kolkata corporation

কলকাতা: এটা এমনই এক নির্বাচন, যেখানে ভোটের আগেই স্পষ্ট ফলাফল। তবে শুধু মাত্র ব্যবধান বাড়া-কমার একটা মৃদু সম্ভাবনা থেকেই যায়। তেমনটাই ধারণা রাজনৈতিক মহলের।

কলকাতার মেয়রপদ থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ইস্তফা দেওয়ার পর আগামী মেয়র হিসাবে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনোনীত করেন ফিরহাদ হাকিমকে। রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রীর বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক পদ্ধতি মেনে প্রার্থীও দেয় বিজেপি। তাঁদের তরফে প্রার্থী করা হয় তিনবারের কাউন্সিলার মীনাদেবী পুরোহিতকে। সোমবার দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর নির্ধারিত ভাগ্যফল প্রকাশ হবে। তবে সেই ফলাফলের সংকোচন-প্রসারণেও নজর থাকবে রাজনীতির কারবারিদের।

আপডেট পড়ুন: ক্রসভোটিংয়ের জল্পনা উড়িয়ে দিল কলকাতা পুরসভার মেয়রপদের নির্বাচন

এক দিকে তৃণমূলের ১২২ জন কাউন্সিলার। অন্য দিকে মাত্র ৫ জন বিজেপি কাউন্সিলার। ভোটের ফলেও কি তাই হবে না কি গুনতির পর কয়েকটা সংখ্যা এ দিক – ও দিক হবে? তেমন প্রশ্নই খুঁজছে উত্তর।

উল্লেখ্য, মেয়রপদে ভোটের আগে গত শুক্রবার কাউন্সিলারদের সঙ্গে বৈঠকে বসে তৃণমূল। একই ভাবে গত সপ্তাহেও তাঁদের নিয়ে আলিপুরে বৈঠকে বসেছিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সে বার ছিল সর্বসম্মতিক্রমে মেয়রপদে রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের নাম প্রস্তাব এবং সমর্থন। কিন্তু শুক্রবার আচমকা কেন পুরসভায় কাউন্সিলরদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসল তৃণমূল? সেখান থেকেই উঠে এসেছে ক্রসভোটিংয়ের প্রসঙ্গ।

আরও পড়ুন: বিজেপির রথের দড়ি টানতে রাজ্যে আসতে পারেন বলিউডের ‘খিলাড়ি’

তবে আর মাত্র কয়েকটা ঘণ্টা, তার পরেই স্পষ্ট হয়ে যাবে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here