Connect with us

কালিম্পং

প্রচুর বিধিনিষেধ সঙ্গে নিয়ে ১ জুলাই থেকে পর্যটকদের জন্য খুলছে দার্জিলিং

Published

on

দার্জিলিং: দার্জিলিং-কালিম্পঙের অর্থনীতিটা অনেকটাই পর্যটনকেন্দ্রিক। করোনা মহামারির কারণে গত মার্চ থেকে পর্যটকশূন্য হয়ে রয়েছে গোটা পাহাড়। মুখ থুবড়ে পড়েছে অর্থনীতি। করোনা (Coronavirus) কত দিনে যাবে তার কোনো ঠিক নেই। তাই করোনাকে সঙ্গে নিয়েই এ বার পর্যটকদের স্বাগত জানানোর জন্য তৈরি হচ্ছে পাহাড়।

১ জুলাই থেকে গোর্খাল্যান্ড টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিটিএ)-এর আওতাধীন সব হোটেল এবং হোমস্টে খুলে দেওয়া হবে। দার্জিলিংয়ের (Darjeeling) হোটেল এমনিতেই খোলা রয়েছে, কিন্তু দর্শনীয় স্থানগুলি এতদিন বন্ধ ছিল। ১ জুলাই থেকে ধীরে ধীরে তা খোলা হবে।

পর্যটনশিল্পের সঙ্গে যুক্ত সব অংশীদারের সঙ্গে আলোচনা করে এই কথা জানিয়েছেন জিটিএ (GTA) পর্যটন দফতরের সহকারী ডিরেক্টর সুরজ শর্মা।

১ জুলাই থেকে জিটিএ-এর আওতায় থাকা দার্জিলিংয়ের টাইগার হিল, রক গার্ডেন, গঙ্গা মাইয়া পার্ক, বাতাসিয়া লুপ খুলে দেওয়া হবে। একই দিনে কালিম্পঙের দেলো পার্কও খুলে দেওয়া হবে।

শর্মা বলেন, “আমরা প্রথম জলটা মেপে নিতে চাই। সাধারণ মানুষ কেমন প্রতিক্রিয়া দেখান সেটাই জেনে নিতে চাই। তার পর মিরিক-সহ বাকি জায়গা খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

তবে জিটিএ-এর আওতায় না থাকা দার্জিলিং চিড়িয়াখানা, হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইন্সটিটিউট (HMI) আর রোপওয়েও যাতে খুলে দেওয়া হয় ১ জুলাই থেকে সেই জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানাবে জিটিএ।

হোটেল আর হোমস্টেগুলোর জন্য বিশেষ স্ট্যান্ডার্ড ওপারেটিং প্রসিডিওর (এসওপি) তৈরি করা হবে। পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে কোনো রকম আপস যাতে না করা হয়, সেই নির্দেশও দেওয়া হবে। আপাতত ট্যাক্সিগুলো তাদের যাত্রী ক্ষমতার ৫০ শতাংশ যাত্রী নিতে পারবে বলে জানিয়েছে জিটিএ।

তবে পর্যটকরা যাতে নিজেদের ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে পাহাড়ে আসেন, সেই ব্যাপারে বিশেষ আবেদন করেছে জিটিএ। পাহাড়ে ওঠার অন্তত চারটে জায়গায় থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছেন শর্মা।

সব মিলিয়ে, ধীরে ধীরে এ বার পর্যটনের ভাটা কাটিয়ে উঠতে চাইছে পাহাড়।

কালিম্পং

পাহাড়ে হোটেল-হোমস্টে কবে খুলবে? সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে জিটিএ

পাহাড়ে আনলকের সময় এক দফায় অল্প সংখ্যক হোটেল, হোমস্টে খোলা হয়েছিল। কিন্তু দার্জিলিঙের হোটেল থেকে পর্যটকদের নামিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

Published

on

Darjeeling tourism
কিন্তু দিনের পর দিন পর্যটন পুরোপুরি বন্ধ রাখলে অর্থনীতি পুরো ধসে পড়বে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হোক পাহাড়। রবিবার দুপুরে পাহাড়ের পর্যটন কেন্দ্রিক বিভিন্ন সংগঠন নিজেদের মধ্যে বৈঠক করে এমনই প্রস্তাব জিটিএকে (GTA) দিয়েছে।

সূত্রের খবর, সোমবার দুপুরে জিটিএ চেয়ারম্যান অনীত থাপা এবং জিটিএর অফিসারদের সঙ্গে পরিবহণ, হোটেল, হোমস্টে মালিকদের দ্বিতীয় দফার বৈঠক হবে। ওই বৈঠকেই কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

সূত্রের খবর, সব ঠিক থাকলে ৭-১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে হোটেল, হোমস্টে পাহাড়ে চালু হতে পারে। এর আগে ঘরোয়া ভাবে ১৯ অগস্ট জিটিএ চেয়ারম্যান হোটেল, হোমস্টে মালিকদের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অনুরোধ করেন।

সেইমতো রবিবার দুপুরে দার্জিলিং জিমখানা ক্লাবে দার্জিলিং, কালিম্পং, কার্শিয়াং-এর হোটেল, হোমস্টে ওনার্স এবং পরিবহণ ব্যবসায়ীরা বৈঠক করেন। সেখানে কিছু প্রস্তাব করা হয়েছে। সেই প্রস্তাবগুলি নিয়ে জিটিএ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের পরেই সিদ্ধান্ত ঘোষণা হবে।

হিমালয়ান হসপিটালিটি অ্যান্ড ট্যুরিজম ডেভলপমেন্ট নেটওয়ার্কের পরামর্শদাতা সূর্যনারায়ণ প্রধান এ দিনের বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। তিনি পাহাড়ের সামগ্রিক পরিবহণ ব্যবসায়ীদের কো-অর্ডিনেশন কমিটিরও চেয়ারম্যান।

পাহাড়ে আনলকের (Unlock 1) সময় এক দফায় অল্প সংখ্যক হোটেল, হোমস্টে খোলা হয়েছিল। অত্যন্ত কম হলেও পর্যটকেরা পাহাড়ে এসেছিলেন। কিন্তু দার্জিলিঙের হোটেল থেকে পর্যটকদের নামিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এর পর জিটিএ সংক্রমণ ঠেকাতে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত সব কিছু বন্ধ রাখার কথাও ঘোষণা করে।

কিন্তু দিনের পর দিন পর্যটন পুরোপুরি বন্ধ রাখলে অর্থনীতি পুরো ধসে পড়বে। পাহাড়ের গরিব মানুষদের পেটে টান ইতিমধ্যেই পড়তে শুরু করেছে। এই রকম পরিস্থিতি যে কোভিডের (Covid 19) থেকেও মারাত্মক সেটা এখন বুঝতে পারছে পাহাড়।

এ দিনের বৈঠকে ঠিক হয়েছে, জিটিএ-কে পাহাড়ে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য বলা হবে। দার্জিলিং, মিরিক, কালিম্পঙ পাহাড়ে ঢোকার মুখে হেল্থ ক্যাম্প রেখে পর্যটকদের যাতে কড়া স্ক্রিনিং করা হয়, সেই ব্যবস্থা করতে বলে হয়েছে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

মেসির পর এ বার হতাশায় ডুবলেন নেইমার, ইউরোপ সেরা অপ্রতিরোধ্য বায়ার্ন মিউনিখ

Continue Reading

কালিম্পং

পুজোর আগে পাহাড়ে পর্যটন চালু করতে চাইছে জিটিএ

গত জুন মাস থেকেই পাহাড়ের পর্যটন পুনরায় চালু করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল জিটিএ। কিন্তু তাতে বেঁকে বসেন পাহাড়বাসীরাই।

Published

on

রুজিরুটিতে টান পড়েছে পাহাড়ে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দীর্ঘদিন ধরে লকডাউনের (Lockdown) কারণে ব্যাবসা লাটে উঠেছে। যে পাহাড়ের অর্থনীতির একটা বিশাল বড়ো স্তম্ভ পর্যটন, সেই পর্যটন পুরোপুরি বন্ধ থাকায় স্থানীয় মানুষজনের রুজিরুটিতে টান পড়তে শুরু করেছে।

অসুস্থ হলে চিকিৎসায় সেরে ওঠা যাবে, কিন্তু এ ভাবে ব্যবসা মার খেলে তো খাদ্য সংকট দেখা দেবে, যা কোভিডের (Covid 19) থেকেও ভয়াবহ। ঠিক সেই কারণেই এ বার অন্য রকম চিন্তাভাবনা শুরু করছে পাহাড়। আর পর্যটন বন্ধ করে রাখা নয়, পুজোর আগেই পর্যটকদের স্বাগত জানাতে তৈরি হচ্ছে পাহাড়।

পাহাড়ের বাসিন্দাদের বড়ো অংশই যে পর্যটন চালু করার পক্ষে, সেটা গোর্খাল্যান্ড টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিটিএ)-এর আধিকারিকদেরও কানে পৌঁছেছে। আর তাই পাহাড়ের হোটেল মালিক আর পর্যটন ব্যবসার সব অংশীদারের সঙ্গে আগামী রবিবার দার্জিলিংয়ের জিমখানা ক্লাবে বৈঠকে বসতে চলেছে তারা।

জিটিএ (GTA)-এর এই বৈঠক ডাকার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা। হিমালয়ান হসপিট্যালিটি অ্যান্ড ট্যুরিজম ডেভলপমেন্ট নেটওয়ার্কের সম্পাদক সম্রাট সান্যাল উত্তরবঙ্গ সংবাদকে জানিয়েছেন, “পর্যটন শুরু করার ব্যাপারে আমরা কিছু প্রস্তাব রবিবারের বৈঠকে দেব। ধীরগতিতে হলেও পাহাড়ের পর্যটন ফিরুক।”

অন্য দিকে দার্জিলিং হোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাঙ্গে ছেরিং বলেন, “পুজোয় পর্যটনে কিছুটা হলেও পুরোনো ছবি দেখা যাবে বলে আশা করছি।”

উল্লেখ্য, গত জুন মাস থেকেই পাহাড়ের পর্যটন পুনরায় চালু করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল জিটিএ। কিন্তু তাতে বেঁকে বসেন পাহাড়বাসীরাই। তাঁদের যুক্তি ছিল পর্যটক এলে করোনা সংক্রমণ বাড়বে আর পাহাড়বাসীরা অসুস্থ হয়ে পড়বেন। কিন্তু করোনা যে সহজে যাওয়ার নয়, সেটা এখন বুঝতে পারছেন অনেকেই। তা বলে দীর্ঘদিন ব্যবসাপত্তর লাটে উঠিয়ে দিলে পরিস্থিতি কোভিডের থেকেও ভয়াবহ হয়ে উঠবে সেটাও বোঝা যাচ্ছে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে পাহাড়ের মানুষই যে পর্যটকদের ফিরিয়ে আনতে চাইছেন সেটা স্পষ্ট করে দিয়েছেন জিটিএ-এর চেয়ারম্যান অনীত থাপা। তবে পর্যটন ফিরলে পাহাড়ে স্বস্তি ফিরবে বলে মনে করলেও ‘দার্জিলিং অ্যাসোসিয়েশন অব ট্র্যাভেলার্স এজেন্ট’-এর সম্পাদক প্রদীপ লামা মনে করেন, যত দিন না ট্রেন চালু হচ্ছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে না।

জিটিএ সূত্রে খবর, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই পাহাড়ে পর্যটকদের স্বাগত জানানো যায় কি না, সেই ব্যাপারে আলোচনা হবে রবিবারের বৈঠকে।

Continue Reading

কালিম্পং

মেলেনি চিকিৎসা, শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে মৃত কালিম্পংয়ের বাসিন্দা

Published

on

ওয়েবডেস্ক: দিল্লি (Delhi) থেকে নিউ জলপাইগুড়িগামী (New Jalpaiguri) শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে বাড়ি ফিরছিলেন কালিম্পংয়ের বাসিন্দা কিপা শেরপা। গত বুধবার ট্রেনে ওঠার পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন। দীর্ঘ পথ অতিক্রমের পর উত্তরপ্রদেশে ইটাওয়া (Etawah) স্টেশনে তাঁকে নামিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও অনেক আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়।

দুই মেয়ে-জামাইয়ের সঙ্গেই দিল্লি থেকে ট্রেনে উঠেছিলেন বছর একান্নর কিপা। ট্রেনে ওঠার কিছুক্ষণ পর থেকেই মাথার যন্ত্রণার কথা জানান তিনি। এর পর ধীরে ধীরে তিনি অসুস্থ হতে শুরু করেন। প্রচণ্ড গরমে শ্বাসকষ্ট শুরু হয় বলে জানিয়েছেন তাঁর জামাই রণজিৎ তামাং। ট্রেনের মধ্যে রেলকর্মীদের খোঁজার চেষ্টা করেন তাঁরা। কিন্তু কারও হদিশ পাননি। শাশুড়ির চিকিৎসার জন্য একাধিক বার চেন টেনে ট্রেন থামানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হয়নি।

তামাং জানান, যে নম্বরটি থেকে তাঁদের টিকিট কনফার্মড হওয়ার কথা জানানো হয়েছিল, সেটিতেও তাঁরা ফোন করেন। কিন্তু অপর প্রান্তে যিনি ফোন ধরেন, তিনি একটি হেল্পলাইন নম্বর দেন। কিন্তু সেখান থেকে কোনো সাহায্য পাওয়া যায়নি।

দিল্লির কোটলা এলাকায় থাকতেন তামাংরা। তিনি জানান, “লকডাউনে কাজ হারিয়ে বাড়ি ফেরার সিদ্ধান্ত নিই। ট্রেনের টিকিট কনফার্মড হয়েছে জানতে পেরে আমরা সকলে খুব খুশি হই। সকালে তাড়াতাড়ি উঠে স্টেশনে যাওয়ার তোড়জোড় শুরু করি। খাবার পাব কি পাব না চিন্তা করে পথ থেকে কলা এবং আম কিনে স্টেশনে আসি। সন্ধ্যা ৭টায় আমাদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা হয়। তখনও পর্যন্ত সকলেই সুস্থই ছিলাম। কিন্তু ট্রেনের মধ্যে প্রচণ্ড গরম বিপদ ডেকে আনে।”

কিপার চিকিৎসার জন্য একাধিক পদক্ষেপ নিয়েও ব্যর্থ হন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। শেষমেশ উত্তরপ্রদেশের ইটাওয়া স্টেশনে ট্রেন থামে। কিপাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়। তামাং বলেন, “সময়মতো অক্সিজেনের ব্যবস্থা করা হলে এই চরম পরিণতি হয়তো দেখতে হত না”।

সোমবার থেকে একের পর এক মৃত্যু

প্রসঙ্গত, গত সোমবার থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে (Shramik Special Train) ন’ জন অভিবাসী শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে রেল। প্রত্যেকেই আগে থেকে অসুস্থ ছিলেন বলে দাবি করা হয়েছে রেলের তরফে।

অন্য দিকে ট্রেনের যাত্রীরা অভিযোগ করছেন, ঘোষণামতো পরিষেবা মিলছে না শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে। ট্রেনে কোনো রেলকর্মীর খোঁজ পাওয়া যায় না। খাবার-জল অথবা চিকিৎসা সংক্রান্ত পরিষেবাও পর্যাপ্ত নয়।

Continue Reading
Advertisement
Narendra Modi
দেশ5 hours ago

২০১৫ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিদেশ সফরে খরচ হয়েছে প্রায় ৫১৮ কোটি টাকা

দেশ6 hours ago

অর্থনীতিতে নতুন হাতছানি বাংলাদেশ-ভারত পণ্যবাহী রেল চলাচল

IPL rajasthan Royals
ক্রিকেট6 hours ago

রানের বন্যা শেষে চেন্নাই-জয় রাজস্থান রয়্যালসের

Sherpa Ang Rita
অ্যাডভেঞ্চার9 hours ago

অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়াই ১০ বার মাউন্ট এভারেস্ট বিজয়ী আং রিটা প্রয়াত

রাজ্য9 hours ago

পর পর তিন দিন দৈনিক মৃতের সংখ্যা ৬০-এর উপরে, তবে ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার হার

Currency
শিল্প-বাণিজ্য10 hours ago

জল জীবন মিশনের আওতায় ৫০ লক্ষ টাকা জেতার সুযোগ দিচ্ছে কেন্দ্র, তবে উৎরাতে হবে আইসিটি গ্র্যান্ড চ্যালেঞ্জে

কেনাকাটা11 hours ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

দেশ13 hours ago

এ বার আলু, পেঁয়াজ, চাল, ডাল, ভোজ্য তেল অত্যাবশ্যক পণ্য নয়, বিল পাশ রাজ্যসভায়

দেশ20 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৭৫০৮৩, সুস্থ ১০১৪৬৮

দেশ2 days ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

দেশ3 days ago

ব্যথার কারণ খুঁজতে হল এক্স-রে, বন্দির মলদ্বারে হদিশ মিলল চারটি মোবাইলের

coronavirus west bengal
দেশ19 hours ago

এই প্রথম ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ কোভিডরোগীর সংখ্যা এক লক্ষ ছাড়াল

রাজ্য3 days ago

জাতীয় গড়ের তুলনায় রাজ্যে সুস্থতার হার অনেকটাই বেশি, কেন্দ্রের প্রশংসা

mamata banerjee
রাজ্য3 days ago

সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উত্তরবঙ্গ সফর স্থগিত

corona
দেশ2 days ago

৫টি রাজ্যেই মোট সক্রিয় কোভিডরোগীর ৬০ শতাংশ!

coronavirus west bengal
রাজ্য2 days ago

রাজ্যের চার জেলার কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ ভাবে উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর

কেনাকাটা

কেনাকাটা11 hours ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা4 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা6 days ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

নজরে