কলকাতা: একদিনে এক মাসে ধরে বৃষ্টি নেই দক্ষিণবঙ্গে। অন্যদিকে টানা বৃষ্টি হয়ে চলেছে উত্তরবঙ্গে। রবিবার এবং সোমবার সেখানে আরও বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনা। সব মিলিয়ে একটা রাজ্যের দুটো অংশে দুই ধরনের আবহাওয়া। দক্ষিণবঙ্গে কবে বৃষ্টি হবে, এখনও পরিষ্কার করে বলা যাচ্ছে না।

এ বার মার্চের শুরু থেকেই প্রবল গরম পড়ে গিয়েছিল ভারতের একটা বড়ো অংশে। তার প্রভাব পশ্চিমবঙ্গেও এসে পড়ে। দক্ষিণবঙ্গে তো তাপমাত্রা বাড়ছিলই। কিন্তু উত্তরবঙ্গের পারদবৃদ্ধিও ছিল নজরকাড়া। শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ির মতো জায়গায় মধ্যমার্চেই তাপমাত্রা ৩৫-৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাপিয়ে যায়। কালিম্পংয়ে দিনের বেলায় পাখা চালানোর মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়।

কিন্তু গত সপ্তাহ থেকেই উত্তরবঙ্গের আবহাওয়ায় কিছুটা বদল আসে। গরমের দাপট কমে। সেই সঙ্গে দফায় দফায় হালকা বৃষ্টিও শুরু হয়। সেই বৃষ্টির দাপটই এ বার বেড়ে গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, বিহার থেকে উত্তরবঙ্গ হয়ে উত্তরপূর্ব ভারত পর্যন্ত একটি অক্ষরেখা বিস্তৃত রয়েছে। সেই অক্ষরেখাকে শক্তিশালী করে তুলেছে বঙ্গোপসাগর থেকে বয়ে যাওয়া জলীয় বাষ্প। গত কয়েকদিন ধরে কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে যে জোরালো দখিণা হাওয়া বইছে, সেটা এই জলীয় বাষ্পের বয়ে যাওয়াকেই ইঙ্গিত করে।

এর ফলে অসম এবং মেঘালয়ে অতিভারী বৃষ্টি হচ্ছে মাঝেমধ্যে। গত ২৪ ঘণ্টায় মৌসিনরামে ৩৩০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। উত্তরবঙ্গেও বৃষ্টি হচ্ছে। তবে সেটা এ বার বাড়বে। পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে রবিবার এবং সোমবার সেখানে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সিকিমেও ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

তবে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি কবে হবে, এখনও পরিষ্কার করে বলা যাচ্ছে না। এখানে এখনও পরিস্থিতি কালবৈশাখীর জন্য অনুকূল হয়ে ওঠেনি। এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহ নাগাদ কালবৈশাখী তৈরি হওয়ার মতো পরিস্থিতি হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়তে পারেন:

চণ্ডীগড়কে পঞ্জাবের অন্তর্ভুক্ত করা হোক, কেন্দ্রকে চাপে ফেলে বিধানসভায় প্রস্তাব আনল ভগবন্ত মান সরকার

আয়কর দাখিলের ফর্ম পূরণে নয়া বিজ্ঞপ্তি, জানুন বিস্তারিত

ফের দাম কমল সোনা-রুপোর, জানুন কার দর কত

গ্রুপ-ডি নিয়োগ মামলায় সিবিআই-কে ‘স্বাধীনতা’ সিঙ্গল বেঞ্চের, ডিভিশন বেঞ্চে স্বস্তি শান্তিপ্রসাদের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন