Dilip Ghosh

কলকাতা: বিভিন্ন কলেজ থেকে টাকার বিনিময়ে ভরতির খবর শুনেই উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী রাজ্য পুলিশের ডিজিকে বিশেষ নির্দেশ দিয়েছেন। ওই নির্দেশে বলা হয়েছে, কোনো ছাত্র-ছাত্রী বা অভিভাবকের কাছ থেকে এই সংক্রান্ত অভিযোগ পাওয়া মাত্রই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে হবে। তাঁর ওই নির্দেশের পরই কলকাতা ও হুগলি থেকে একাধিক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এমনকি মমতা নিজেও হানা দিয়েছেন কলেজে। তার পরেও বিজেপির তরফে তাঁর বিরুদ্ধে কটাক্ষের বিরতি নেই। কেন?

ভরতি নিয়ে সৃষ্টি হওয়া বেনিয়মকে হাতিয়ার করে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে তীব্র কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ। বিজেপির রাজ্য সভাপতি বৃহস্পতিবার কৃষ্ণনগরের একটি দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে টেনে আনেন কলেজে ভরতি নিয়ে বেনিয়মের প্রসঙ্গ।

আরও পড়ুন: কলেজে তোলাবাজি রুখতে সরকারি নির্দেশ, তার পরেও গ্রেফতার

তিনি বলেন, “তৃণমূল কর্মীরাই এই অবস্থার সৃষ্টি করেছে। যে কারণে মানুষের চাপে পড়ে ওনাদের কলেজে কলেজে ঘুরতে হচ্ছে। রাজ্যের প্রশাসনকে ঠিক মতো চালাতে না পারার জন্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে হচ্ছে। বিরোধী থাকার অভ্যাসটা এখনও ওনাদের যায়নি”। উল্লেখ্য, গত সোমবার মুখ্যমন্ত্রী আশুতোষ কলেজ পরিদর্শনে যান। ওই দিনেই জয়পুরিয়া কলেজে যান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি ঘোষণা করেন, ভরতির জন্য ছাত্র-ছাত্রীকে কলেজে যেতে হবে না। এমনকি কাউন্সেলিং পদ্ধতিও তুলে দেওয়া হয়।

একই সঙ্গে দিলীপবাবু এ দিন গভীর সংশয় প্রকাশ করে বলেন, “এই রাজ্যের পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা হচ্ছে। আগামী দিনে আমাদের ছেলে-মেয়েদের ভবিষ্যৎ কী হবে, তা ভগবানই জানে। আসলে এ রাজ্যে লুঠপাটের সরকার চলছে”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here