নিম্নচাপের জেরে ফের সক্রিয় বর্ষা, ঘাটতি কমল অনেকটাই

ওয়েবডেস্ক: জুন-জুলাইয়ে যে ছবিটা দেখা যায়নি, সেটাই দেখা যাচ্ছে আগস্টে। একের পর এক নিম্নচাপে মাঝেমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গে সক্রিয় হয়ে উঠছে। আর তার ফলে ধাপে ধাপে কমে আসছে ঘাটতি। গত ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের অধিকাংশ জেলায় মোটের ওপরে ভালো বৃষ্টি হওয়ায় সেই ঘাটতি আরও কিছুটা নেমেছে।

আবহাওয়া দফতরের প্রকাশিত রিপোর্টে জানানো হয়েছে, এই মুহূর্তে দক্ষিণবঙ্গের বৃষ্টির ঘাটতি কমে এসেছে ৪০ শতাংশে। আগস্টের শুরুতে এই ঘাটতির পরিমাণ ছিল ৫০ শতাংশ। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলির মধ্যে সব থেকে ভালো অবস্থা রয়েছে পুরুলিয়ার। সেখানে ঘাটতি এখন আর মাত্র ২১ শতাংশে রয়েছে। আগামী দিনের যা পূর্বাভাস, তাতে এই ঘাটতি পুরুলিয়ার পক্ষে পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব।

গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি মূলত হয়েছে দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগনা এবং কলকাতায়। ফলে এই জেলাগুলিতে ঘাটতি বেশ কিছুটা কমেছে। কলকাতায় ঘাটতি কমে এসেছে ৪৯ শতাংশে। গত ১৬ জুলাই, কলকাতার ঘাটতি চরমে পৌঁছেছিল। সে দিন শহরের ঘাটতি পৌঁছে গিয়েছিল ৭৭ শতাংশে। তার পর থেকে ধাপে ধাপে তা কমে এসেছে। এক সময়ে ৬০ শতাংশ ছুঁয়ে ফেলা দক্ষিণ ২৪ পরগণার ঘাটতিও এখন কমে এসেছে ৪২ শতাংশে।

আরও পড়ুন ১২ অক্টোবর থেকে শ্রীনগরে বসছে তিন দিনের বিশ্ব বাণিজ্য সম্মেলন

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের আশা, আগামী দিনের যা পূর্বাভাস, দক্ষিণবঙ্গ ঘাটতি অনেকটাই মিটিয়ে নিতে পারবে। কারণ যে নিম্নচাপের প্রভাবে এই বৃষ্টি হচ্ছে, তার প্রভাব আগামী বুধবার বিকেল পর্যন্ত থাকবে। কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী জেলার পাশাপাশি বাঁকুড়া, পুরুলিয়ার মতো পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতেও ভালো বৃষ্টি চলতে পারে।

বৃহস্পতিবার থেকে অবশ্য বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমতে পারে। কিন্তু তাতেও বিশেষ দুঃখ হওয়ার কথা নয়। কারণ বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা জানাচ্ছে, এই সপ্তাহের শেষে দক্ষিণবঙ্গের ওপরে আরও একটি ঘূর্ণাবর্ত প্রভাব ফেলতে পারে, যা পরবর্তীকালে নিম্নচাপে রূপান্তরিত হতে পারে। ফলে সমগ্র দক্ষিণবঙ্গ জুড়েই এখন বৃষ্টি চলবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.