ভারতীয় রেলের ম্যাসকট ‘ভোলু’। রেলের ব্লেজার পরা হাতি ভোলু লণ্ঠনের সবুজ আলো দেখায়। সবুজ আলো মানেই ধাবমান হওয়ার সংকেত। সেই ধাবমান ট্রেনের নীচে প্রায় প্রতি দিন চাপা পড়ছে ভোলুরা।

শুক্রবার সন্ধে সাড়ে ৭টা নাগাদ বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের কাছে একটি প্যাসেঞ্জার ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হল ৩টি হাতির। রেল লাইন পার হওয়ার সময়ে খড়গপুর-আদ্রা প্যাসেঞ্জার ট্রেনের তলায় চাপা পড়ে ওই ৩টি হাতি। পাঞ্চেতের ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার অয়ন ঘোষ জানিয়েছেন, এদের মধ্যে ২টি শিশু হাতি, অন্যটি মা। ট্রেনের তলায় ছিন্ন ভিন্ন হয়ে যায় হাতিগুলির দেহ। এই দুর্ঘটনার জেরে প্রায় ২ঘণ্টা বিষ্ণুপুর লাইনে ট্রেন চলাচল ব্যাহত হয় বলে রেল আধিকারিকরা জানিয়েছেন। পুরুলিয়া এক্সপ্রেস-সহ আরও কয়েকটি প্যাসেঞ্জার ট্রেন আটকা পড়ে যায়।

শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় প্রতি বছর একাধিক হাতির মৃত্যু হয় রেল লাইন পারাপার করতে গিয়ে। তবু বিকল্প ব্যবস্থা আজও অধরা। এলিফ্যান্ট করিডরের প্রসঙ্গ উঠেছে বারবার, তবু আজও তা অধরা। আরও কত ‘ভোলু’র প্রাণ গেলে তা বাস্তবায়িত হবে এখন সেটাই দেখার।

ফাইল চিত্র

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here