Bengal Polls 2021: বদলে গিয়েছে পরিস্থিতি, সকাল সকাল ভোট দিয়ে ‘দিদির জয়’ চাইলেন বিমল গুরুং

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: তিন বছরে সব বদলে গিয়েছে। আগে কম করে পঞ্চাশ জন বডিগার্ড ঘিরে রাখত তাঁকে। এখন তিনি প্রায় একা। সেই তেজ কমেছে অনেকটাই, কিন্তু লক্ষ্যে তিনি অবিচল। বিজেপির সঙ্গে ১৪ বছরের সম্পর্কে পাট চুকিয়ে বিমল গুরুংয়ের মুখে আজ ‘দিদির’ জয়গান।

শনিবার সক্কালেই দার্জিলিংয়ের পাতলেবাসের বুথে ভোট দিলেন বিমল গুরুং। চোখেমুখে দেখা গেল সেই চেনা আত্মবিশ্বাস। বললেন, “জয় নিশ্চিত আমাদের। পাহাড়ের মানুষের সঙ্গে বিজেপি বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। আমাদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে।”

Shyamsundar

পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৯ সালের উপনির্বাচনে দার্জিলিংয়ে যেতে বিজেপি। এমনকি লোকসভাতেও তিনটি আসনেই এগিয়ে ছিল বিজেপি। কিন্তু সেখানে আদতে গুরুংয়েরই প্রভাব ছিল। দার্জিলিং পাহাড়ে এখনও গুরুংয়ের প্রভাব যথেষ্ট। তিনি যে পথে চলতে বলবেন, সেই পথেই পাহাড়ের অধিকাংশ ভোটার চলবেন।

সেই কারণেই বিজেপি নয়, রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মত,‌ গুরুং-সমর্থিত মোর্চা প্রার্থীরাই জিতবেন পাহাড়ের তিনটে আসনে। এ দিকে গুরুংও এ দিন বলেন,  “মানুষ পাহাড়ে শান্তি আর উন্নয়নের জন্য ভোট দেবেন। দিদি সরকার গঠন করবে।”

পাহাড়ের ভোট পরিস্থিতি এ বার কিছুটা ভিন্ন। গুরুংপন্থী মোর্চার বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী নামিয়েছে বিনয়পন্থী মোর্চাও। অন্য দিকে এই দুই শিবিরের মূল প্রতিপক্ষ বিজেপি। তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে জিএনএলএফ এবং সিপিআরএম। কিন্তু মূল লড়াইটা গুরুংপন্থী এবং বিনয়পন্থী মোর্চার মধ্যেই। দুই শিবিরই তৃণমূলের সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে চাইছে।

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সর্বান্তকরণে চেয়েছিলেন দুই মোর্চা যাতে এক হয়ে যায়। তা হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য আশ্বাস দিয়েছেন যে জিতবে সে দলের সঙ্গে কাজ করবেন তিনি। তবে এ বার পাহাড়ের লড়াই নিয়ে একটা কৌতূহল রয়েছে অবশ্যই। আগেকার মতো এখন আর আন্দাজই করা যাচ্ছে না কোন দল জিতবে। সেটার জন্য ২ মে পর্যন্ত অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

পঞ্চম দফার ভোটের সব লাইভ আপডেট দেখুন এখানে ক্লিক করে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন