নামছে জল, বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমানে

0

আসানসোল: তুলনামূলক উঁচু জায়গা হওয়ার সুবিধা পাচ্ছে বাঁকুড়া এবং পশ্চিম বর্ধমান। নিম্নচাপের প্রভাবে এই দুই জেলাতেই রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছিল। ফলে বানভাসি হয়ে পড়েছিল বাঁকুড়া, আসানসোল, রানিগঞ্জ প্রভৃতি শহর। সর্বশেষ খবর হল, এই দুই জেলার বিস্তীর্ণ এলাকা থেকেই জল নামতে শুরু করেছে। হাওড়া এবং হুগলির সামগ্রিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হলেও, বাঁকুড়া এবং পশ্চিম বর্ধমানের অবস্থায় কিছুটা নিশ্চিন্ত প্রশাসন।

পশ্চিম বর্ধমানের ঘাগরবুড়ি লাগোয়া ২ নম্বর জাতীয় সড়কের বানভাসি অংশ থেকে বৃহস্পতিবার রাতেই জল নেমে যায়। শুক্রবার ভোর থেকে শুরু হয় যান চলাচল। সকাল পর্যন্ত আসানসোল পুরসভার চারটি ওয়ার্ডের কিছু অংশে জল জমে থাকলেও বিকেলে তা নেমে যায়।

বাঁকুড়া শহরের জলও নেমেছে। তবে দামোদর, শালি নদী ও বোদাই নদীর জলে বাঁকুড়ার বড়জোড়া, সোনামুখী ও পাত্রসায়র ব্লকের বেশ কিছু গ্রাম প্লাবিত রয়েছে। বৃষ্টিতে ও জল ঢুকে বাঁকুড়ার ২২৯টি পঞ্চায়েতে ৫৯,৩১০ জন ক্ষতিগ্রস্ত। ৩,৯৪৮টি বাড়ির ক্ষতি হয়েছে। প্রশাসনের দাবি, বাড়ির দেওয়াল চাপা পড়ে দু’জন, সাপের কামড়ে এক জন এবং জলে তলিয়ে এক জন মারা যান।

কিন্তু এখন মূল চিন্তা হাওড়া আর হুগলিকে নিয়ে। ওপরে থেকে জল ক্রমশ নামছে এই দুই জেলায়। ফলে পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ার আশংকা করা হচ্ছে।

আরও পড়তে পারেন

পুজোয় নতুন নিম্নচাপ? এখনই এমন আশংকার কোনো ভিত্তি নেই

ফের ২৫ হাজারের নীচে নামল দৈনিক সংক্রমণ, মৃতের সংখ্যাতেও বড়ো পতন

বন্যায় কবলিত উদয়নারায়ণপুরের দশটা পঞ্চায়েত, শনিবার আরও খারাপ হতে পারে পরিস্থিতি

দ্বারকেশ্বরের ভয়াল রূপ হারাল আটাত্তরের স্মৃতিকেও, বন্যায় পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন আরামবাগ

পশ্চিমবঙ্গে বন্যা কবলিত ২২ লক্ষ, বেশ কিছু জায়গায় নেমেছে সেনা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন