বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য এবং দীনেশ বাজাজ। প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি রাজ্যসভা আসনে শুক্রবার পর্যন্ত মনোনয়ন দাখিল করলেন মোট ছ’জন প্রার্থী। এ দিনই ছিল মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন। চারটিতে তৃণমূলের জয় নিশ্চিত হলেও পঞ্চম আসনটিতে নির্দল প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। এই ঘটনার পর কি বামফ্রন্ট-কংগ্রেস যৌথ প্রার্থী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের জয়ের সম্ভাবনায় কি অন্তরায় সৃষ্টি করল?

এমনতিতে ২৯৪ আসনের রাজ্য বিধানসভায় তৃণমূল বিধায়কের মোট সংখ্যা ২২৪ জন। এঁদের মধ্যে ২০৭ জন তৃণমূলের, বাকি ১৭ জন অন্য দল থেকে শিবির বদল করে শাসক দলে আসা। অন্য দিকে কংগ্রেস এবং বামফ্রন্টের বিধায়ক সংখ্যা যথাক্রমে ২৮ এবং ২৭।

অর্থাৎ, সংখ্যাতত্ত্বের বিচারে ২৯৪ আসনের বিধানসভায় রাজ্যসভার (Rajya Sabha) জন্য ছ’জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা করায় কাউকে জিততে হলে প্রয়োজন ৪৯ জন বিধায়কের সমর্থন। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে তৃণমূলের চার প্রার্থী অর্পিতা ঘোষ, মৌসম বেনজির নুর, দীনেশ ত্রিবেদী এবং সুব্রত বক্সির জয় নিশ্চিত। চার প্রার্থীকে জিতিয়ে নিয়ে আসার পর তৃণমূলের উদ্বৃত্ত ভোট থাকবে ২৮টি। যা দিয়ে পঞ্চম প্রার্থীকে জিতিয়ে আনা কোনো মতেই সম্ভব নয়। তার উপর এঁদের মধ্যে ১৭ জন এসেছেন অন্য দল থেকে।

ভিন দল থেকে আসা বিধায়করা দলনেতার নির্দেশ মতোই ভোট দেবেন। হুইপ না থাকলেও অন্য দলকে ভোট দিলে দল বিরোধিতার দায়ে পড়বেন।

অন্য দিকে বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেসের সঙ্গে রয়েছেন মোট ৫৫ জন বিধায়ক। সে ক্ষেত্রে তাদের প্রার্থী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে (Bikash Ranjan Bhattacharya) জিতিয়ে নিয়ে আসার জন্য ৪৯টি ভোট ঝুলিতে মজুত। তা হলে পঞ্চম আসনে নির্দল প্রার্থী হিসাবে দীনেশ বাজাজকে (Dinesh Bajaj) সমর্থনের নেপথ্যে কোনো অঙ্ক কাজ করছে?

 প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক দীনেশ বাজাজ (Dinesh Bajaj)। গত ২০০৬ থেকে ২০১১ পর্যন্ত তিনি জোড়াসাঁকো বিধানসভার বিধায়ক ছিলেন।

উত্তর জানা যাবে আগামী ২৬ মার্চ!

পুনশ্চ: গত ২০১৭ সালে রাজ্যসভার জন্য মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন বাম প্রার্থী বিকাশ। কিন্তু সে বার নির্ধারিত সময়ের পরে মনোনয়ন জমা দেওয়ায়, তা বাতিল হয়ে গিয়েছিল।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন