bankura clean campaign
সাইকেল চালিয়ে অভিযানে জেলাশাসক (গোলাপি জামা)। নিজস্ব চিত্র
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: বাঁকুড়া শহরকে সুন্দর, পরিচ্ছন্ন ও ডেঙ্গি-মুক্ত করতে এগিয়ে এলেন বাঁকুড়ার জেলাশাসক স্বয়ং। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এই কাজে নেমে পড়েছেন তিনি। প্রশাসনের অন্যান্য আধিকারিককে সঙ্গে নিয়ে সাইকেলে ঘুরে দেখলেন শহরের পাটপুর জেল রোড, কেঠারডাঙা, রেলওয়ে কলোনি-সহ বেশ কিছু এলাকা। ঘুম ভাঙার পর চোখের সামনে স্বয়ং জেলাশাসক উমাশঙ্কর এসকে দেখে অনেকটাই বিস্মিত বাঁকুড়াবাসী। বাঁকুড়া জেলাকে নির্মল করতে জেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগ যথেষ্ট প্রশংসনীয় বলেও অনেকের দাবি।

প্রথম বার জেলাশাসককে এত কাছে পেয়ে নিজেদের এলাকার সমস্যা তুলে ধরেন স্থানীয়রা। এই প্রথম কোনো জেলাশাসক নিজে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঘুরে সরজমিনে সব কিছু দেখে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিচ্ছেন, এই ঘটনা অবাক করেছে শহরবাসীকে। জেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন মানুষ।

প্রথমে শহরের বস্তি এলাকা পরিদর্শনের উপর বেশি জোর দেন জেলাশাসক। ওই এলাকাগুলিতে মজে যাওয়া পুকুর, নোংরা নর্দমা, জমে থাকা জল, যত্রতত্র ঘুরে বেড়ানো শূকর এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ দেখে রীতিমত বিস্মিত তিনি। বিষয়টি দ্রুততার সঙ্গে বিবেচনার জন্য পৌরসভাকে নির্দেশ দেন তিনি। পরে জেলাশাসক সাংবাদিকদের বলেন, “তিনটি পুকুর রয়েছে। সেগুলি সংস্কারের জন্য তাদের মালিকদের কুড়ি দিন সময় দেওয়া হয়েছে।”

আরও পড়ুন মাটির নীচে গ্যাসের ভাণ্ডার, রাজ্যের এই শহরে গ্যাস-উৎপাদনের বেসিন তৈরি করার পথে ওএনজিসি

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ না হলে পুর প্রশাসন সেই পুকুরগুলোর দখল নেবে বলে জানান তিনি। এ ছাড়াও বস্তি এলাকায় শূকর চাষের উপর বিশেষ নজর দেওয়ার কথা বলেন তিনি। যেখানে সেখানে ইচ্ছামতো আর শূকর চাষ করা যাবে না বলেও এ দিন তিনি নির্দেশ দেন। এই ধরনের অভিযান ধারাবাহিক ভাবে চলবে বলেও জেলাশাসক এ দিন সাংবাদিকদের জানান।

এ দিন জেলাশাসক ডঃ উমাশঙ্কর এস ছাড়াও অভিযানে অংশ নেন বাঁকুড়া সদর মহকুমাশাসক অসীম কুমার বালা, পৌরসভার চেয়ারম্যান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত প্রমুখ।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন