Mamata banerjee

দার্জিলিং: পাহাড়ের মানুষ যদি পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে আনেন তা হলে তাঁর সরকার এর বিনিময়ে পাহাড়কে সমৃদ্ধিতে ভরিয়ে দেবেন। মঙ্গলবার দার্জিলিং-এর শিল্প সম্মেলনে এ ভাবেই পাহাড়ের মানুষকে কাছে টানার চেষ্টা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, “রাজ্যে কোথাও কোনো হিংসা যাতে না হয় সেটা আমাদের দেখার দায়িত্ব। আপনারা যদি আওয়াজ তুলতে চান, আমাদের কোনো অসুবিধা নেই, কারণ আমরা চাই পাহাড়ের মানুষের সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে।”

নিজের বিধানসভা কেন্দ্রের থেকেও পাহাড়ের খোঁজখবর বেশি রাখেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “এর আগে দার্জিলিং-এর কথা কেই চিন্তাও করত না, কিন্তু আমি মাসে দু’বার উত্তরবঙ্গে আসি। আমি নিজের কেন্দ্রেরও এত খোঁজখবর রাখতে পারি না, যে খোঁজখবর আমি পাহাড়ের রাখি। মাঝেমধ্যে হয়তো ব্যক্তিগত কাউকে সন্তুষ্ট করতে পারি না। কিন্তু মানুষের সমষ্টিকে সন্তুষ্ট করতেই পারি। আপনারা পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে আনুন, আমি পাহাড়কে সমৃদ্ধিতে ভরিয়ে দেব। এটা আমাদের প্রতিজ্ঞা, এটা আমাদের আশ্বাস।”

দার্জিলিং-এ শিল্প আনতে হলে শান্তি ফেরানোর ওপরেই বেশি জোর দেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে দু’একটা আসনের জন্য দার্জিলিং নিয়ে বিশেষ রাজনীতি না করার জন্যও কেন্দ্রের প্রতি আবেদন করেন তিনি।

মমতা বলেন, “আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য পাহাড়ে শান্তি। শান্তি না থাকলে শিল্পপতিরা বিনিয়োগ করবেন না। পাহাড়ে অশান্তি হলে কিছু কিছু রাজনৈতিক দল লাভবান হতে পারে, কিন্তু সামগ্রিক ভাবে ক্ষতি হবে দার্জিলিং-এর মানুষদের।” গোর্খাল্যান্ডের দাবিও যে কোনো ভাবেই মানা হবে না সেটাও আকারে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “দিল্লির কাছে আমার আবেদন, দার্জিলিংকে শান্তিতে থাকতে দিন। দার্জিলিং-এ ভেদাভেদ তৈরি করবেন না। আমরা সকলের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রাখতে চাই। আমাদের হৃদয়ে দার্জিলিং, এই অঞ্চলকে আমরা মনে প্রাণে ভালোবাসি। শুধুমাত্র কয়েকটা আসনের জন্য দার্জিলিংকে আলাদা করবেন না।”

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন