Asansol
বাবুল সু্প্রিয়। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: গায়ক-সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় গাওয়া বিজেপির থিম সং বিতর্কে দাঁড়ি টানল নির্বাচন কমিশন। জানা গিয়েছে, এ বারের লোকসভা ভোটকে সামনে রেখে বাবুলের গাওয়া ওই থিম সং নিষিদ্ধ করেছে কমিশন।

জানা গিয়েছে, সামনের লোকসভা ভোটের প্রচারের উদ্দেশে ব্যবহৃত ওই গানে বলা হয়েছিল, রাজ্যে “সিন্ডিকেট-রাজ”, “চপশিল্প” ছাড়া কোনও শিল্প আসেনি। পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করতে গিয়ে টেবিলের তলায় মাথা লুকোয়, এই ছবিও গানে বলা হয়েছে। আবার গানে দাবি করা হয়েছে-“ফুটবে এ বার পদ্মফুল/আর নয় তৃণমূল”। পাশাপাশি প্রশ্ন করা হয়েছিল, “চাষির ছেলে শুধুই কি চাষ করবে”। গানের কথা অমিত চক্রবর্তীর। সুরকার এবং গায়ক স্বয়ং বাবুল। বাবুল বলেছিলেন, “প্রার্থী ঘোষণা হয়নি ঠিকই। কিন্তু তার আগে বিজেপির থিম সং তৈরি”।

Loading videos...

থিম সংটি রেকর্ডিংয়ের পর তা আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ না করলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরাল হয়ে যায়। এর পরই এই গানের মাধ্যমে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কুৎসা ছড়ানো এবং মুখ্যমন্ত্রীকে অপমানের অভিযোগে আসানসোল দক্ষিণ থানায় গায়কের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে শাসক দল তৃণমূল। অভিযোগ জানানো হয় কমিশনে।

কমিশন বাবুলকে শোকজ নোটিশ দেয়। পরে পশ্চিমবঙ্গের অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচনী আধিকারি সঞ্জয় বসু জানিয়েছেন, “মিডিয়া সার্টিফিকেশন এবং মনিটরিং কমিটি এখনও পর্যন্ত ওই থিম সংটিকে ছাড়পত্র দেয়নি। কারণ, কমিশনের নির্দেশ মতো পুনর্বিন্যস্ত করা সংস্করণটি এখনও জমা করেনি বিজেপি”। পাশাপাশি আসানসোলের বিদায়ী সাংসদ থিম সং নিয়ে যে সমস্ত যুক্তির অবতারণা করেছিলেন, তা কমিশনের কাছে ধোপে টেকেনি। উল্টে বাবুলের দেওয়া তথ্যকে তারা মিথ্যা বলে দাবি করে। বাবুল দাবি করেছিলেন, তিনি ওই গান সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়ে আসেননি।

[ আরও পড়ুন: হুগলির শ্রীরামপুর স্টেশনে সংঘর্ষ দুই ট্রেনের, আহত কমপক্ষে ২২ ]

কমিশন পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখে জেনেছে, বাবুল নিজেও তাঁর গান টুইট করে সকলের সামনে এসেছিলেন। যে কারণে থিম সং নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নিল কমিশন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.