ওয়েবডেস্ক: বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য কুখ্যাত বিহারের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং। এ বার নিজের দলকেই প্রকাশ্যে ‘ট্রোল’ করে বসলেন তিনি।

ঘটনার কেন্দ্রবিন্দুতে একটি ইফতার পার্টি। বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জিতেন রাম মাঝি আয়োজিত ওই ইফতার পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন গিরিরাজের দলেরই নেতা তথা বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল কুমার মোদী। এ ছাড়াও জোটসঙ্গী জেডিইউ নেতা তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার ছাড়াও আরও এক জোটসঙ্গী এলজেপির তরফ থেকে ওই পার্টিতে ছিলেন রামবিলাস পাসওয়ান ও তাঁর ছেলে চিরাগ। এতেই ক্ষুব্ধ গিরিরাজ।

মঙ্গলবার সকালে টুইটারে তিনি লেখেন, “একই রকম উৎসাহে যদি নবরাত্রির পার্টির আয়োজন করা হত, কত ভালো লাগত! আমরা কেন নিজেদের ধর্মকে পিছিয়ে রেখে লোক দেখানো নাটক করি?” এই পোস্টের সঙ্গে কয়েকটি ছবি পোস্ট করেন গিরিরাজ। সেখানে মুসলিমদের ঐতিহ্যশালী সাদা পাজামা, টুপি এবং স্কার্ফ পরে বসে থাকতে দেখা গিয়েছে সুশীল মোদীকেও।

গিরিরাজের এই মন্তব্যের পরেই তাঁর বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন জেডিইউয়ের মুখপাত্র সঞ্জয় সিং। তিনি বলেন, “এই ধরনের মন্তব্য উনি আগেও করেছেন, ওর মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন।” উল্লেখ্য, মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া নিয়ে জেডিইউ এবং বিজেপির মধ্যে সম্পর্কের শীতলতা তৈরি হয়েছে। সেই পরিস্থিতিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে এই মন্তব্য।

আরও পড়ুন উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণ ছাত্রছাত্রীদের দিশা দেখাতে বিষ্ণুপুরে বিশেষ আলোচনা সভা

অন্য এক জোটসঙ্গী এলজেপির সঙ্গে বিজেপির সে ভাবে কোনো ঝামেলা নেই। কিন্তু গিরিরাজের এই মন্তব্যের কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন দলের নেতা চিরাগ পাসওয়ানও। তিনি বলেন, “গিরিরাজজি কেমন মানুষ, সেটাই সবাই জানেন। আমি শুধু একটা কথাই বলতে চাই, যে নবরাত্রি হোক বা ইফতার, আমরা সব উৎসব এক সঙ্গে পালন করি।”

উল্লেখ্য, এ বার বেগুসরাই কেন্দ্র থেকে চার লক্ষেরও বেশি ভোটে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কানহাইয়া কুমারকে হারিয়ে সাংসদ হয়েছেন গিরিরাজ।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন