rajbari dighi, jalpaiguri
রাজবাড়ি দিঘি, জলপাইগুড়ি।

রাজা বন্দ্যোপাধ্যায়, জলপাইগুড়ি: রাজবাড়ির দিঘিতে আর প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া যাবে না। আগামীবার থেকে রাজবাড়ির দিঘিতে বিসর্জন দেওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে।

শুক্রবার জলপাইগুড়ির এসজেডিএর অফিসে এক সাংবাদিক বৈঠকে সংস্থার চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, “রাজবাড়ির দিঘিতে প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয়েছে বিনা অনুমতিতে। প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে এসজেডিএকে জানিয়ে বিসর্জন দেওয়া উচিত ছিল। বিসর্জন যাঁরা দিয়েছেন তাঁরা যদি অনুমতি নিতেন তা হলে আমরা প্রস্তুত থাকতাম। সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার করে দেওয়া হত। আগামী বার থেকে যাতে বিসর্জন না হয় তার জন্য ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসনকে বলা হয়েছে।”

এসজেডিএর পক্ষ থেকে গত এক বছর থেকে প্রচার করা হচ্ছে যে দিঘিতে কোনো ময়লা ফেলা যাবে না।

আরও পড়ুন উত্তরবঙ্গের পর্যটকদের জন্য সুখবর, বিশেষ প্যাকেজে গ্যাংটক নিয়ে যাচ্ছে এনবিএসটিসি

সৌরভবাবু জানান, রাজবাড়ির দিঘির ভোল আরও পালটে দেওয়া হবে। ইতিমধ্যে ১৪ কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে। আরও ৫ কোটি টাকা খরচ করা হবে। দিঘিতে বোটিং-এর ব্যবস্থা থাকবে, মিউজিক্যাল ফাউন্টেন করা হবে, থাকবে টয়ট্রেন। এ ছাড়াও জায়ান্ট স্ক্রিনে রাজবাড়ির ইতিহাস দেখানো হবে। রাজবাড়ির দিঘিতে নিরাপত্তাব্যবস্থা বাড়ানো হবে। বোটিং চলবে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত। সন্ধ্যা ৬টায় মিউজিক্যাল ফাউন্টেন শুরু হবে। টয় ট্রেন পুরো অংশে ঘুরবে না। কেবলমাত্র পার্কের অংশটিতে টয়ট্রেন চালু থাকবে।

সৌরভবাবু আরও জানান, মুখ্যমন্ত্রী আগামী ২৯ তারিখে উত্তরবঙ্গ সফরে আসছেন। তিনি অনেক উপহার নিয়ে আসছেন। এসজেডিএ-র বেশ কিছু প্রজেক্ট শেষ হয়েছে। সেগুলি উদ্বোধনের প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হয়েছে।

জলপাইগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রী দু’ কোটি টাকা ব্যয়ে কৃষক এবং স্বনির্ভর গোষ্ঠীর ট্রেনিং সেন্টারের  উদ্বোধন করবেন। কান্তেশ্বর দিঘির উন্নযন, তালমা হাটের উন্নয়ন, মাল ব্লকে দু’টি রাস্তা, জল্পেশ্বর মন্দিরে অভ্যন্তরীণ নিকাশি নালার উদ্বোধনের প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী বেশ কিছু প্রকল্পের শিলান্যাস করবেন। তার মধ্যে আছে মাল পুরসভা এলাকায় একটি ভবন, জলপাইগুড়ি পুরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে একটি শিশু উদ্যান, গর্তেশ্বরী মন্দিরের উন্নয়ন, জটিলেশ্বর মন্দিরের উন্নয়ন এবং জলপাইগুড়ির বহু স্কুলের সীমানা প্রাচীরের উদ্বোধন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here