প্রতীকী ছবি

কলকাতা: কার্টুন দেখার এমন নেশা যে মাঝেমধ্যেই স্কুলে যেত না তেরো বছরের এক কিশোরী। এই কারণে মঙ্গলবার তার মা তাকে বকুনি দেয়। মায়ের সেই বকুনির জেরে আত্মহত্যা করল সেই কিশোরী।

ঘটনাটি ঘটেছে নরেন্দ্রপুর থানা এলাকার রাধানগর পশ্চিম পাড়ায়। আত্মঘাতী কিশোরীর নাম সহেলি মণ্ডল। তার বাবা সোমনাথ মণ্ডল রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। মা ছায়াদেবী একটি কারখানায় কাজ করেন।

মঙ্গলবার সোমনাথবাবু এবং ছায়াদেবী দু’জনেই কাজে চলে যান। সন্ধেবেলায় সোমনাথবাবু বাড়ি ফিরে দেখেন ঘরের দরজা বন্ধ। দরজা ভেঙে ঘরের মধ্যে ঢুকে দেখেন ফ্যানের সঙ্গে শাড়িতে ফাঁস দিয়ে ঝুলছে মেয়ে। খবর দেওয়া হয় নরেন্দ্রপুর থানায়। পুলিশ এসে দেহ উদ্ধার করে। সহেলির দেহ বুধবার ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হবে। ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে পুলিশ। এলাকাবাসীর মতে, সিরিয়াল দেখেই হয়তো আত্মহত্যার পরিকল্পনা করে থাকতে পারে সহেলি। সারা দিন একাই থাকত। এলাকার কারোর সাথেই বেশি কথা বলত না বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন মানসিক প্রতিবন্ধীদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে দু’ দিনব্যাপী জাতীয়স্তরের সম্মেলন আইএসআই -এ

তবে সহেলির ঘটনার পরেই যে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, তা বলে কি বাবা-মায়েরা সন্তানদের বকুনিও দিতে পারবেন না!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here