কলকাতা: পুজোর মরশুম শেষ হলেই ফের বসতে চলেছে ‘দুয়ারে সরকার’ শিবির। বুধবার এই মর্মে নির্দেশিকা জারি করলেন মুখ্যসচিব।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দুর্গাপুজো মিটলেই ‘দুয়ারে সরকার’ শিবির বসবে রাজ্যজুড়ে। তাতে আরও বেশি করে মানুষ সামাজিক প্রকল্পে নিজেদের নথিভুক্ত করতে পারবেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছিলেন, দুর্গাপুজোর পরে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প হবে। সেই কথা মতোই বুধবার বিজ্ঞপ্তি জারি করল নবান্ন।

কবে থেকে শুরু দুয়ারে সরকার

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ১ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে দুয়ারে সরকার। ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ক্যাম্প হবে। এ বার ২৫টি বিষয়ে পরিষেবা মিলবে। প্রতিটি কর্মসূচির সুবিধা দেওয়া হবে এই ‘দুয়ারে সরকার’-এর মাধ্যমে। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যসাথী—সমস্ত প্রকল্পে নিজেদের অন্তর্ভুক্ত করতে পারবেন। অন্য দিকে, ১-১৫ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে পাড়ায় সমাধান কর্মসূচি।

কী কী পরিষেবা পাওয়া যাবে

খাদ্যসাথী, স্বাস্থ্যসাথী, জাতি শংসাপত্র, শিক্ষাশ্রী, তফসিলি বন্ধু, জয় জোহার, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, মানবিক, কৃষক বন্ধু, ঐক্যশ্রী, লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা এবং সংযুক্তিকরণ, আধার কার্ড সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ, কৃষি জমির মিউটেশন, বিনামূল্য সামাজিক সুরক্ষা যোজনা, প্রতিবন্ধী শংসাপত্র, মৎস্যজীবী ক্রেডিট কার্ড, কেসিসি (এগ্রিকালচার), কেসিসি (প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন), তাঁতিদের জন্য ক্রেডিট কার্ড–সহ আরও কয়েকটি প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করা যাবে।

উল্লেখ্য, একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প শুরু হয় রাজ্যে। ইতিমধ্যেই রাজ্যে চারটি পর্যায়ে দুয়ারে সরকার হয়ে গেছে। এই নিয়ে পঞ্চম দুয়ারে সরকার হতে চলেছে রাজ্যে। পঞ্চায়েত ভোটের আগেই আরও একবার দুয়ারে সরকার।

দুয়ারে রেশন নিয়ে বিড়ম্বনা

‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প ‘জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইন- ২০১৩’ র পরিপন্থী। বুধবার নির্দেশে এমনটাই জানিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। শুধু তাই নয়, আইনের চোখে এই প্রকল্পের কোন গ্রহনযোগ্যতা নেই বলেও নির্দেশে জানিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। ফলে খারিজ হয়ে গিয়েছে রাজ্যের দুয়ারে রেশন প্রকল্প। ফলে অস্বস্তি বেড়েছে রাজ্যের।

খবর অনলাইন-এ আরও পড়ুন:

বড়োসড়ো স্বস্তি! আরও ৩ মাস বিনামূল্যের রেশন দেবে কেন্দ্র

অপেক্ষার অবসান! কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের ডিএ বাড়ল ৪ শতাংশ

তবে সূত্রের খবর, হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে রাজ্য। হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের অর্ডারের কপি পাওয়ার পরেই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাবে রাজ্যের খাদ্য দফতর। রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে প্রায় 8 কোটি মানুষ দুয়ারের রেশনের ফলে সুবিধা পাচ্ছেন। প্রয়োজনে দুয়ারে রেশন এর নিয়মে কিছু পরিবর্তন বা সংশোধন করা হতে পারে, সুপ্রিম কোর্টে তা জানাবে রাজ্য।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন