ভোট পরবর্তী হিংসায় মৃতদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

0

খবর অনলাইন ডেস্ককমিশনের অধীনে রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা থাকাকালীন রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসায় ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে এই তথ্য পেশ করে মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা করে সাহায্য ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, “আমি শপথ নেওয়ার পরেই ভোট পরবর্তী হিংসা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছি। এখন দিল্লির নেতারা এসে জেলায় জেলায় দাঙ্গার প্ররোচনা দিচ্ছেন। দিল্লি, উত্তরপ্রদেশে দাঙ্গায় মানুষ মারা গেলে কেন্দ্রের প্রতিনিধি দল যায় না। করোনায় মিটিং-মিছিল বন্ধ, তাও কেন দিল্লির নেতারা আসছেন? অক্সিজেন নেই, ভ্যাকসিন নেই, তখন কেন আসেনি”?

Loading videos...

একই সঙ্গে তিনি মনে করিয়ে দেন, “কেন্দ্রীয় দল আসতেই পারে, তবে সবারই করোনা টেস্ট হবে। বাংলার বাইরে থেকে কেউ এলেই তাঁর আরটি-পিসিআর টেস্ট হবে”।

ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনায় বিজেপি-কে কাঠগড়ায় তুলে মমতা বলেন, “গুন্ডামি, উস্কানি বেশি করছে বিজেপি। যেখানে বিজেপি জিতেছে, সেখানে বেশি হিংসার ঘটনা ঘটছে। দিনহাটায় আমাদের উদয়ন গুহকেও মেরেছে। হাত ভেঙে দেওয়া হয়েছে”।

এ দিনের সাংবাদিক বৈঠকের শুরুতেই কোভিড মোকাবিলা নিয়ে একাধিক পরিকল্পনার কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, রাজ্যে অক্সিজেন ঘাটতি মেটাতে মেডিক্যাল কলেজে অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করা হবে। পাশাপাশি হাসপাতালগুলিতে ৪০ শতাংশ বেড বাড়ানো হবে। সব হাসপাতাল, নার্সিংহোমে করোনা চিকিৎসার বেড রাখতে হবে। ডাক্তারি পড়িুয়াদের করোনা চিকিৎসার কাজে লাগানো হবে। দরকারে কোয়াক ডাক্তারদেরও কাজে লাগানো হবে।

সাধারণ মানুষের উদ্দেশে তিনি বলেন, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখুন। নিজেদের খেয়াল নিজেরা রাখুন। গাদাগাদি করে বাসে উঠবেন না। ভিড় এড়ানোর চেষ্টা করুন। পরিস্থিতি বিবেচনা করেই লোকাল ট্রেন বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে মানুষকে ক’দিনের জন্য কষ্ট করতে হবে।

আরও পড়তে পারেন: ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্তে রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের গড়া চার সদস্যের দল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.