kolkata rain

ওয়েবডেস্ক: গত বুধবার থেকে দক্ষিণবঙ্গের উপর সক্রিয় হয়ে রয়েছে মৌসুমী বায়ু। তার রেশ মঙ্গলবারও কিছুটা বোঝা গিয়েছে। সারা দিনই বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি হয়েছে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জায়গায়। গত কয়েক দিনের বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গের ক্ষেত্রে অনেকটাই আশীর্বাদী বার্তা নিয়ে এসেছে। নদী-নালা-খাল-বিল তো বটেই, চাষের জমিও কার্যত শুকিয়ে কাঠ হয়ে গিয়েছিল। গত এক সপ্তাহের বৃষ্টি দক্ষিণবঙ্গের জলভাণ্ডার কিছুটা পূর্ণ করেছে। তবে আসন্ন একটি গভীর নিম্নচাপের সৌজন্যে সেই ভাণ্ডার আরও কিছুটা পূর্ণ হতে পারে।

সর্বশেষ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে আলিপুর আবহাওয়া দফতর মঙ্গলবার দুপুরে জানিয়েছে, আগামী ৪ আগস্ট উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে পারে। সেটি শক্তি বৃদ্ধি করবে বলেও ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। তবে তার গতিপথ কী হবে, সে ব্যাপারে আবহাওয়া দফতর কিছু না বললেও, বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা একটা ইঙ্গিত দিয়েছে।

আরও পড়ুন ভোটাভুটি এড়াল একাধিক এনডিএ শরিক, রাজ্যসভায় অবশেষে পাশ তিন তলাক বিল

নিম্নচাপটি যে জায়গায় তৈরি হবে, সেটা দক্ষিণবঙ্গের জন্য খুবই অনুকূল। আর তাই সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ওই নিম্নচাপটি পশ্চিম বাংলাদেশ উপকূল এবং উত্তর ওড়িশা উপকূলের মধ্যে দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করবে। পশ্চিমবঙ্গ উপকূল দিয়েই ওই নিম্নচাপ প্রবেশ করতে পারে বলে হালকা একটা ইঙ্গিত দিয়েছেন সংস্থার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। নিম্নচাপটি অনেকটাই শক্তিবৃদ্ধি করতে পারে বলে মনে করছেন রবীন্দ্রবাবু। তাঁর মতে, সেটি গভীর তো বটেই, এমনকি অতি গভীর নিম্নচাপেও পরিণত হতে পারে। আর এমনটা যদি হয়, তা হলে দক্ষিণবঙ্গের জন্য মঙ্গল।

নিম্নচাপ শক্তি বাড়ালে সব থেকে বেশি লাভবান হবে পশ্চিমের জেলাগুলি। পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, দুই বর্ধমান, বীরভূম, পশ্চিম মেদিনীপুরে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকবে। সে ক্ষেত্রে কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলেও ভারী বৃষ্টি হতে পারে। তবে শেষ মুহূর্তে নিম্নচাপের মতিগতি পালটে যাওয়ারও একটা আশঙ্কা থেকে যায়। তবে এখন বর্তমান পরিস্থিতি বিচার করে মনে হচ্ছে, আসন্ন এই নিম্নচাপটি দক্ষিণবঙ্গকে বিশেষ ঠকাবে না।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন