্ছে, এ ভাবে মনোনয়নের মাধ্যমে মেয়রপদে কাউকে বসানো যায় না। মেয়রপদের দায়িত্ব বর্তায় নির্বাচনের মাধ্যমে। তা ছাড়া পুর আইন সংশোধন শুধু মাত্র বিধানসভায় করালেই চলে না। সে ব্যাপারে রাষ্ট্রপতির অনুমোদনও প্রয়োজন।

আরও পড়ুন: আগামী ছ’মাসের মধ্যে দেশ থেকে গায়েব হয়ে যাবে ৬ কোটির বেশি মোবাইল সিমকার্ড

যদিও সিপিএমের এমন দাবিকে কার্যত নস্যাৎ করে দিলেন রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তিনি শুক্রবার শহিদ মিনারে গুরু নানকের জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। সেখানেই তিনি জানান, “সংশোধিত পুর আইন নিয়ে আদালতে মামলা করলে বামেরাই হারবে”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here