দার্জিলিং: গোর্খাল্যান্ডের সমর্থনে রবিবার দার্জিলিং-এ মৌন মিছিল বার করলেন গোর্খা জনমুক্ত মোর্চা সমর্থকরা। তবে নতুন করে কোনো গণ্ডগোলের খবর পাওয়া যায়নি।

মোর্চার দাবি ছিল শনিবার পুলিশের গুলিতে তাদের তিনজন সমর্থকের মৃত্যু হয়েছে। এর প্রতিবাদে রবিবার মৌন মিছিলের ডাক দেয় তারা। এ দিন সকাল দশটা থেকে দার্জিলিং-এর চক বাজারে জড়ো হতে শুরু করেন মোর্চা সমর্থকরা। পুলিশের অনুমতি নিয়েই এই মিছিল হয়েছে। কালো ব্যান্ড এবং ভারতের পতাকা নিয়ে মিছিল করতে দেখা যায় মোর্চা সমর্থকদের।

এর পাশাপাশি দার্জিলিং-এর পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে শান্তিস্থাপনের আহবান জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। আলোচনার মাধ্যমে সমস্ত সমস্যার সমাধান করা সম্ভব, এই কথা বলে তিনি জানান, “ভারতের মতো গণতান্ত্রিক দেশে হিংসার মাধ্যমে কোনো সমস্যার সমাধান হয় না।”

তবে নতুন করে বড়ো ধরণের গণ্ডগোলের খবর না পাওয়া গেলেও রবিবার বিকেলের দিকে কালিম্পঙের পেডঙে পুলিশের একটি জিপ জ্বালিয়েছে মোর্চা সমর্থকরা। পাশাপাশি গরুবাথানে একটি গ্রন্থাগারে আগুন লাগানোর চেষ্টাও করেন মোর্চা সমর্থকরা। অন্যদিকে তৃণমূলের পাহাড় কমিটির জেলা সম্পাদক খুশ নারায়ণ সুব্বাকে দল ছাড়ার হুমকি দেওয়ার অভিযোগও ওঠে মোর্চা সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

এ দিকে মোর্চার ডাকা বারো ঘণ্টার বন্ধে, মিশ্র প্রভাব পড়েছে ডুয়ার্সে। জলপাইগুড়ি এবং আলিপুরদুয়ার জেলা নিয়ে ডুয়ার্স অঞ্চল। জলপাইগুড়ি জেলায় জনজীবন মোটামুটি স্বাভাবিক। খুলেছে দোকানপাট। তবে রাস্তায় বেসরকারি বাসের সংখ্যা কম থাকলেও পর্যাপ্ত সরকারি বাস চলছে। তবে বন্ধের প্রভাব পড়েছে আলিপুরদুয়ারের জয়গাঁয়। মোর্চা সমর্থকরা পথ অবরোধ করায় সারাদিন বন্ধ ছিল ভারত-ভূটান সড়ক যোগাযোগ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here