ট্যাবলো বিতর্কে নয়া মোড়! এ বার মমতাকে চিঠি রাজনাথের

0

কলকাতা: সাধারণতন্ত্র দিবসের ট্যাবলো ঘিরে চলছে কেন্দ্র-রাজ্য রাজনৈতিক চাপানউতোর। দিল্লির ট্যাবলো শোভাযাত্রায় পশ্চিমবঙ্গের অংশগ্রহণকে কেন্দ্রের তরফে খারিজ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার তারই প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। জানালেন কী কারণে অনুমোদন পেল না পশ্চিমবঙ্গের ট্যাবলো।

কেন্দ্রের এ ধরনের সিদ্ধান্ত হতবাক এবং ব্যথিত হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। চিঠিতে তিনি লিখেছিলেন, “দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে অগ্রণী ভুমিকা নিয়েছিল বাংলা। তাই কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে বাংলার মানুষে ব্যথিত হয়েছেন। এতে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের অপমান করা হয়েছে”।

বাংলার প্রত্যেক স্বাধীনতা সংগ্রামীর প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের কৃতজ্ঞতার কথা জানিয়ে রাজনাথ নিজের চিঠিতে লেখেন, “নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে আমরা শ্রদ্ধা করি। সেই সম্মান স্মারক হিসাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২৩ জানুয়ারি পরাক্রম দিবস ঘোষণা করেছেন। এ বার থেকে সাধারণতন্ত্র দিবসের উদযাপনের শুরুই হবে ২৩ জানুয়ারি থেকে। চলবে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত”।

মমতার উদ্দেশে প্রতিরক্ষামন্ত্রী আরও লেখেন, “সাধারণতন্ত্র দিবসের প্যারেডে ট্যাবলো বাছাই করা হয় অত্যন্ত পারদর্শিতার সঙ্গে। বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিদ্বজ্জনদের কমিটি এবং রাজ্যগুলোর প্রস্তাব যথাযত ভাবে খতিয়ে দেখেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ বার ২৯টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ১২টিকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে”।

শুধু রাজ্যের শাসক দল নয়, বিজেপি নেতা তথাগত রায়ও কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আরজি জানিয়েছেন ইতিমধ্যেই। বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা একটি টুইট বার্তায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লেখেন, “প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন, অনুগ্রহ করে প্রজাতন্ত্র দিবসের উৎসবে পশ্চিমবঙ্গের ট্যাবলোর অনুমতি দিন। এতে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর বীরত্বের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। নেতাজির সংগঠন আইএনএ ব্রিটিশদের বিশ্বাসকে নাড়িয়ে তাদের দ্রুত দেশ ছাড়তে বাধ্য করেছিল।”

প্রসঙ্গত, এ বার সাধারণতন্ত্র দিবসের থিম ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’। অন্য দিকে, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকীকে মর্যাদা দিতে ২৪ জানুয়ারির পরিবর্তে ২৩ জানুয়ারি থেকেই সাধারণতন্ত্র দিবস উদ্‌‌যাপনের শুরু করবে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই থিমের সঙ্গে সাযুজ্য রেখেই ট্যাবলো পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রাজ্যের থিমের নাম দেওয়া হয়েছিল ‘নেতাজি ও আজাদহিন্দ বাহিনী’। কিন্তু তা বাতিল করে কেন্দ্র।

আরও পড়তে পারেন:

এক বছরে কয়েকশো কোটি টাকার মালিক হয়েছেন ভারতের আরও ৪০ জন, চরম দারিদ্রের শিকার সাড়ে ৪ কোটি

হারিয়ে গেল ছোটোবেলা, প্রয়াত হলেন নারায়ণ দেবনাথ

কিছু রাজ্যে পরিস্থিতি উন্নতির জের, ভারতে নতুন সংক্রমণ কমল প্রায় ২০ হাজার, ধসছে মৃত্যুহার

সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে হামলা ইয়েমেনের জঙ্গিদের, আবু ধাবিতে হত দুই ভারতীয়

এক মাস পিছলেও বইমেলা হচ্ছে, উদ্বোধন ২৮ ফেব্রুয়ারি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন