kolkata map

ওয়েবডেস্ক: দীর্ঘ দিন ধরেই সংবাদ মাধ্যমে ঘুরপাক খাচ্ছে একটি খবর- অমিত শাহ বাংলা বিজেপির কাছে ২২টি আসনে জেতার লক্ষ্য স্থির করে দিয়েছেন। সম্প্রতি সর্বভারতীয় সভাপতিকে দেওয়া একটি রিপোর্টে বাংলা বিজেপির তরফে জানানো হল সেই আসনগুলির নাম। যেখানে জেলাওয়াড়ি ভাবে সুর্নিদিষ্ট কারণ দেখিয়ে তুলে ধরা হয়েছে আসনগুলির নাম। এর মধ্যে উল্লেখ্য যোগ্য স্থানে রয়েছে কলকাতা। এখানকার দু’টি আসনেই জয়ের ব্যাপারে নিশ্চিত বিজেপি।

ওই তালিকায় ধরা পড়েছে, কলকাতা উত্তর এবং কলকাতা দক্ষিণ লোকসভা আসনে বিজেপি জেতার অপেক্ষায় রয়েছে। কারণ, গত ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে ওই দু’টি আসনে প্রাপ্ত ভোটের নিরিখে বিজেপি রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। কলকাতা উত্তরে গত লোকসভা নির্বাচনে এক ধাক্কায় বিজেপি প্রার্থী রাহুল সিনহা ভোট বাড়িয়ে নিয়েছিলেন ২১.৬৬ শতাংশ। তৃণমূল প্রার্থী সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকে তাঁর ভোটের ব্যবধান ছিল মাত্র ১০ শতাংশের কাছাকাছি। মূলত হিন্দিভাষী এলাকাগুলিতে গত চার বছরে যে হারে বিজেপির সমর্থক বেড়েচে, তার নিরিখেই আসনটিতে জয়ের ব্যাপারে নিশ্চিত দিলীপবাবুরা।

কলকাতা দক্ষিণ কেন্দ্র নিয়েও আকাঙ্ক্ষার পারদ চড়ছে বিজেপির। তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজের আসন হিসাবে পরিচিত এই কেন্দ্রেও গত ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে সিপিএম-কে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছিল বিজেপি। এই আসনে গতবার প্রার্থী হয়েছিলেন বর্তমানে ত্রিপুরার রাজ্যপাল তথাগত রায়। তিনিও রাহুলবাবুর মতো ২১.৩৩ শতাংশ ভোট বাড়াতে সফল হয়েছিলেন। তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত বকসি ৩৬.৯৫ শতাংশ ভোট পেয়ে বিজয়ী হলেও তৃণমূলের ভোট কমেছিল ২০.২৪ শতাংশ। অন্য দিকে বামফ্রন্ট প্রার্থী নন্দিনী মুখোপাধ্যায়ের ভোট কমেছিল প্রায় ১১ শতাংশ। অর্থাৎ, দু’তরফ থেকেই যে অংশবিশেষ ভোট বিজেপির পকেটে ঢুকেছিল, তা নিশ্চিত। যে কারণে এই কেন্দ্রটিতে এ বার কোনো হেভিওয়েট প্রার্থীকে গুরুত্ব দিতে চাইছে বিজেপি।

২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনেও এই দুই কেন্দ্রের অন্তর্গত বিধানসভা আসনগুলিতে বিজেপির ভোট মোটের উপর অনেকটাই বেড়েছে। সেই ভোটবৃদ্ধির ধারাকে অব্যাহত হিসাবে ধরে নিয়েই বাংলা বিজেপি জয়ের রাস্থা সুগম করতে চাইছে। সে তথ্যই তারা তুলে ধরেছে দিল্লি নেতৃত্বকে পাঠানো রিপোর্টে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন