Connect with us

রাজ্য

ফণী লাইভ: বড়োসড়ো ক্ষয়ক্ষতি এড়িয়েই রাজ্য থেকে বিদায় ফণীর

Published

on

ওয়েবডেস্ক: ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। প্রথমে ওড়িশা হয়ে এই ঝড় আছড়ে পড়বে পশ্চিমবঙ্গে। ঝড়ের রোষ থেকে রেহাই পাবে না খোদ কলকাতাও। ফণীর গতিপ্রকৃতি সংক্রান্ত যাবতীয় খবরাখবর আমরা, মানে খবর অনলাইন আপনাদের দিয়ে যাব। আমাদের অনুরোধ, অযথা আতঙ্কিত হবেন না, কোনোরকম গুজবে কান দেবেন না।

ফণীর যাবতীয় আপডেট দেখতে চোখ রাখুন এখানে-

Loading videos...

========================================

৪ মে শুক্রবার সকাল সাড়ে আটটা

বড়োসড়ো ক্ষয়ক্ষতি এড়িয়েই রাজ্য ছেড়ে বাংলাদেশে পাড়ি দিল দুর্বল হয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় ফণী। শুক্রবার রাত ১টার পর কলকাতায় ফণীর প্রভাব পড়তে শুরু করে। কিন্তু ততক্ষণে তার দাপট অনেকটাই কমে গিয়েছে। হাওয়ার সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৭৫ কিমি। যদিও দিঘা এবং সংলগ্ন পূর্ব মেদিনীপুরে ঝড়ের তীব্রতা অনেকটাই বেশি ছিল। আসলে পুরীতে আছড়ে পড়ার পর দীর্ঘক্ষণ স্থলভাগে থাকার ফলে ক্রমশ গতিবেগ কমে আসে ফণীর।

এই মুহূর্তে ফণীর কেন্দ্রের অবস্থান বাংলাদেশে। যদিও তার বাইরের অংশটির বেশ কিছুটাই রাজ্যের ওপরে রয়েছে। ফলে এখনও কলকাতায় দমকা হাওয়া চলছে। দুপুর পর্যন্ত রাজ্যে ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি থাকতে পারে। দুপুরের পর ক্রমশ পরিষ্কার হবে আবহাওয়া। তবে ফণী কি রাজ্যে অন্য কোনো বিপদ নিয়ে এল? কিছুক্ষণের মধ্যে আমরা সেই রিপোর্ট নিয়ে আসব। দেখতে থাকুন খবর অনলাইন।

৩ মে শুক্রবার রাত ১:৩০

কলকাতায় প্রভাব ফেলা শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। এই মুহূর্তে মহানগরীতে জোর বৃষ্টির সঙ্গে ঘণ্টায় ৫৫ থেকে ৬০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া দিচ্ছে। সময়ে যত এগোবে হাওয়ার গতিবেগ আরও কিছুটা বাড়তে পারে।

৩ মে শুক্রবার রাত ১:০০

ফণী ঢুকে পড়েছে বাংলায়। এই মুহূর্তে তার অবস্থান খড়গপুরের ওপরে। তবে ঝড়ের গতিবেগ অনেকটাই কম, ঘণ্টায় ৯০ থেকে ১০০ কিমি। এর পর সেই ঝড় উত্তরপূর্বের দিকে এগোবে। ইতিমধ্যেই ফণীর দাপটে রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে। বর্ধমান, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, মেদিনীপুর প্রভৃতি জায়গায় প্রবল বৃষ্টি। কলকাতাতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি সঙ্গে হালকা ঝোড়ো হাওয়া দিচ্ছে।

৩ মে শুক্রবার রাত ১২:০০

এখনও বাংলায় পুরোপুরি ঢোকেনি ফনী। ফনীর বাইরের অঞ্চলটি রাজ্যে ঢুকে গেলেও ঝড়ের কেন্দ্র এখন বাংলা-ওড়িশা সীমান্তের বারিপদায়। তবে ঘূর্ণিঝড় শক্তি কমাচ্ছে। খড়গপুর দিয়ে রাজ্যে ঢোকার সময়ে ঝড়ের গতিবেগ থাকতে পারে ৯০ কিমি। তবে মাঝরাতে কলকাতার কাছ দিয়ে ফণী গেলে তখন বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ৭০ কিমি।

৩ মে শুক্রবার রাত ১০:০০

দিঘা দিয়ে বাংলায় আছড়ে পড়ল তীব্র ঘূর্ণিঝড় ফণীর ‘ডানা;। এই মুহূর্তে দিঘায় প্রবল ঝড় হচ্ছে। ঘণ্টায় ফণীর সর্বোচ্চ গতিবেগ ১০০ কিমি। তবে ঝড় যত এগোবে তত বাড়বে হাওয়ার গতিবেগ। ক্ষয়ক্ষতির কোনো খবর পাওয়া যাচ্ছে না।

৩ মে শুক্রবার রাত ৮:৫০

বাংলার দিকে ক্রমশ এগিয়ে আসছে ফণী। এই মুহূর্তে দিঘা থেকে তার অবস্থান মাত্র ৬০ কিমি এবং কলকাতা থেকে দূরত্ব ২০০ কিমি। এই মুহূর্তে কলকাতার প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে বইছে ঝোড়ো হাওয়া।

৩ মে শুক্রবার রাত ৮:০০

আর কিছুক্ষণের মধ্যে রাজ্যে ঢুকে পড়বে ফণী। ইতিমধ্যেই উপকূলবর্তী অঞ্চলে প্রবল ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি হচ্ছে। কলকাতাতেও হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হচ্ছে। কিছুক্ষণের মধ্যে বৃষ্টির দাপট বাড়বে। ফণী বাংলায় ঢুকবে দিঘার উত্তরপশ্চিম দিয়ে, অর্থাৎ তার অভিঘাত ঝাড়গ্রামের কাছাকাছি থাকতে পারে। এর পর খড়গপুর, বিষ্ণুপুর, আরামবাগ, বর্ধমান, কাটোয়া, বেলডাঙা হয়ে ফণী ঢুকবে বাংলাদেশের ওপরে। এই জায়গাগুলি দিয়ে ফণীর চোখ অর্থাৎ ‘eye of the cyclone’ যাবে। এই সব জায়গায় ১০০ কিমি রেডিয়াসের জায়গাগুলিতে ফণীর ভালো প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা।

৩ মে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭:০০

দিঘা থেকে ১২০ এবং কলকাতা থেকে ২৪৫ কিমি দূরে রয়েছে ফণী।

৩ মে শুক্রবার বিকেল ৫:৪৫

পুরী আছড়ে পড়ার পর ফণী ক্রমশ দুর্বল হয়ে গেলেও, আবার শক্তিসঞ্চয় করছে ফণী। সর্বশেষ পাওয়া খবরে, ফণী অবস্থান করছে বালেশ্বরের কাছাকাছি। সেখানে স্থলভাগ দিয়ে না এসে আবার সমুদ্রে ঢুকে গিয়েছে সে। সাগরে ঢুকে যাওয়ার পর, আবার কিছুটা শক্তি বাড়ানোর ইঙ্গিত। কিছুক্ষণ পর থেকেই ফণীর দাপট টের পাবে উপকূলবর্তী পূর্ব মেদিনীপুর এবং সংলগ্ন পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম। হাওয়ার সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১২০ থেকে ১৪০ কিমি। রাত দুটো থেকে চারটের মধ্যে কলকাতায় প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা সব থেকে বেশি। তখন তার গতিবেগ পৌঁছতে পারে ১২৫ কিমিতে। এ ছাড়াও ভালো প্রভাব পড়তে পারে বাঁকুড়া, পূর্ব বর্ধমান, হুগলি, হাওড়া, নদিয়া এবং উত্তর ২৪ পরগনায়। দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলিতে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি এবং উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।

৩ মে শুক্রবার বিকেল ৩টে

ঘূর্ণিঝড় ফণীর দাপটে ওড়িশায় মৃত্যু হল ৬ জনের। পুরী, ভুবনেশ্বরে তাণ্ডব চালিয়ে ফণী এবার এগোচ্ছে বাংলার দিকে। এই মুহূর্তে কলকাতা থেকে ৩৭০ কিমি দক্ষিণপশ্চিমে রয়েছে ফণী। শুক্রবার বিকেল থেকেই ফণীর প্রভাব টের পাবে বাংলা। রাত থেকে ঝড়ের দাপট বাড়বে কলকাতায়।

৩ মে শুক্রবার দুপুর ১২:৪৫

পুরী ছাড়িয়ে বেশ কিছুটা এগোতেই কিছুটা দুর্বল হয়েছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। এই মুহূর্তে চরম প্রবল ঘূর্ণিঝড় থেকে সে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হয়েছে। আগামী ছ’ঘণ্টার মধ্যে সে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে শক্তিক্ষয় করবে। ততক্ষণে তার অবস্থান বলে বাংলা-ওড়িশা সীমান্তে। ফলে ফণী যত এগোবে, রাজ্যে আবহাওয়া আরও প্রতিকূল হবে। এ দিকে ফণীর প্রভাব পড়তে শুরু করে দিয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরে। সেখানে বেশ কিছু গাছ পড়ে গিয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

৩ মে শুক্রবার দুপুর ১২টা

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের সর্বশেষ আপডেটে বলা হল, এই মুহূর্তে ফণীর অবস্থান দিঘা থেকে ৩৮০ এবং কলকাতা থেকে ৪৩৫ কিমি দক্ষিণপশ্চিমে। ক্রমে সেটি রাজ্যের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। শুক্রবার গভীর রাতের পর থেকে ফণীর প্রভাব টের পারে দক্ষিণবঙ্গ। পশ্চিমবঙ্গের জন্য চরম সতর্কতা জারি কড়া হয়েছে।

সংবাদসংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, দিঘায় অবস্থিত এনডিআরএফের বিশেষ দল তাজপুর থেকে ১৩২ জনকে উদ্ধার করে সাইক্লোন শেল্টারে স্থানান্তরিত করেছে। এ দিকে ফণীর কথা মাথায় রেখে আজ বিকেল ৩টে থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে কলকাতা বিমানবন্দরের পরিষেবা। আগে ঠিক ছিল রাত সাড়ে ন’টা থেকে বন্ধ করে দেওয়া হবে। আপাতত কাল সকাল ৮টা পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ভুবনেশ্বরের বর্তমান পরিস্থিতি

৩ মে শুক্রবার সকাল ১০:৪৫

ফণী যত পশ্চিমবঙ্গের দিকে এগোচ্ছে ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টির দাপটও বাড়ছে রাজ্যে। এই মুহূর্তে কলকাতায় প্রবল বৃষ্টি। মাঝেমধ্যে হাওয়ার গতিবেগ ঘণ্টায় ৫০ কিমি ছাড়াচ্ছে।

৩ মে শুক্রবার সকাল ১০:১৫

পুরীতে আছড়ে পড়ে রাজ্যের দিকে এগিয়ে আসছে ফণী। ইতিমধ্যেই কলকাতায় শুরু হয়েছে বৃষ্টি। সময় যত এগোবে তত বাড়বে বৃষ্টির দাপট।

৩ মে শুক্রবার সকাল ৯:৪৫

সর্বশেষ খবর। পুরীতে তাণ্ডব চালাচ্ছে ফণী। উপকূলের সব জেলাই ক্ষতিগ্রস্ত। এ বার ফণী এগোবে উপকুল বরাবর।

৩ মে শুক্রবার সকাল ৯:৩০

সকাল ন’টায় পুরীতে সরকারি ভাবে আছড়ে পড়েছে ফণী। এর পর পুরীতে আরও তিন ঘণ্টা তাণ্ডব চালিয়ে ক্রমে পশ্চিমবঙ্গের দিকে এগোবে ফণী। ইতিমধ্যেই রাজ্যের উপকূলবর্তী অঞ্চলে শুরু হয়েছে ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কলকাতআয় শুরু হয়ে যাবে বর্ষণ।

৩ মে শুক্রবার সকাল ৮:৩০

গতি বাড়িয়ে সময়ের আগেই পুরীতে আছড়ে পড়ল ফণী। আবহাওয়া দফতরের সর্বশেষ বুলেটিন বলছে পরবর্তী তিন ঘণ্টায় উপকূলে পুরোপুরি ঢুকে পড়বে ফণী। এই মুহূর্তে ফণীর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে পুরীতে।

৩ মে শুক্রবার সকাল ৮:০০

একটা সময়ে তার গতিবেগ পেরিয়ে গিয়েছিল ঘণ্টায় ২৫০ কিমির ওপরে। সেখান থেকে কিছুটা কমে পুরী উপকূলে আছড়ে পড়ার দিকে আরও কিছুটা এগিয়ে গেল ঘূর্ণিঝড় ফণী। এই মুহূর্তে ফণীর অবস্থান পুরী থেকে ৮০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিম এবং কলকাতা থেকে ৩৭০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিমে।

তবে ফণীর গতিপথ নিয়ে শুক্রবার ভোরে আবহাওয়া দফতর যে নতুন পূর্বাভাস দিয়েছে, তাতে দক্ষিণবঙ্গে ফণীর দাপট কিছুটা কম হওয়ার ইঙ্গিত রয়েছে। এখানে বলা হয়েছে ফণী রাজ্যে ঢুকবে প্রবল ঘূর্ণিঝড় হিসেবে, অর্থাৎ তার গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ কিমি মত। কলকাতায় এলে তার গতিবেগ আরও কিছুটা কমতে পারে। তবে এতে স্বস্তি পাওয়ার এখনও কিছু হয়নি। কারণ ক্ষয়ক্ষতি কতটা এড়ানো সম্ভব সে প্রশ্ন থেকেই যায়। পাশাপাশি বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা অবশ্য বলছে, দক্ষিণবঙ্গে ঘণ্টায় ১২০ থেকে ১৫০ কিমি বেগে ঝড় হতে পারে।

২ মে, বৃহস্পতিবার রাত ১২:০০

শক্তি বাড়াতে বাড়াতে চরম জায়গায় পৌঁছে গিয়েছে ফণী। বিভিন্ন বিদেশি আবহাওয়া সংস্থা এবং বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থার মতে, ইতিমধ্যে ফণীর গতিবেগ ছাড়িয়ে গিয়েছে ২৫০ কিমি। কুড়ি বছর আগে ওড়িশার সেই সুপার সাইক্লোন আছড়ে পড়েছিল ২৬০ কিমি গতিবেগে। অর্থাৎ কুড়ি বছরে ফণী ভয়ংকরতম ঘূর্ণিঝড় হতে চলেছে।

তবে শুক্রবার দুপুর নাগাদ পুরীর কাছে আছড়ে পড়ার সময়ে গতিবেগ কিছুটা কমতে পারে। তার পর তার দক্ষিণবঙ্গের দিকে আসার কথা। বর্তমান পরিস্থিতির বিচারে, ফণীর প্রভাবে রাজ্যের উপকূলবর্তী অঞ্চলের থেকে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে। ফণীর সরাসরি অভিমুখ রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, হুগলি, পূর্ব বর্ধমান, নদিয়ার দিকে। বীরভূম, মুরসিদাবাদেও ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে। তবে এই মুহূর্তে মনে হচ্ছে কলকাতার ৮০ কিমি উত্তরপশ্চিম দিয়ে বয়ে যেতে পারে ফণী।

২ মে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৮:৪৫

সুপার সাইক্লোনের তকমা পেতে চলেছে ফণী। কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর এখনও ফণীকে সুপার সাইক্লোন হিসেবে ঘোষণা না করলেও, বেশ কিছু বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা এবং বিদেশি আবহাওয়া সংস্থা ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে, অতীতের অনেক ঘূর্ণিঝড়ের রেকর্ড ছাড়িয়ে গিয়েছে ফণী। ওয়েদার আল্টিমার মতে, এই মুহূর্তে ফণীর মধ্যে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ২৪০ কিমি এবং সর্বোচ্চ গতিবেগ পৌঁছে যাচ্ছে ৩০০ কিমির কাছাকাছি। তবে আশার কথা একটাই, উপকূলে পৌঁছে কিছুটা দুর্বল হতে পারে এই ঘূর্ণিঝড়।

২ মে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭:৪৫

শক্তি বাড়িয়ে উপকূলের আরও কাছাকাছি এসেছে ফণী। বর্তমানে তার গতিবেগ ঘণ্টায় ২২০ কিমি। তবে কিছুটা স্বস্তির কথা পুরীতে আছড়ে পড়ার সময়ে কিছুটা শক্তিক্ষয় হবে তার। এই মুহূর্তে ফণীর অবস্থান পুরী থেকে ২৫০ এবং কলকাতা থেকে ৫১০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিমে। ঘূর্ণিঝড়ের কথা মাথায় রেখে আজ রাত থেকে ২৪ ঘণ্টার জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ভুবনেশ্বর বিমানবন্দর। অন্যদিকে কলকাতা বিমানবন্দরের পরিষেবাও বন্ধ করা হচ্ছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ন’টা থেকে শনিবার সন্ধ্যা ছ’টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে পরিষেবা।

২ মে, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটে

মেঘ ঢোকাচ্ছে ফণী। আর তার জেরেই কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে শুরু হয়েছে বৃষ্টি।

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের সর্বশেষ বুলেটিন অনুযায়ী, এই মুহূর্তে ফণীর অবস্থান- পুরী থেকে ৩৬০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিম এবং দিঘা থেকে ৫৫০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিমে।

ভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা।

সর্বশেষ বুলেটিন অনুযায়ী শুক্রবার রাজ্যের দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চলে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হবে। শনিবার ভারী থেকে অতিভারী, এমনকি কোথাও কোথাও চরম অতিভারী বৃষ্টিও হতে পারে।

২ মে, বৃহস্পতিবার দুপুর ২:৪৫

ফণীর জন্য আগাম ছুটি ঘোষণা রাজ্যের স্কুলগুলিতে। সরকারি এবং সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলগুলিতে এগিয়ে এল গরমের ছুটি। সিবিএসই এবং আইসিএসই স্কুলগুলিতে শুক্রবার এবং শনিবার ছুটি দিয়ে দেওয়ার অনুরোধ।

২ মে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১:৪৫

শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ফণীর দাপট থাকবে খাস কলকাতার ওপরে। ঝড়ের গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিমির মধ্যে। এই কারণেই বিশেষ নির্দেশিকা জারি করেছে কলকাতা পুরসভা।

**** শহরের রাস্তায় থাকা সমস্ত হোর্ডিং খুলে ফেলার জন্য বিজ্ঞাপন সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা পুরসভা।

**** বিপজ্জনক বাড়ির বাসিন্দাদের অনত্র সরানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

**** রাস্তায় বিদ্যুৎবাহী তার যাতে পড়ে না থাকে, সেই দিকে কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছে।

**** পুরসভার সমস্ত কর্মীর ছুটি আপাতত বাতিল করা হয়েছে। বোরো অফিসগুলিকে শনিবার ও রবিবার খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

২ মে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা

ওড়িশার উপকূলবর্তী অঞ্চলগুলি থেকে ৮ লক্ষ্য মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মত ৮৭৯টি সাইক্লোন শেল্টারে তাঁদের রাখা হয়েছে।

২ মে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২:০০

আরও কিছুটা এগিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। এই মুহূর্তে তার অবস্থান পুরী থেকে ৪২০ এবং দিঘা থেকে ৬১০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিমে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজ্যের সৈকত শহরগুলিতে পর্যটকের সংখ্যা অনেক কমে গিয়েছে। ওয়াচ টাওয়ার থেকে উপকূলে কড়া নজরদারি চালাচ্ছে পুলিশ প্রশাসন। মাইকিং করা হচ্ছে। অন্য দিকে চূড়ান্ত সতর্কতা ওড়িশাতেও। পুরী থেকে পর্যটকদের ফিরে যেতে অনুরোধ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই ওড়িশায় ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয়ে গিয়েছে।

আজ বিকেলের পর থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি শুরু হওয়ার সম্ভাবনা। ইতিমধ্যে আকাশে মেঘ ঢোকাতে শুরু করেছে ফণী।

২ মে, বৃহস্পতিবার সকাল ৮:০০

ঘূর্ণিঝড় ফণীর গতিপথ নিয়ে নতুন যে পূর্বাভাস কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর প্রকাশ করেছে, তার ফলে বিপদ আরও বাড়তে পারে। কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর এবং বসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা জানাচ্ছে, এই মুহূর্তে ফণীর অবস্থান পুরী থেকে ৪৪০ কিমি দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিম, গোপালপুর থেকে ৩৮০ কিমি দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিম এবং কলকাতা থেকে ৭০০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিম। ফণীর গতিপথ নিয়ে এই ম্যাপটি দেখুন।

এই ম্যাপ দেখে দেখে যেটা বোঝা যাচ্ছে, তা হল, কলকাতার ওপরে ‘এসসিএস’ অর্থাৎ প্রবল ঘূর্ণিঝড় দেওয়া আছে। শনিবার সকাল ছ’টা নাগাদ ফণী প্রবল ঘূর্ণিঝড় হিসেবে অবস্থান করতে পারে কলকাতার এক্কেবারে নাকের ডগায়। তখন তার গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১২০ কিমি। কিন্তু কলকাতায় পৌঁছনোর আগে, অর্থাৎ দিঘায় আছড়ে পড়া এবং সেখান থেকে কলকাতার পথ ধরার সময়ে, সেটি ‘ভিএসসিএস’ অর্থাৎ অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় থাকতে পারে। তখন তার গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১৫৫ কিমি। কলকাতা থেকে বাংলাদেশ পৌঁছনো পর্যন্ত, অর্থাৎ উত্তর ২৪ পরগণা, নদিয়া দিয়ে যাওয়ার সময়ে সেটি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ই থাকতে পারে। তার পর সেটি বাংলাদেশে গিয়ে ঘূর্ণিঝড় এবং অসমে গিয়ে গভীর নিম্নচাপে দুর্বল হয়ে যাবে।

এর ফলে কলকাতা, দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগণা, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া, পূর্ব বর্ধমানের একাংশ এবং বাঁকুড়ার একাংশে চূড়ান্ত ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।

ইতিমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গের আকাশে মেঘ ঢোকাতে শুরু করে দিয়েছে ফণী। বেলা বাড়লে বৃষ্টি শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

১ মে, বুধবার, রাত ১:৩০

ফণী অবস্থান করছে বিশাখাপত্তনম থেকে ৩০০ কিমি দক্ষিণ-দক্ষিণপূর্বে, পুরী থেকে ৫৫০ কিমি দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিম এবং দিঘা থেকে ৭৪০ কিমি দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে।

১ মে, বুধবার, রাত ৯:৩০

আবহাওয়া দফতরের সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, এই মুহূর্তে ফণী অবস্থান করছে পুরী থেকে ৫৭০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিম এবং দিঘা থেকে ৭৬০ কিমি দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিমে। শুক্রবার দুপুর নাগাদ এই ঝড় পুরী দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করবে। পুরীতে আছড়ে পড়ার সময়ে এই ঝড়ের সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ২০০ কিমি।

পুরীতে আছড়ে পড়ে এই ঝড় এগোবে বাংলার দিকে, ওড়িশা উপকূল বরাবর। শুক্রবার গভীর রাত থেকে শনিবার সকালের মধ্যে এই ঝড় দিঘা দিয়ে বাংলায় ঢুকতে পারে। রাজ্যে প্রবেশ করার সময়ে ফণীর গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ১২০ কিমি। শনিবার সকাল নাগাদ ফণী কলকাতার কান ঘেঁষে বেরোতে পারে। তখন কলকাতায় হাওয়ার গতিবেগ থাকতে পারে ১১০ কিমির আশেপাশে। অর্থাৎ দক্ষিণবঙ্গে ভয়াবহ দুর্যোগের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ফণী মোকাবিলায় চূড়ান্ত সতর্ক রাজ্য। ইতিমধ্যেই রাজ্যে এসে পৌঁছেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ৬টি দল। বৃহস্পতিবার থেকেই দিঘা, মন্দারমণি-সহ রাজ্যের সৈকত সংলগ্ন পর্যটন কেন্দ্রে জলক্রীড়া বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি কলকাতা পুরসভার তরফে আবাসন, নিকাশি, বিদ্যুত দফতরকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। প্রতিটি বরোতে কন্ট্রোল রুম খোলা হচ্ছে। পুরসভায় খোলা হচ্ছে কেন্দ্রীয় কন্ট্রোল রুম। কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে সামগ্রিক পরিস্থিতির উপর নজরদারি চালানো হবে। গাছ পড়ার খবর পেলেই সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাতিল একাধিক ট্রেন

ঘূর্ণিঝড় ফণীর কথা মাথায় রেখে বৃহস্পতিবার থেকে একাধিক দুরপাল্লার ট্রেন বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দক্ষিণপূর্ব রেল। বিস্তারিত দেখুন এখানে।

Advertisement
5 Comments

5 Comments

  1. Payel দাস

    May 2, 2019 at 12:48 pm

    Last updated ta dele bhalo hoto

  2. খবর অনলাইন

    May 2, 2019 at 1:00 pm

    আমরা সর্বক্ষণ আপডেট দেওয়ার চেষ্টা করে চলেছি। ফণী সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য এখানে তুলে ধরা হবে। দেখতে থাকুন। ধন্যবাদ

  3. RAKESH KUNDU

    May 2, 2019 at 9:27 pm

    I like this app, for best news.

  4. RAKESH KUNDU

    May 2, 2019 at 9:29 pm

    Really I like it.

    • খবর অনলাইন

      May 5, 2019 at 1:24 am

      ধন্যবাদ। খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

রাজ্য

টিকিট পেয়েও বিজেপিতে যাওয়ার জল্পনা, হাবিবপুর রাতারাতি প্রার্থী বদল করল তৃণমূল

ছিলেন কংগ্রেসে, সেখান থেকে তৃণমূল হয়ে এ বার বিজেপির পথে।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দলের প্রার্থী হয়েও বিজেপির দিকে ঝুঁকে গিয়েছেন সরলা মুর্মু। সে কারণে রাতারাতি হাবিবপুর বিধানসভা আসনের প্রার্থী বদল করল তৃণমূল। প্রার্থী বদল করার পেছনে সরলার ‘শারীরিক অসুস্থতা’কে কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছে। তাঁর পরিবর্তে প্রদীপ বাক্সেকে টিকিট দেওয়া হয়েছে।

গত শুক্রবার তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় হবিবপুর থেকে জেলা পরিষদের প্রাক্তন সভাধিপতি সরলাকে টিকিট দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রথম থেকেই শীর্ষ নেতৃত্বের সেই সিদ্ধান্তে রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকে তৃণমূলের একটি অংশ।

Loading videos...

‘বহিরাগত’ প্রার্থী পরিবর্তনের দাবিতে তৃণমূলের দলীয কার্যালয়ের ভিতরে বিক্ষোভ দেখানো হয়। আবার তৃণমূলের টিকিট পেয়েও গোসা হয়েছিল সরলার। তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলের তরফে দাবি করা হচ্ছিল, সরলা প্রথমেই জানিয়েছিলেন যে তিনি হবিবপুরে দাঁড়াতে চান না। মালদহ আসনে দাঁড়াতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তৃণমূলের তরফে সেই ‘কঠিন’ হবিবপুরেই সরলাকে প্রার্থী করেছিল তৃণমূল।

এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করেন সরলা। যিনি কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে এসেছিলেন। সেই মতো রবিবার রাতে কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছেন। সোমবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপি যোগ দেবেন বলে সূত্রের খবর।

উল্লেখ্য, হাবিবপুরে তৃণমূলের জয়ের সম্ভাবনা কম, এই আশঙ্কা থেকেই সম্ভবত বেসুরো সরলা। গত বিধানসভা ভোটে এই কেন্দ্রে জিতেছিলেন বাম-কংগ্রেস জোট প্রার্থী খগেন মুর্মু। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনের আগে তিনি সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে চলে যান। পরে উত্তর মালদহ থেকে লোকসভায় জিতেও যান।

ফাঁকা হবিবপুর আসনে উপনির্বাচনে প্রায় ৩০,০০০ ভোটে জেতেন বিজেপি প্রার্থী জোয়েল মুর্মু। এবারও তিনি দাঁড়ানোর সম্ভাবনাই বেশি। সে ক্ষেত্রে সরলা হয়ত ভাবছিলেন, তাঁর পরাজয় অবশ্যম্ভাবী। বরং মালদহে নিজের ‘প্রতিপত্তি’ বেশি থাকায় সেখানেই টিকিট সেখানেই চেয়েছিলেন। 

যদিও প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পর এভাবে প্রার্থী পরিবর্তন করতে হওয়ায় রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েছে তৃণমূল। সরকারিভাবে ‘শারীরিক অসুস্থতার’ কারণ দর্শানো হলেও ব্যাপারটা যে দলের জন্য খুব একটা ভালো বিজ্ঞাপন নয় তা বলাই বাহুল্য।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

কলকাতা পুরসভার প্রশাসকের পদ ছাড়ছেন ফিরহাদ হাকিম

Continue Reading

রাজ্য

কলকাতা পুরসভার প্রশাসকের পদ ছাড়ছেন ফিরহাদ হাকিম

এর ফলে ভেঙে যাবে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ড।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিধানসভা ভোটে প্রার্থী হয়েছেন, তাই নিয়ম মেনেই কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের পদ ছাড়তে হচ্ছে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে। এর ফলে স্বাভাবিক ভাবেই ভেঙে যাবে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ড।

তা হলে ফিরহাদের পর কলকাতা পুরসভার দায়িত্বে কে? এই প্রসঙ্গেই তিনি বলেন, “বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্যই নিয়ম মেনে পদত্যাগ করব। বোর্ড ভেঙে গেলে কলকাতা পুরসভার দায়িত্ব সামলাবেন পুর কমিশনার এবং পুর ও নগরোন্নয়ন দফতরের প্রধান সচিব।”

Loading videos...

তিনি বলেন, অন্যান্য পুরসভার প্রশাসক যাঁরা বিধানসভা ভোটে প্রার্থী হয়েছেন, তাঁদেরও মনোনয়ন জমা দেওয়ার আগে পদত্যাগ করতে হবে। ফলে, শিলিগুড়ি প্রশাসক পদ থেকে পদত্যাগ করতে হবে অশোক ভট্টাচার্যকে। এখনও পর্যন্ত বামফ্রন্ট শিলিগুড়ির প্রার্থী তালিকার ঘোষণা না করলেও অশোকবাবুই যে সেখান থেকে প্রার্থী হবেন তা নিশ্চিত।

কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান ছাড়াও আরও তিন সদস্য অতীন ঘোষ, দেবাশিস কুমার, দেবব্রত (মলয়) মজুমদার এ বার বিধানসভা ভোটে তৃণমূল প্রার্থী হয়েছেন। অতীনবাবুর কথায়, “বিধানসভা ভোটের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র পেশ করার আগেই ফিরহাদ হাকিমকে প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করতে হবে। তখনই নিয়ম মাফিক বোর্ড ভেঙে যাবে। তাই, মনোনয়নপত্র পেশ করার জন্য আমাদের আর আলাদা করে পুরবোর্ড থেকে পদত্যাগ করতে হবে না।”

তবে কোনো পুরসভার ক্ষেত্রে যদি প্রশাসক বোর্ডের অন্য কোনো সদস্য প্রার্থী হন, সে ক্ষেত্রে গোটা বোর্ড ভেঙে যাবে না। সে ক্ষেত্রে শুধু ওই সদস্যকেই পদত্যাগ করতে হবে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

ফসল বাঁচানোর জন্য বৃষ্টির দিকে তাকিয়ে দক্ষিণবঙ্গ, যদিও সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ

Continue Reading

রাজ্য

ফসল বাঁচানোর জন্য বৃষ্টির দিকে তাকিয়ে দক্ষিণবঙ্গ, যদিও সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ

আগামী দিনে গরম আরও বাড়বে।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গত বছর নভেম্বরের পর থেকে দক্ষিণবঙ্গে সে ভাবে বৃষ্টি হয়নি। আর তার জেরে ফসলে বেশ ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। পরিস্থিতি যা তাতে আগামী ১০ দিনেও উল্লেখযোগ্য কোনো বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।

অন্যান্য বার মার্চের এই দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে দু’ তিনটে কালবৈশাখী হয়ে যায় দক্ষিণবঙ্গে। কিন্তু এ বার একটাও হয়নি। গরমও সে ভাবে বাড়ছে তা-ও নয়, ভোরের দিকে ঠান্ডা ঠান্ডা ব্যাপার এখনও রয়েছে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে। কিন্তু বৃষ্টি না হলে পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে উঠতে পারে।

Loading videos...

এ বার বিশ্বে ‘লা নিনা’ অনেক বেশি শক্তিশালী। সে কারণে উত্তর ভারত থেকে বয়ে আসা পশ্চিমী ঝঞ্ঝাগুলি ছোটোনাগপুর মালভূমি এবং সন্নিহিত দক্ষিণবঙ্গে সে ভাবে প্রভাব ফেলতে পারছে না। আর সে কারণেই বৃষ্টি নেই দক্ষিণবঙ্গে। যদিও উত্তরবঙ্গ, সিকিম এবং সমগ্র উত্তরপূর্ব ভারতে বৃষ্টিপাত ঠিকঠাকই হচ্ছে।

ইতিমধ্যেই আমের মুকুল এসে গিয়েছে। আমের রেকর্ড ফলনের সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। কিন্তু দু’ একবার বৃষ্টি না হলে প্রচুর মুকুল নষ্ট হয়ে যাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ক্ষতি হতে পারে ধান চাষেও।

তবে ১২ থেকে ১৪ মার্চের মধ্যে দক্ষিণবঙ্গে অল্প ঝড়বৃষ্টি হতে পারে, এমনই মনে করছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলে মাঝারি ঝড়বৃষ্টি হতে পারে। তুলনায় হালকা ঝড়বৃষ্টি হতে পারে কলকাতা এবং সন্নিহিত অঞ্চলে। তবুও বৃষ্টিহীন অবস্থার থেকে কিছুটা বৃষ্টি হওয়া তো ভালোই।

তবে আগামী দিনে গরমের দাপট ক্রমশ বাড়বে দক্ষিণবঙ্গে। বর্তমানে কলকাতায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রির আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে। চলতি সপ্তাহের শেষে সেটা ৩৭-৩৮ ডিগ্রিতে উঠে যেতে পারে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

চল্লিশের দশকে বাংলার এক গণ্ডগ্রামে নারী শিক্ষার আলো দেখিয়েছিলেন তিনি, নারী দিবসে স্মরণ করি সেই বীরাঙ্গনাকে

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
রাজ্য35 mins ago

টিকিট পেয়েও বিজেপিতে যাওয়ার জল্পনা, হাবিবপুর রাতারাতি প্রার্থী বদল করল তৃণমূল

রাজ্য1 hour ago

কলকাতা পুরসভার প্রশাসকের পদ ছাড়ছেন ফিরহাদ হাকিম

দেশ2 hours ago

মহারাষ্ট্র ১১ হাজারি, বাকি দেশে আক্রান্ত ৭,৪৫৮

রাজ্য3 hours ago

ফসল বাঁচানোর জন্য বৃষ্টির দিকে তাকিয়ে দক্ষিণবঙ্গ, যদিও সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ

ইতিহাস3 hours ago

চল্লিশের দশকে বাংলার এক গণ্ডগ্রামে নারী শিক্ষার আলো দেখিয়েছিলেন তিনি, নারী দিবসে স্মরণ করি সেই বীরাঙ্গনাকে

দেশ3 hours ago

১০০ মাস লাগলেও কৃষি আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলবে: প্রিয়ঙ্কা গান্ধী

রাজ্য4 hours ago

রাজ্যের পাঁচ জেলায় সক্রিয় কোভিড রোগীর সংখ্যা দশের কম

শিলিগুড়ি13 hours ago

বিজেপি টাকা দিতে চাইলে নিয়ে নিন, কিন্তু ভোট দিন তৃণমূলকে, বললেন মমতা

রাজ্য3 days ago

পূর্ণাঙ্গ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করল তৃণমূল

রাজ্য3 days ago

বিধান পরিষদ গঠন করে প্রবীণদের স্থান দেওয়া হবে, প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে বললেন মমতা

রাজ্য2 days ago

কেন তড়িঘড়ি প্রার্থী তালিকা প্রকাশ তৃণমূলের, সরব পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির সহ-পর্যবেক্ষক অমিত মালব্য

রাজ্য2 days ago

লড়াই মুখোমুখি! নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী

রাজ্য2 days ago

অস্বস্তি বাড়াচ্ছে রাজ্যের করোনা সংক্রমণ, কলকাতাতেও বাড়ল আক্রান্তের সংখ্যা

রাজ্য3 days ago

বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ জোটের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা

রাজ্য23 hours ago

বিজেপির ব্রিগেড: বাংলা চায় প্রগতিশীল বাংলা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

দেশ3 days ago

অপ্রয়োজনীয় ভিড় এড়াতে ব্যবস্থা, প্ল্যাটফর্ম টিকিটের দাম তিনগুণ বাড়াল রেল

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 weeks ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা4 weeks ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা1 month ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা1 month ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা2 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা2 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা2 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা2 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা2 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

কেনাকাটা2 months ago

৯৯ টাকার মধ্যে ব্র্যান্ডেড মেকআপের সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : ব্র্যান্ডেড সামগ্রী যদি নাগালের মধ্যে এসে যায় তা হলে তো কোনো কথাই নেই। তেমনই বেশ কিছু...

নজরে