snowfall in sikkim
জমে গিয়েছে ছাঙ্গু লেক। ছবি: ফেসবুক

ওয়েবডেস্ক: কাশ্মীর, হিমাচল, উত্তরাখণ্ডের পরে এ বার আগাম তুষারপাত দেখল সিকিমও। গত দু’ দিন ধরেই উত্তর সিকিমের লাচুং, ইয়ুমথাং-এ বরফ পড়েছে। বরফ দেখা গিয়েছে পূর্ব সিকিমের ছাঙ্গু, নাথুলাতেও। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার হাত ধরেই এই তুষারপাত বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আবহাওয়া মন্ত্রকের সিকিমের অধিকার্তা গোপীনাথ রাহা।

সিকিমের বরফ পড়েছে বলে আশায় বুক বাঁধছেন দার্জিলিং-এর বাসিন্দারা। অনেক বছর পর এ বার কি দার্জিলিং-এ বরফ পড়বে? দার্জিলিং-এ বরফ পড়বে কি না সেটা এখনই বলা যাবে না, তবে সিকিমের তুষারপাতের জেরে দার্জিলিং, কালিম্পং-সহ উত্তরবঙ্গে জোর ঠান্ডা পড়েছে। শনিবার দার্জিলিং-এর তাপমাত্রা নেমে গিয়েছে ৫ ডিগ্রিতে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও বিশেষ বাড়ছে না। শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে সারা দিনই কনকনে হাওয়ায় কাহিল ছিল গোটা শহর। দুপুরেও আগুন পোহাতে দেখাতে গিয়েছে। তুলনায় পারদ কিছুটা বেশি কালিম্পং-এ। এ দিন সেখানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও পড়ুন সরে যাচ্ছে ‘গজ’, দক্ষিণবঙ্গে শীত কি এ বার আসবে?

পাহাড়ের ঠান্ডা হাওয়া সমতলেও প্রভাব ফেলেছে। শনিবার শিলিগুড়ির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোচবিহারের পারদ নেমেছে ১৩.৯-এ। তুলনায় জলপাইগুড়ির পারদ কিছুটা বেশি (১৫.৮)। ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে কলকাতাতে ১৩ ডিগ্রি খুব একটা হয় না। তাই মধ্যে নভেম্বরে শিলিগুড়িতে ১৩ মানে শীত কতটা জব্বর সেটা আন্দাজ করাই যায়। এ রকম ভাবে চলতে থাকলে অন্য বছরের তুলনায় এ বছর রেকর্ড শীত পড়বে এমনই মনে করছেন বাসিন্দারা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here