Connect with us

রাজ্য

দ্রুত গতিতে শক্তি বাড়াতে পারে নিম্নচাপ, পশ্চিমাঞ্চল ও রাজ্যের উপকূলের জন্য বিশেষ সতর্কতা

ওয়েবডেস্ক: গত বছর ৫ আগস্ট। ২৪ ঘণ্টায় সাড়ে তিনশো মিলিমিটার বৃষ্টিতে ভেসে গিয়েছিল বাঁকুড়া শহর। জলের তোড়ে আস্ত একটা বাড়ি ভেসে যাওয়ার ছবি এখনও অনেকেরই মনে রয়েছে। একই দিনে একই রকম বৃষ্টি হয়ছিল ঝাড়গ্রামেও। বর্তমান আবহাওয়া পরিস্থিতি বিচার করে যা বোঝা যাচ্ছে, তাতে আগামী সপ্তাহের শুরুর দিকে আবার এ রকম প্রবল বৃষ্টি হতে পারে বাঁকুড়ায়। শুধু বাঁকুড়াই নয়, পশ্চিমাঞ্চলের সব জেলা, অর্থাৎ বীরভূম, দুই বর্ধমান, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুরও ব্যাপক বৃষ্টির কবলে পড়তে পারে। তুলনায় কলকাতার দিকে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কম থাকলেও, এই শহরেও ভারী থেকে বিক্ষিপ্ত ভাবে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা ষোলো আনা।

তবে সবই নির্ভর করছে বঙ্গোপসাগরে আসন্ন নিম্নচাপটি কোন অঞ্চল দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করে তার ওপরে। নিম্নচাপের গতিপ্রকৃতি নিয়ে কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর এখনও কিছু জানায়নি। শুধু তারা বলেছে, আগামী রবিবার সাগরের উত্তরপূর্ব অংশে নিম্নচাপটি তৈরি হবে। সেটি যে দ্রুত গতিতে শক্তি বৃদ্ধি করবে সেই ইঙ্গিতও দেওয়া রয়েছে। তবে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা এবং বিদেশি আবহাওয়া সংস্থাগুলি নিম্নচাপের গতিপথ নিয়ে পূর্বাভাস দিতে শুরু করেছে।

ওই নিম্নচাপ উত্তর ওড়িশা ও পশ্চিম বাংলাদেশ উপকূলের মধ্যে দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করবে বলে জানিয়েছে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা। সংস্থার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা জানাচ্ছেন, “নিম্নচাপটি পশ্চিমবঙ্গ উপকূল দিয়ে প্রবেশ করার সম্ভাবনা ৫৫%, ওড়িশা দিয়ে প্রবেশ করার সম্ভাবনা ৩০% এবং বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সম্ভাবনা ১৫%।” সেই সঙ্গে তিনি এ-ও বলেছেন যে ওই নিম্নচাপ শক্তি বাড়িয়ে বাড়িয়ে অতি প্রবল নিম্নচাপের রূপ নেবে। এমনকি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেওয়ারও হালকা একটা সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন তিনি।

এই মুহূর্তে বঙ্গোপসাগরে জলের তাপমাত্রা খুবই বেশি, যা নিম্নচাপকে ক্রমশ শক্তিবৃদ্ধি করাতে সাহায্য করবে। নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিলে, সেটি মামুলি ঘূর্ণিঝড় হিসেবেই থাকবে। অর্থাৎ তখন হাওয়ার গতিবেগ থাকতে পারে ৭০ থেকে ৮০ কিমি মতো। সেই সঙ্গে অতি ভারী থেকে চরম অতি ভারী বৃষ্টিও হতে পারে দক্ষিণবঙ্গে। তবে বৃষ্টির দাপট পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে অনেকটাই বেশি থাকবে। তার কারণ, নিম্নচাপটি স্থলভাগে ঢুকে উত্তরপশ্চিম দিকে এগোবে। অর্থাৎ, তার প্রভাব সরাসরি রাজ্যের পশ্চিমের জেলা এবং ঝাড়খণ্ডে পড়বে। ফলে ঝাড়খণ্ডেও ব্যাপক বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন ‘আর এ রকম টুইট করলে…’ জোম্যাটোর অর্ডার বাতিল করা ব্যক্তিকে চরম সতর্কতা পুলিশের

রবিবার থেকে পরবর্তী তিন দিন নিম্নচাপের প্রভাব রাজ্যে পড়তে পারে। ঝাড়খণ্ডে প্রবল বৃষ্টি হলে সুখা দক্ষিণবঙ্গের জন্য তা অত্যন্ত খুশির বার্তা নিয়ে আসবে। কারণ তা হলে দামোদর অববাহিকার সব নদীতেই জলের স্তর ক্রমশ বাড়বে। বৃষ্টির প্রভাবে বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম এবং ঝাড়খণ্ডের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে অল্প সময়ের হড়পা বানেরও আশঙ্কা থেকে হচ্ছে।

তবে কলকাতার জন্য বিশেষ দুঃখের কোনো কারণ নেই। এই নিম্নচাপের প্রভাবে যথেষ্ট বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা এই শহরেও। সম্ভবত এই মরশুমে প্রথম বার প্রবল বৃষ্টির মুখোমুখি হতে পারে শহর। জলমগ্ন হতে পারে শহরের একাধিক অঞ্চল। পাশাপাশি উপকূলবর্তী অঞ্চলের জন্য প্রবল হাওয়া এবং জলোচ্ছ্বাসের সতর্কতা জারি করা হচ্ছে। শনিবারের পর মৎস্যজীবীরা যাতে সমুদ্রে না যান, সেই ব্যাপারেও আবেদন করা হচ্ছে।

রাজ্য

রেকর্ড বৃদ্ধি, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত প্রায় ১০০০

খবরঅনলাইন ডেস্ক দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজারের কাছাকাছি চলে গেল। রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৮৬ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে বিশাল সংখ্যক মানুষই কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী তিন জেলার। সব মিলিয়ে রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ল। যদিও সুস্থতার হার এখনও ঠিকঠাকই রয়েছে।

রাজ্যের করোনা-তথ্য

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে রাজ্যে মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৪,৮২৩। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮২৭। তবে একদিনে সুস্থ হয়েছেন ৫০১ জন। ফলে এখনও পর্যন্ত মোট ১৬,২৯১ জন করোনামুক্ত হলেন।

রাজ্যে সুস্থতার হার একটু কমে ৬৫.৬২ শতাংশ রয়েছে। সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৭,৭০৫ জন। তবে মৃত্যুহার অনেকটাই কমে এসেছে রাজ্যে। সেটি এখন রয়েছে ৩.৩৩ শতাংশ।

কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী তিন জেলাতেই মোট রোগীর ৮১ শতাংশ

বুধবারের হিসেব বলছে, কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা আর হাওড়া মিলিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৯৮ জন, যা মোট রোগীর ৮১ শতাংশ। এর মধ্যে কলকাতায় ৩৬৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে কলকাতায় এখন রোগীর সঙ্গে বেড়ে ৮,০৪৬ হয়েছে।

শহরে এখন করোনামুক্ত হয়েছেন ৪,৭৮৮ জন। কলকাতায় মৃতের সংখ্যা ৪৪৪। সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২,৮১৪ জন।

উত্তর ২৪ পরগণায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২৩ জন। তবে এই জেলায় নতুন করে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দক্ষিণ ২৪ পরগণা আর হাওড়ায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন যথাক্রমে ১০৩ আর ১০৬ জন। অন্যদিকে হুগলিতে আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই কম (৩৬)।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে লকডাউন শুরু হচ্ছে। কলকাতার কনটেনমেন্ট জোনগুলির তালিকা প্রকাশিত হয়েছে।

সংক্রমণ কমছে দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলায়

গত ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলায় নতুন করোনা-সংক্রমণ অনেকটাই কম। কোনো জেলাতেই দশের বেশি আক্রান্ত নেই। নতুন রোগীর খোঁজ মেলেনি ঝাড়গ্রামে।

এ ছাড়া, নতুন আক্রান্তের থেকে সুস্থতার সংখ্যা বেশি হওয়ায় সক্রিয় রোগী কমেছে পশ্চিম মেদিনীপুরে।

উত্তরবঙ্গেও কিছুটা স্বস্তির খবর

মালদা (৪৫) আর দার্জিলিং (৩২) সংক্রমণের নিরিখে শীর্ষে থাকলেও এই দুই জেলাতে সুস্থতার সংখ্যা বেশি হওয়ায় কমেছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা। কোচবিহার জেলা বাদে উত্তরের সব জেলাতেই সক্রিয় রোগী কমেছে। এর মধ্যে দক্ষিণ দিনাজপুর আর কালিম্পংয়ে নতুন করে কোনো আক্রান্তের খবর পাওয়া যায়নি। তবে জলপাইগুড়ি আর মালদায় নতুন করে ১ আর ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নমুনা পরীক্ষার তথ্য

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ১০,৩৮৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ৫ লক্ষ ৭২ হাজার ৫২৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়ে গেল। বর্তমানে রাজ্যে নমুনা পজিটিভ হওয়ার হার রয়েছে ৪.৩৪ শতাংশ।

Continue Reading

রাজ্য

আগামী পাঁচ দিন উত্তরবঙ্গে মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টির আশঙ্কা

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আগামী পাঁচ দিন উত্তরবঙ্গে মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এর ফলে সমতলে বন্যা পরিস্থিতি আর পাহাড়ে প্রবল ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলা, তথা দার্জিলিং, কালিম্পং, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি আর আলিপুরদুয়ারে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু তার পর থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা উল্লিখিত এই জেলাগুলিতে চরম অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। অর্থাৎ এক একটি জায়গায় ২৪ ঘণ্টায় আড়াইশো মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টি হতে পারে।

এ ছাড়া, মালদা আর দুই দিনাজপুরেও বিক্ষিপ্ত অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এই মুহূর্তে দক্ষিণবঙ্গের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে মৌসুমি অক্ষরেখা। ২৪ ঘণ্টা পর সেটা উত্তরবঙ্গের দিকে চলে যাবে। পাশাপাশি বিহারে একটি ঘূর্ণাবর্তও রয়েছে। এর ফলে প্রবল বৃষ্টির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি, শনিবার থেকে দক্ষিণবঙ্গে নদিয়া, মুর্শিদাবাদ আর বীরভূমেও ভারী বৃষ্টি হতে পারে। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলায় আপাতত বিক্ষিপ্ত হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি চলতে থাকবে।

Continue Reading

রাজ্য

ডিএ মামলায় রাজ্য সরকারের আর্জি খারিজ স্যাটে

রাজ্যের আবেদন ছিল কোভিডের কথা মাথায় রেখে এটি বিচার করা হোক। তবে সেই আবেদনও বাতিল করা হয়েছে।

Currency

কলকাতা: ডিএ নিয়ে রাজ্য সরকারের রিভিউ পিটিশনের আর্জি খারিজ করে দিল স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনাল (SAT)। বুধবার এই মামলায় স্যাট স্পষ্টতই জানিয়ে দিল, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা বা ডিএ (DA) দিতেই হবে।

কেন্দ্রীয় হারে ডিএ নিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মীদের সঙ্গে প্রায় গত তিন বছর ধরে ট্রাইব্যুনালে আইনি লড়াই চলছে রাজ্য সরকারের। গত বছরের ২৬ জুলাই স্যাট রাজ্য সরকারকে ছ’মাসের মধ্যে ডিএ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু নির্ধারিত সময়সীমা পার হয়ে যাওয়ার পরেও তা হাতে না পাওয়ায় ফের মামলা করে সংগঠনগুলি। অন্য দিকে রাজ্য সরকারও পুনরায় স্যাটের কাছে রিভিউ পিটিশন দায়ের করে।

জানা গিয়েছে, রাজ্যের আবেদন ছিল কোভিডের কথা মাথায় রেখে এটি বিচার করা হোক। তবে সেই আবেদনও বাতিল করা হয়েছে।

এ দিন স্যাটের বিচারপতি রঞ্জিতকুমার বাগ ও প্রশাসনিক সদস্য সুবেশকুমার দাস স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, কোভিড পরিস্থিতি বিচার্য নয়, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ডিএ দিতেই হবে।

স্যাট যে নির্দেশ দিয়েছিল

গত বছরের গত ১৮ জুন শুনানি শেষ হওয়ার পর পরের সপ্তাহেই ডিএ মামলার রায় ঘোষণা করে স্যাট। ট্রাইবুনাল জানায়, কেন্দ্রীয় হারেই ডিএ দিতে হবে রাজ্যকে। কী ভাবে ডিএ দেওয়া হবে তা ঠিক করবে রাজ্য। কেন্দ্রের হারে ডিএ না দিলে বৈষম্যমূলক হবে বলে মন্তব্য করে স্যাট।

স্যাট বলে, ডিএ কী ভাবে দেওয়া হবে, তা স্থির করবে রাজ্য। তবে কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দিতে হবে রাজ্য সরকারি কর্মীদেরও।। কেন্দ্রীয় হারে ডিএ না দিলে তা হবে বৈষম্যমূলক। গোটা দেশের মূল্যসূচক দেখে ডিএর হার স্থির করতে হবে।

বকেয়া বেড়ে ২১ শতাংশ!

ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালু হলেও বকেয়া ডিএ দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা করা হয়েছিল রাজ্যের তরফে। অন্য দিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জন্য আগামী দেড় বছর কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা বাড়াবে না বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু গত জানুয়ারিতেই কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্য ৪ শতাংশ ডিএ ঘোষণা করা হয়। সে ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ ২১ শতাংশে ঠেকেছে বলে দাবি করেছে সংগঠনগুলি।

স্বাভাবিক ভাবেই স্যাটের নতুন নির্দেশের পর রাজ্য সরকার কী সিদ্ধান্ত নেয়, এখন সেটাই দেখার!

Continue Reading
Advertisement
রাজ্য4 mins ago

রেকর্ড বৃদ্ধি, রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত প্রায় ১০০০

কলকাতা15 mins ago

অনলাইনে নয়, পড়ুয়াদের জন্য এই বিকল্প পথই বেছে নিয়েছে গড়িয়া স্টেশনের একটি স্কুল

ক্রিকেট59 mins ago

১১৬ দিন পর শুরু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট, হাঁটু গেড়ে বসে জর্জ ফ্লয়েডকে স্মরণ ক্রিকেটারদের

কলকাতা1 hour ago

কলকাতায় লকডাউনের আওতায় পড়া এলাকাগুলির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশিত

provident fund
শিল্প-বাণিজ্য2 hours ago

কেন্দ্রীয় সরকার আগস্ট মাস পর্যন্ত কর্মীদের ইপিএফ বকেয়া জমা করবে, অনুমোদন মন্ত্রিসভায়

CBSE
দেশ3 hours ago

সিবিএসইর সিলেবাস থেকে বাদ ‘ধর্মনিরপেক্ষতা’, ‘গণতান্ত্রিক অধিকার’, তীব্র বিতর্ক

রাজ্য3 hours ago

আগামী পাঁচ দিন উত্তরবঙ্গে মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টির আশঙ্কা

BMS
দেশ3 hours ago

বেসরকারিকরণের বিরুদ্ধে সপ্তাহব্যাপী প্রতিবাদে নামছে আরএসএসের শ্রমিক সংগঠন

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা2 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা3 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা1 week ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

নজরে