কলকাতা: প্রতিমা বিসর্জনের সময় হঠাৎই জলপাইগুড়ির মালবাজারের মাল নদীতে হড়পা বান। জলের তোড়ে ভেসে গিয়ে এখনও পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ আরও অনেকে। আশংকা করা হচ্ছে, আরও বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যা।

ঘটনায় প্রকাশ, প্রতিমা বিসর্জন করতে গিয়ে মালবাজারের মাল নদীতে হড়পা বানে নিখোঁজ এখনও প্রায় ৩০ জন। রাত পেরিয়ে সকাল হয়ে গেলেও এখনও বহু মানুষের খোঁজ মেলেনি। শেষ পাওয়া খবর পর্যন্ত, আট জনের দেহ উদ্ধার হয়। প্রশাসনের তরফে মৃত ব্যক্তিদের যে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তাতে রয়েছে তপন অধিকারী (৭২), ঊর্মি সাহা (১৩), রুমুর সাহা (৪২), আনস পণ্ডিত (৮), বিভা দেবী (২৮), শুভাশিস রাহা (৬৩), শোভনদ্বীপ অধিকারী (২০) এবং সুস্মিতা পোদ্দার (২২)। ১৩ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বর্তমানে তাঁরা মালবাজার হাসপাতালে ভর্তি।

বুধবার মাঝরাত পর্যন্ত চলে উদ্ধারকাজ। প্রশাসনের উদ্যোগে জেসিবি নামিয়ে উদ্ধারকাজ শুরু হয়। তারপর প্রবল বৃষ্টির জেরে উদ্ধারকাজ সাময়িক বন্ধ রাখা হয়। মুষলধারায় বৃষ্টির জন্য বুধবার রাত দেড়টার পর উদ্ধারকাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সকালে বৃষ্টির জন্য উদ্ধারকাজ শুরু করা সম্ভব হয়নি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে নদীর বিভিন্ন অংশে চালানো হবে তল্লাশি।

জলপাইগুড়ির জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা জানিয়েছেন, প্রতিমা বিসর্জন করতে এসে হড়পা বানে তলিয়ে যাওয়ার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। ৩০ জনের মত নদীর একটি আইল্যান্ডে আটকে আছে। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে পাঠানো হয়েছে। কিছু লোককে সিভিল ডিফেন্স উদ্ধার করেছে।

পুলিশ ও সিভিল ডিফেন্স একসঙ্গে কাজে নেমেছে বলে জানিয়েছেন জলপাইগুড়ি পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্ত। তিনি জানান, কয়েক জন নদীর মাঝে একটা চরে আশ্রয় নেন। যাঁরা আশ্রয় নিয়েছিলেন তাঁদের সকলকে উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও নদীতে তল্লাশি অভিযান জারি রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, বুধবার সন্ধ্যায় ৭০টি প্রতিমা বিসর্জনের জন্য আনা হয়েছিল। নদীর দু’ধারে দাঁড়িয়েছিলেন বহু মানুষ। তার মধ্যে ২৫ থেকে ৩০টি প্রতিমা বিসর্জনের পরই বিপর্যয় ঘটে। রাত সাড়ে ৮টা নাগাদ হঠাৎ করেই হড়পা বান আছড়ে পড়ে। স্রোতের টানে ভেসে যায় ট্রাক-সহ বহু মানুষ। স্থানীয় সূত্রে দাবি, নদীখাতে আগেই বোল্ডার ফেলা হয়েছিল, যাতে যে দিকে বিসর্জন হবে, সে দিকে বেশি জল যায়। হড়পা বানের সময় তা হিতে বিপরীত হয়েছে বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি।

খবর অনলাইন-এ আরও পড়ুন:

একাদশীতেও মুখভার আকাশের, দিনভর বৃষ্টির পূর্বাভাস

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন