ওয়েবডেস্ক: বাংলার পর্বতারোহণে নতুন মুকুট। বুধবার সকালে কাঞ্চনজঙ্ঘা শীর্ষে পৌঁছোলেন চার বাঙালি তরুণ।

সোনারপুর আরোহী ক্লাবের বিপ্লব বৈদ্য, কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে রুদ্রপ্রসাদ হালদার, হৃদয়পুরের মাউন্টেন কোয়েস্ট ক্লাবের রমেশ রায় এবং ইছাপুরের শেখ সাহাবুদ্দিন সফল ভাবে দেশের সর্বোচ্চ এবং বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ শৃঙ্গে পা রাখেন। পর্বতারোহণ সংস্থা পিক প্রোমোশনের তরফ থেকে এই খবর জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেল থেকেই শুরু হয়েছিল উৎকণ্ঠার প্রহর। ওই দিনই প্রায় সাত হাজার মিটার উচ্চতার তিন নম্বর ক‍্যাম্প থেকে সাড়ে সাত হাজার মিটার উচ্চতার ক্যাম্প ফোর তথা সামিট ক‍্যাম্পের পথে রওনা দেন পাঁচ জন। এঁদের মধ্যে ছিলেন পর্বতারোহী কুন্তল কাঁড়ারও। বুধবার সকালে খবর আসে, পাঁচ জনের মধ্যে চার জনই সামিট করেছেন। তবে কুন্তল কাঁড়ার সামিট করেছেন কি না, সেই খবর পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন নিজের রেকর্ড ভেঙে ২৩তম বার এভারেস্ট শীর্ষে ‘গাইড’ কামি রিটা

উল্লেখ্য, অন্যান্য আট হাজারি শৃঙ্গের থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘায় চড়া তুলনামূলক ভাবে বেশি কঠিন। সাম্প্রতিক কালে বাঙালি পর্বতারোহণের অন্যতম দুঃখজনক ঘটনাও রয়েছে কাঞ্চনজঙ্ঘার সঙ্গে জড়িয়ে। ২০১৪ সালের ২০ মে কাঞ্চনজঙ্ঘা অভিযানে থেকে ফেরার পথেই নিখোঁজ হয়ে যান ছন্দা গায়েন। তার পরে বাংলা থেকে এই প্রথম সফল অভিযান হল এই দুর্গম শৃঙ্গে।

এই অভিযাত্রী দলে ছিলেন পুর্বা, মিংমা, দাওয়া তেম্বা, দাওয়া সিরিং এবং দাওয়া নামের পাঁচ জন দক্ষ শেরপা।শেষ পাওয়া খবর, চার পর্বতারোহীই সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here