‘বাস্তবের সঙ্গে দাবির কোনো মিল নেই’, বিশ্ববঙ্গ সম্মেলন নিয়ে শ্বেতপত্র চাইলেন জগদীপ ধনখর

0

কলকাতা: আগামী বছর ২০-২১ এপ্রিল বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন-এর আয়োজন করতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। বুধবার দিল্লি সফরে ওই সম্মেলনে উপস্থিত থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বাণিজ্য সম্মেলনের সাফল্য নিয়ে শ্বেতপত্র প্রকাশের দাবি তুললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর।

বিষয়টি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠিও দিয়েছেন রাজ্যপাল। পাশাপাশি বৃহস্পতিবার এই বিষয়ে একটি টুইটও করেন তিনি। ওই টুইটে মমতার অফিশিয়াল অ্যাকাউন্টটিকে জুড়ে দিয়ে তিনি লিখেছেন, “বিজিবিএস পাঁচ বার কেমন হয়েছে, সে ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তথ্য এবং শ্বেতপত্র দাবি করছি। ‘বিরাট সাফল্যের’ লম্বাচওড়া দাবির সঙ্গে বাস্তবের তো মিল নেই।”

এর সঙ্গে মমতাকে তিনি যে চিঠিটি দিয়েছেন তাও তুলে ধরেছেন। চিঠিতে তাঁর দাবি, ২০২০ সালে বাণিজ্য সম্মেলন নিয়ে একাধিক তথ্য জানতে চেয়ে তিনি রাজ্য সরকারকে চিঠি দিয়েছিলেন। ২০১৬ সাল থেকে ওই সম্মেলন করতে কত খরচ হয়েছে, কোন কোন সংস্থার মাধ্যমে টাকা খরচ হয়েছে, সরাসরি না ফিকির মাধ্যমে কোন কোন সংস্থাকে টাকা দেওয়া হয়েছে, কতগুলি মউ সই হয়েছে, ২০১৬ সাল থেকে কত বিনিয়োগ হয়েছে, কত কর্মসংস্থান হয়েছে— ইত্যাদি প্রশ্ন ফের এক বার জানতে চেয়েছেন রাজ্যপাল।

তথ্য জানতে চাওয়া নিয়ে তাঁর সাংবিধানিক অধিকারের কথাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন তিনি। ধনখরের বক্তব্য, বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের সাফল্য নিয়ে লম্বাচওড়া কথা বলা হলেও আপাত ভাবে তার সঙ্গে সরকারি তথ্যের কোনো বাস্তব মিল নেই।

দু’বছর পর ২০২২ সালে বাণিজ্য সম্মেলন করতে চলেছে রাজ্য। কিছু দিন আগেই তার ঘোষণা করেছে রাজ্য। বুধবার দিল্লি সফরকালে প্রধানমন্ত্রীকে ওই সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে আসেন মুখ্যমন্ত্রী। মোদীর সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন।’’ এই আবহে রাজ্যপালের টুইট নতুন মাত্রা যোগ করল।

আজকের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য খবর পড়ুন এখানে:

সব পুরসভার ভোট ৩০ এপ্রিলের মধ্যে, হাইকোর্টে জানাল রাজ্য

ভোট চলাকালীন ত্রিপুরা নিয়ে বেনজির নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

কলকাতা পুরনির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি জারি করল নির্বাচন কমিশন

কুড়ির নীচে কলকাতা, পুরুলিয়ায় পারদ চোদ্দোর ঘরে, ফের শীত শীত ভাব ফিরছে দক্ষিণবঙ্গে

টানা চার দিন দশ হাজারের নীচে দৈনিক সংক্রমণ, সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও আরও পতন

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন