কলকাতা : কলকাতার রাস্তা থেকে উধাও প্রায় ৫০০ টি বাস। কেন্দ্রে ইউপিএ সরকারের আমলে এই রাজ্যের ভাগ্যে ১১০০ টি নতুন বাস জুটেছিল। তার মধ্যে প্রায় ৫০০ বাস আজ রাস্তা থেকে উধাও। নানা কারণে সেই সব বাস আর রাস্তায় নামছে না। ফলে উপযুক্ত পরিষবা দিতে পারছেন না বাস মালিকরা। এমনই দাবি করেছেন জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, এর জন্যই বিপাকে পড়তে হচ্ছে নিত্যযাত্রীদের।

১৫ বছরের বেশি বয়সের বাসগুলি কলকাতা রাস্তায় বেশি দূষণ ছড়াচ্ছে। তাই কলকাতা হাইকোটের নির্দেশ, যে সব বাস ১৫ বছরের বেশি পুরোনো সেগুলি রাস্তায় নামানো যাবে না। এর আগে অবধি কলকাতার রাস্তায় যে বাসগুলি চলত তার মধ্যে ৬০ শতাংশেরই বয়স ১৫ বছরের বেশি হয়ে গিয়েছিল। সেইগুলি তুলে দেওয়ার জন্যই কলকাতার বাস পরিষেবা ভেঙে পড়েছিল।

এর পরই রাজ্য সরকার এই নিয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দেয়। কেন্দ্র সরকার এই রাজ্যে জেএনএনইউআরএম প্রকল্পে ১১০০ নতুন বাস দেয়। তার মধ্যে ৭০০ বাস রাজ্য সরকারি নিগম গুলির হাতে তুলে দেওয়া হয়। বাকি ৬০০ বাস বেসরকারি বাস মালিকদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। বর্তমানে তার মধ্যে ৪৬০টির বেশি বাস নানা কারণে বসে গিয়েছে।

অন্য দিকে, সারা বাংলা জুড়ে প্রায় ৪০ হাজার বাস চলত। তার মধ্যে প্রায় ১৫ হাজার বাস বসে গিয়েছে। শুধু কলকাতাতেই বসে গিয়েছে প্রায় ৩ থেকে ৪ হাজার বাস।

এই নিয়ে তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ক্রমশ তেলের দাম, বাস কর্মচাদীদের বেতন, বাস রক্ষণাবেক্ষনের খরচ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাসের ভাড়া বৃদ্ধি করা হচ্ছে না। ইতিমধ্যে বসে যাওয়া বাসগুলিকে আবার রাস্তা নামানো ও ভাড়া বৃদ্ধির জন্য পরিবহনমন্ত্রীকে বার বার চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি বলে দাবি করেন তপনবাবু। তিনি বলেন, ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী দু’ বছর আগে একটি টাস্কফোর্স গঠন করে দেন, তার পর একটিই বৈঠক হয়। তার পরে আর এই ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এই নিয়ে উদ্যোগ না নিলে এই শিল্পের মৃত্যু হবে বলেও দাবি তাঁর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here