কলকাতা: কলকাতার মাঠে ফের মৃত্যু হল ক্রিকেটারের। পাইকপাড়ার পর এ বার ময়দান। অনুশীলন চলাকালীন মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়লেন উঠতি ক্রিকেটার সোনু যাদব।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ ময়দানে অনুশীলন ম্যাচ খেলছিলেন বালিগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাবের ক্রিকেটাররা। সেই দলে ছিলেন একবালপুরের বাসিন্দা সোনুও। অনুশীলন শেষে শারীরিক অসুস্থতা বোধ করেন সোনু। সতীর্থরা তাঁকে ক্লাব তাঁবুর ছায়ায় বিশ্রাম নিতে বলেন। কিন্তু, তার পরেও তাঁর শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হতে থাকে। অসুস্থতা বাড়তে থাকলে ক্লাবের কর্মকর্তারা সোনুকে নিয়ে যান সিএবি-র মেডিক্যাল ইউনিটে। সতীর্থরা জানিয়েছেন, মাঠে গাড়ি না থাকায় বাইকে করে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় সিএবিতে।

সোনুর মৃত্যুর জন্য ক্লাব কর্তৃপক্ষের গাফিলতিকেই দায়ী করছেন তাঁর সতীর্থরা। এক ক্রিকেটারের কথায় “মাঠে কোনো ধরনের প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা ছিল না। সিএবিতে নিয়ে যাওয়ার পরে সেখান থেকে অ্যাম্বুল্যান্স পাওয়া যায়। তার পর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় সোনুকে।” প্রথমেই হাসপাতালে নিয়ে গেলে হয়তো বাঁচানো সম্ভব হত ২২ বছরের সোনুকে। তবে এখনও ক্লাব কর্তৃপক্ষের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

 

উল্লেখ্য, গত ১৯ জানুয়ারিও এক উঠতি ক্রিকেটারকে হারিয়েছিল কলকাতা ময়দান। সে বার পাইকপাড়ার মাঠে দৌড়ে রান নিতে গিয়ে পড়ে মারা যান পশ্চিম মেদিনীপুরের অনিকেত শর্মা। ক্রিকেটারদের এ ভাবে মৃত্যুর ঘটনা যে কলকাতার ময়দানের পক্ষে খুব আশাব্যঞ্জক ব্যাপার নয়, তা তো বলাই বাহুল্য।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here